বৃহস্পতিবার | অক্টোবর ২৮, ২০২১ | ১২ কার্তিক ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

দ্বিতীয় প্রান্তিকে মুনাফা বেড়েছে বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ের

বণিক বার্তা ডেস্ক

চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে (এপ্রিল-জুন) শতাংশ মুনাফা বেড়েছে ওয়ারেন বাফেটের বহুজাতিক বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ের। কভিড-১৯ মহামারী-পরবর্তী সময়ে প্রতিষ্ঠানটির সহযোগী সংস্থাগুলোর ব্যবসায়িক পুনরুদ্ধারের ফলে প্রবৃদ্ধি অর্জন হয়েছে। সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে এমনটা জানায় প্রতিষ্ঠানটি। খবর অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস।

যুক্তরাষ্ট্রের নেব্রাস্কা অঙ্গরাজ্যের ওহামায় অবস্থিত বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে জানায়, দ্বিতীয় প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটি হাজার ৮১০ কোটি ডলার আয় করেছে। প্রতিটি ক্লাস শেয়ারে তাদের আয়ের পরিমাণ ১৮ হাজার ৪৮৮ ডলার। এক বছর আগে একই সময়ে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফার পরিমাণ ছিল হাজার ৬৩০ কোটি ডলার, সময় প্রতিটি ক্লাস শেয়ারের দাম ছিল ১৬ হাজার ৩১৪ ডলার।

এর আগে বাফেট দীর্ঘদিন ধরেই বলছেন, বার্কশায়ারের পরিচালনায় প্রতিষ্ঠানটি ত্রৈমাসিক কার্যক্ষমতা সম্পর্কে ভালো ধারণা প্রদান করে। এর কারণ হিসেবে বাফেট জানান, বার্কশায়ার তাদের বিনিয়োগ নির্ভরশীল আয়কে বাদ রেখে ত্রৈমাসিক হিসাব সম্পন্ন করে, যা অনেকটাই পরিবর্তনশীল। মূল্যায়ন অনুযায়ী বার্কশায়ারের আয় ৬৭০ কোটি ডলার এবং প্রতিটি ক্লাস শেয়ারের মূল্য হাজার ৪০০ ডলার বৃদ্ধি পায়। এক বছর আগে একই সময়ে এর পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ৫৫০ কোটি ডলার হাজার ৪২০ ডলার।

মার্কিন আর্থিক তথ্য গবেষণা প্রতিষ্ঠান ফ্যাক্টসেটের চারজন বিশ্লেষক আশা করছিলেন, বার্কশায়ারের প্রতিটি ক্লাস শেয়ারের আয়ের পরিমাণ হাজার ৭৬৭ ডলার ৭২ সেন্ট হতে পারে।

বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে তাদের উল্লেখযোগ্য বিভাগগুলোতেই মুনাফার দেখা পেয়েছে বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়। প্রতিষ্ঠানটি তাদের ইউটিলিটি, রেলট্র্যাক জ্বালানি খাতে মহামারী-পরবর্তী সময়ে পুনরুদ্ধার অর্জনের ফলে মুনাফা অর্জন সহজ হয়েছে বলে জানায়। তবে গত বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের তুলনায় বার্কশায়ারের ইন্স্যুরেন্স আন্ডাররাইটিং পরিচালনা কার্যক্রমের মুনাফা চলতি বছরের একই সময়ে হ্রাস পেয়েছে।

গতকাল প্রকাশিত প্রতিবেদনে দেখা যায়, বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে তাদের পর্যবেক্ষণ নথিতে উল্লেখ করে যে গত বছরের দ্বিতীয়ার্ধ চলতি বছরে তাদের অনেকগুলো উৎপাদন, পরিষেবা খুচরা ব্যবসা উল্লেখযোগ্য পরিমাণে অগ্রসর হয়েছে। এসব খাত মহামারী-পরবর্তী অবস্থায় বেশ ভালোভাবে পুনরুদ্ধার হয়েছে। এর মধ্যে অনেকগুলো খাত মহামারী-পূর্ববর্তী সময়ের মতো অবস্থায় ফিরে গেছে।

বার্কশায়ার আরো জানায়, আগের প্রান্তিকের মতোই দ্বিতীয় প্রান্তিকে তারা ৬০০ কোটি ডলারের স্টক পুনরায় ক্রয় করেছে। ২০১৯ সালের শেষ নাগাদ থেকে এখন পর্যন্ত তারা হাজার ৯০০ কোটি ডলারের স্টক পুনরায় ক্রয় করেছে, আর্থিক পরিষেবা প্রতিষ্ঠান অ্যাডওয়ার্ড জনসের জ্যেষ্ঠ ইকুইটি গবেষণা বিশ্লেষক জেমস পি শানাহান এমনটা জানান।

শানাহান আরো জানান, একই সময়ে বার্কশায়ারের নগদ অর্থের পরিমাণ ১২ হাজার ৮০০ কোটি ডলার থেকে উন্নীত হয়ে ১৪ হাজার ৪০০ কোটি ডলারে পৌঁছেছে।

বার্কশায়ার হ্যাথাওয়ে ৯০টিরও বেশি কোম্পানি নিজেদের অধীনে পরিচালনা করে। এসব কোম্পানির মধ্যে রয়েছে বিএনএসএফ রেলট্র্যাক ইন্স্যুরেন্স, ইউটিলিটি, ফার্নিচার গহনার ব্যবসা। এছাড়া অ্যাপল, আমেরিকান এক্সপ্রেস, কোকা-কোলা এবং ব্যাংক অব আমেরিকায়ও তাদের বিশাল অংকের বিনিয়োগ রয়েছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন