শুক্রবার | সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২১ | ৮ আশ্বিন ১৪২৮

প্রথম পাতা

সাত প্রকল্প বাস্তবায়নে উদ্বৃত্ত সক্ষমতা হবে ২০ লাখ টিইইউএস

কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতার এক-চতুর্থাংশই অব্যবহৃত থাকবে

শামীম রাহমান

চাহিদার তুলনায় উৎপাদন সক্ষমতা বেশি হওয়ায় বর্তমানে অলস বসে আছে দেশের অধিকাংশ বিদ্যুৎকেন্দ্র রক্ষণাবেক্ষণ, কেন্দ্র ভাড়া, ক্যাপাসিটি চার্জ বাবদ এগুলোয় বছরে কয়েক হাজার কোটি টাকা ভর্তুকি দিচ্ছে সরকার একই বিড়ম্বনায় পড়তে যাচ্ছে দেশের বন্দর খাতও দেশের বন্দরগুলোর কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বৃদ্ধিতে বর্তমানে বেশ কয়েকটি প্রকল্প চালু রয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ফাইন্যান্স করপোরেশন (আইএফসি) বলছে, প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হলে অচিরেই দেশের বন্দরগুলোর কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা চাহিদাকে ছাড়িয়ে যাবে সেক্ষেত্রে ২০৩০ সাল নাগাদ দেশের কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতার এক-চতুর্থাংশ থেকে যাবে অলস অব্যবহৃত হিসেবে

বর্তমানে দেশে কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের সক্ষমতা চাহিদায় খুব একটা পার্থক্য নেই ক্রিয়েটিং মার্কেটস ইন বাংলাদেশ শীর্ষক প্রতিবেদনে আইএফসি বলছে, ২০২৬ সালের পর থেকে কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতায় উদ্বৃত্ত দেখা দেবে বাংলাদেশে দেশে বন্দর কনটেইনার টার্মিনাল নির্মাণ এবং বিদ্যমান বন্দরগুলোর উন্নয়নে মোট সাতটি প্রকল্পের পরিকল্পনা করা হয়েছিল এর মধ্যে একটি প্রকল্প বাদ দেয়া হয়েছে আইএফসির হিসাব অনুযায়ী, বাকিগুলো বাস্তবায়ন হলে ২০৩০ সাল নাগাদ দেশের বার্ষিক কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বেড়ে দাঁড়াবে ৯০ লাখ টিইইউএসের (কনটেইনার হ্যান্ডলিং পরিমাপের একক) কাছাকাছি একই সময়ে এসব টার্মিনাল বন্দরের কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের চাহিদা দাঁড়াবে কম-বেশি ৭০ লাখ টিইইউএসে অর্থাৎ সে সময় বন্দরগুলোর কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতার প্রায় এক-চতুর্থাংশই অলস বসে থাকতে যাচ্ছে চিত্রটি করোনা-পূর্ববর্তী সময়ের তথ্যের ভিত্তিতে প্রাক্কলন করা হয়েছে চলমান মহামারীর কারণে বন্দরগুলোয় কনটেইনার ট্রাফিক স্বাভাবিক প্রবৃদ্ধির ধারায় নেই বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা

সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্ব (পিপিপি), সরকারি অর্থায়ন বিদেশী বিনিয়োগের মাধ্যমে বর্তমানে কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়ানোর লক্ষ্যে ছয়টি প্রকল্প চলমান পরিকল্পনাধীন রয়েছে এর মধ্যে চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় কনটেইনার টার্মিনালের নির্মাণকাজ এরই মধ্যে শুরু হয়েছে টার্মিনাল নির্মাণের সিংহভাগ কাজও শেষ হয়েছে কার্যক্রম শুরু হলে টার্মিনাল দিয়ে বছরে প্রায় সাড়ে চার লাখ একক কনটেইনার টার্মিনাল দিয়ে হ্যান্ডলিং করা সম্ভব হবে

কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়ানোর জন্য মোংলা বন্দর সম্প্রসারণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার গত বছর প্রকল্পটি অনুমোদিত হয়েছে বাস্তবায়ন হবে ২০২৫ সালের মধ্যে, দুই ধাপে এর মাধ্যমে বার্ষিক কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়তে যাচ্ছে আরো সাত লাখ

একইভাবে বে-টার্মিনাল নির্মাণের মাধ্যমে ৩০ লাখ, মাতারবাড়ী বন্দরের মাধ্যমে ৩৯ লাখ, মিরসরাই সীতাকুণ্ড বন্দরের আরো প্রায় ১৮ লাখ টিইইউএস কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়বে পায়রা বন্দরের কার্যক্রম শুরু হলেও বিপুলসংখ্যক কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়বে সামগ্রিকভাবে ২০৩০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের বার্ষিক কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা এক কোটি টিইইউএসের কাছাকাছি চলে আসবে প্রাক্কলন করেছে আইএফসি

আইএফসি বলছে, চলমান পাইপলাইনে থাকা প্রকল্পগুলো যদি সঠিক সময়ে বাস্তবায়ন হয়ে যায়, তাহলে কনটেইনার হ্যান্ডলিং চাহিদায় উদ্বৃত্ত অবস্থা তৈরি হবে ফলে টার্মিনাল বন্দরগুলোর পরিপূর্ণ সুফল পাওয়া সম্ভব হবে না অবস্থায় বন্দর খাতে বেসরকারি খাতকে সংযুক্ত করার পাশাপাশি পাইপলাইনে থাকা প্রকল্পগুলো রিভিউ করার পরামর্শ দিয়েছে সংস্থাটি

তবে এসব প্রকল্প রিভিউ করার কোনো প্রয়োজনীয়তা নেই বলে মনে করছেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী . শামসুল আলম বণিক বার্তাকে তিনি বলেন, বাংলাদেশের লক্ষ্য ২০৪১ সালের মধ্যে উন্নত দেশ হওয়া আর একটি উন্নত দেশের জন্য দরকার উন্নত ভৌত অবকাঠামো আমাদের আমদানি-রফতানি কার্যক্রম উন্নত দেশগুলোর উপযোগী পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার স্বার্থেও দেশের বন্দরগুলোর অবকাঠামোর উন্নয়ন করা জরুরি সে লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার কাজ করে যাচ্ছে কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে আমাদের সক্ষমতা যত বাড়বে, বিদেশী বিনিয়োগকারীরা তত বেশি আকৃষ্ট হবে

অন্যদিকে বন্দর ব্যবহারকারীরাও আইএফসির হিসাবের সঙ্গে একমত নন বরং তাদের বক্তব্য প্রতিবেদনের ঠিক বিপরীত তারা বলছেন, ২০৩০ সাল নাগাদ কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা কোনোভাবেই অব্যবহৃত থাকবে না উল্টো তা চাহিদা অনুযায়ী হবে কিনা, সেটা নিয়েই সংশয় রয়েছে বিষয়টি সম্পর্কে চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহারকারী ফোরাম চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুবুল আলম বণিক বার্তাকে বলেন, দেশের অর্থনীতি যেভাবে এগোচ্ছে, তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতা বাড়তে পারবে কিনা, তা নিয়েই আমরা শঙ্কায় রয়েছি দেশের অর্থনীতি যত বড় হচ্ছে, তত বাড়ছে আমদানি-রফতানি কার্যক্রম পাশাপাশি সামনে আন্তর্জাতিক ট্রানজিটের মতো বিষয় আমাদের মোকাবেলা করতে হবে চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে বিশাল অর্থনৈতিক জোন গড়ে তোলা হচ্ছে এসবের প্রভাবে দেশে কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের চাহিদা সামনের এক দশকে কয়েক গুণ বাড়বে কিন্তু সে তুলনায় কনটেইনার হ্যান্ডলিংয়ের সক্ষমতা বাড়ানো হচ্ছে না যেসব বড় প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে, সেগুলো একেবারে প্রাথমিক অবস্থায় রয়েছে এরই মধ্যে একাধিক প্রকল্প বাস্তবায়ন থেকে পিছিয়েও এসেছে সরকার সামগ্রিকভাবে আমরা মনে করি, দেশের অর্থনীতি যেভাবে এগোচ্ছে তাতে ২০৩০ সাল নাগাদ কনটেইনার হ্যান্ডলিং সক্ষমতায় উদ্বৃত্ত নয়, ঘাটতির শঙ্কাই বেশি

একই কথা বলছেন চট্টগ্রাম বন্দরের পর্ষদ সদস্য মো. জাফর আলমও বণিক বার্তাকে তিনি বলেন, প্রতিবেদনটিতে যেসব তথ্য-উপাত্ত ব্যবহার করা হয়েছে সেগুলো অনেক পুরনো বর্তমান সময়ের সঙ্গে এসব তথ্য কোনোভাবেই যায় না পাশাপাশি এটির কিছু তথ্য বিভ্রান্তিও তৈরি করছে সার্বিকভাবে এসব তথ্য কোনোভাবেই বিবেচনায় নেয়ার মতো নয়

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন