রবিবার | জুলাই ২৫, ২০২১ | ১০ শ্রাবণ ১৪২৮

খবর

মহামারীমুক্ত হতে আল্লাহর অনুগ্রহ চেয়ে ঈদের মোনাজাত

নিজস্ব প্রতিবেদক

ত্যাগের মহিমায় সারাদেশে পালিত হচ্ছে মুসলমানদের অন্যতম ধর্মীয় উসব ঈদুল আজহা। গতবারের মতো এবারও বিশ্বজুড়ে চলমান করোনা মহামারীর মধ্যেই সীমিত পরিসরে ঈদ উদযাপন করছেন মুসলমানরা। নানা বিধিনিষেধের মধ্যেও পশু কোরবানীর মাধ্যমে আল্লাহর প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করছেন তারা।

নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গত তিন ঈদের মতো এবারও সরকারের নির্দেশনা অনুযায়ী শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে সারাদেশে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছেজাতীয় মসজিদ রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে সকাল ৭টায়। মহামারীর কারণে এবারও ঈদের প্রধান জামাত জাতীয় ঈদগাহে অনুষ্ঠিত হয়নি।

ঈদের নামাজ শেষে মুসুল্লিরা মোনাজাতে অংশ নেন। প্রতিবারের মতো এবারও মুসলিম উম্মাহর শান্তি কামনা করা হয়। পাশাপাশি মহামারী থেকে মুক্তির জন্য আল্লাহর দরবারে বিশেষ মোনাজাত করা হয়। এছাড়া মহামারীতে যারা মারা গেছেন তাদের জন্য দোয়া করা হয়।

মসজিদ থেকে বের হয়ে পশু কোরবানিতে অংশ নেন সাধারণ মানুষ। দেশের বিভিন্ন রাস্তা, বাসার সামনে ও সুবিধাজনক স্থানে পশু কোরবানি দেয়া হচ্ছে। রাজধানীতে সকালে হঠাত বৃষ্টি কিছুটা বিড়ম্বনার সৃষ্টি করলেও এর মধ্যেই চলছে কোরবানির আনুষঙ্গিক সব কাজ।

ঈদুল আজহা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসী ও সারাবিশ্বের মুসলমানদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আলাদা বাণীতে তারা মুসলিম উম্মাহর অব্যাহত শান্তি, সমৃদ্ধি ও মঙ্গল কামনা করেছেন।
সারাদেশে বিভাগ, জেলা, উপজেলা, সিটি করপোরেশন, পৌরসভা, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ এবং সরকারি সংস্থাসপ্রধানরা জাতীয় কর্মসূচীর আলোকে নিজ নিজ কর্মসূচি অনুযায়ী ঈদ উদযাপন করছেন। এছাড়াও ঈদ উপলক্ষে দেশের সকল হাসপাতাল, কারাগার, সরকারি শিশু সদন, বৃদ্ধাশ্র, মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে। বিদেশে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ও মিশনসমূহে যথাযথভাবে পবিত্র ঈদুল আযহা উদযাপন করবে। এ উপলক্ষে সারাদেশে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রক্ষার্থে বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

পশুর রক্ত বা বর্জ্য পদার্থের কারণে যেন পরিবেশ দুর্গন্ধময় না হয় সে বিষয়ে সব ধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনসহ দেশের সকল স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠান। 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন