শুক্রবার | জুন ১৮, ২০২১ | ৪ আষাঢ় ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

ব্রিটিশ অর্থনীতি

ঋণ সামলাতে না পারলে কভিডের প্রভাব দীর্ঘায়িত হবে

বণিক বার্তা ডেস্ক

কভিড-পরবর্তী অর্থনৈতিক কার্যক্রম পুনরায় শুরু করেছে যুক্তরাজ্য বিপুল পরিমাণ ঋণের বোঝা মাথায় নিয়ে চলছে দেশটির ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলো পুনরায় কার্যক্রম শুরু করতে ঋণ নিয়েছে দেশটির হোটেল, রেস্তোরাঁ, অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপনা কোম্পানি, খুচরা বিক্রয়কেন্দ্র পর্যটন সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো ঋণের বোঝা সহজ না করলে দেশটিতে কভিডের ধ্বংসাত্মক প্রভাব দীর্ঘায়িত হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা খবর বিবিসি

ব্রিটেনের সংসদীয় কমিটির সঙ্গে আলোচনাকালে বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা জানায়, মহামারীর সময়ে প্রতিষ্ঠানগুলোকে দেয়া সরকারি সহায়তা পর্যাপ্ত ছিল না

আলোচনায় অংশ নিয়ে ইউকে হসপিটালিটির প্রধান নির্বাহী কেট নিকোলস বলেন, যদি এখনই সতর্ক না হওয়া যায়, তবে অর্থনীতিতে কভিডের প্রভাব দীর্ঘায়িত হবে ব্রিটেনের হসপিটালিটি খাত বর্তমানে ভাড়া বাবদ ২৫০ কোটি পাউন্ড ঋণের জালে আটকা আছে সরকারের গৃহীত করোনাভাইরাস বিজনেস ইন্টারাপশন লোন স্কিম-এর আওতায় আরো ৬০০ কোটি পাউন্ড ঋণপ্রাপ্তির মাধ্যমে খাতটি লকাডাউনের প্রভাব কাটিয়ে উঠতে শুরু করেছিল

তিনি বলেন, সরকারি ঋণের বোঝা সহজ করতে যখন সরকার কর্তৃক গৃহীত পদক্ষেপগুলো সত্যিই সহজ ছিল তবে এক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো থেকে ধরনের সহযোগিতা পাওয়া যায়নি

কেট নিকোলস বলেন, আমরা ভাড়া বাবদ ২৫০ কোটি পাউন্ডের একটি বড় আকারের ঋণসহায়তা পেয়েছি তবে সম্প্রতি জুলাই ভাড়া স্থগিত রাখার মেয়াদ শেষ হয়ে আসার কারণে বিপাকে পড়তে হচ্ছে সুতরাং সহায়তার মেয়াদ আরো বৃদ্ধি করা উচিত যদি সমস্যার সমাধান না করা হয়, তবে প্রতি পাঁচ সদস্যের একজন অসচ্ছলতার জন্য তাদের প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়ার মতো অবস্থার মুখোমুখি হবেন

গত বছরের মার্চে ব্রিটেনের প্রতিষ্ঠানগুলোর জন্য ভাড়া স্থগিত করার মতো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল তবে চলতি বছরের জুন নাগাদ সেটির মেয়াদ শেষ হয়ে আসছে

ব্রিটিশ রিটেইল কনসোর্টিয়ামের প্রধান নির্বাহী হেলেন ডিকিনসন জানান, খুচরা বিক্রয় প্রতিষ্ঠানগুলোয়ও ভাড়াসংক্রান্ত সমস্যা রয়েছে ভাড়া পরিশোধের ওপর স্থগিতাদেশ আগের মতোই রাখা প্রয়োজন সামনের মাসগুলোয় বাড়িওয়ালা ভাড়াটেদের মধ্যে আরো আলোচনা করা প্রয়োজন

ডিকিনসন জানান, গত বছর তারা প্রায় পাঁচ হাজার দোকান হারিয়েছেন ফলে অবস্থায় ভাড়া স্থগিতের মতো সিদ্ধান্তের ওপর তাদের টিকে থাকতে হচ্ছে খুচরা বিক্রয় প্রতিষ্ঠানগুলোর অবস্থান এখনো মহামারী-পূর্ববর্তী সময়ের চেয়ে ৩০ শতাংশ কম

অ্যাসোসিয়েশন অব ব্রিটিশ ট্রাভেল এজেন্টসের প্রধান নির্বাহী মার্ক টানজের বলেন, ভ্রমণসংক্রান্ত কোম্পানিগুলো সরকারের পদক্ষেপের দিকে চেয়ে রয়েছে গ্রীষ্মের সময় সারা বছরের পর্যটকদের দুই-তৃতীয়াংশ ভ্রমণ করে অথচ এখন আমরা কোনো পর্যটকই পাচ্ছি না

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন