বৃহস্পতিবার | জুন ১৭, ২০২১ | ৩ আষাঢ় ১৪২৮

শেয়ারবাজার

আশিক রহমানকে নিয়োগ দিতে মরিয়া ডিএসই

নিজস্ব প্রতিবেদক

যোগ্যতা, পেশাগত অভিজ্ঞতা দক্ষতার ঘাটতি থাকায় বছরের ফেব্রুয়ারিতে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে এম আশিক রহমানকে নিয়োগের জন্য এক্সচেঞ্জটির পর্ষদের করা সুপারিশ নাকচ করে দেয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) এবার ডিএসইর প্রধান নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা (সিআরও) পদে তাকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করেছে এক্সচেঞ্জটির পর্ষদ। এবারো তার যোগ্যতার ঘাটতি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও তাকে নিয়োগের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে ডিএসই।

সিআরও পদে নিয়োগের জন্য বছরের মার্চে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ডিএসই। বিজ্ঞপ্তিতে যোগ্যতার বিষয়ে বলা হয়েছে, প্রার্থীকে পুঁজিবাজার পরিচালনা সম্পর্কে অবশ্যই গভীর জ্ঞান অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। পাশাপাশি ব্যবসা, অর্থনীতি বা আইনে ব্যাচেলর ডিগ্রিসহ ১০ বছরের ব্যবস্থাপনা পর্যায়ের অভিজ্ঞতা কিংবা সিএফএ, সিএ, সিএমএ, সিএস, সিপিএ ইত্যাদি পেশাজীবী সনদসহ ১০ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। এক্সচেঞ্জটির সিআরও পদে নিয়োগ পেতে দফায় ১৪ জন প্রার্থী আবেদন করেন। তাদের জীবনবৃত্তান্ত পর্যালোচনা করে ডিএসইর মানবসম্পদ বিভাগ প্রার্থীদের প্রাথমিক মূল্যায়ন তৈরি করে এক্সচেঞ্জটির নমিনেশন অ্যান্ড রিমুনারেশন কমিটির (এনআরসি) কাছে পাঠায়। প্রাথমিক মূল্যায়নের ক্ষেত্রে মানবসম্পদ বিভাগ নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে প্রকাশিত যোগ্যতার পাশাপাশি প্রার্থীদের ব্যবস্থাপনা অভিজ্ঞতা, পেশাগত পদবি, ব্যবসায় অনুষদের স্নাতক পেশাগত অভিজ্ঞতার বিষয়গুলো পর্যালোচনা করেছে। তাদের পর্যালোচনায় এম আশিক রহমানের সিআরও পদের জন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা থাকলেও পেশাগত পদবি হিসেবে সিএফএ, সিএ, সিএমএ, সিএস, সিপিএর ক্ষেত্রে ১০ বছরের অভিজ্ঞতার ক্ষেত্রে ঘাটতি রয়েছে। অন্যদিকে সিআরও পদের জন্য আবেদন করা ডিএসইর উপমহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ মাজহারুল হক এবং রূপালী ব্যাংকের সিএফও মো. শওকত জাহান খানের শিক্ষাগত পেশাগত দুই ধরনের যোগ্যতাই রয়েছে। অবশ্য এক্সচেঞ্জটির রেগুলেটরি অ্যাফেয়ার্স কমিটির (আরএসি) সুপারিশের ভিত্তিতে মোহাম্মদ মাজহারুল হকের পারফরম্যান্স পর্যালোচনাধীন থাকায় তাকে সাক্ষাত্কারের জন্য বিবেচনা করা হয়নি।

প্রার্থীদের সাক্ষাত্কার নেয়ার পর সিআরও পদের জন্য পর্ষদের কাছে সুপারিশের জন্য এনআরসির চেয়ারম্যান কমিটির সব সদস্য আরএসির চেয়ারম্যানের মতামত নেন। সাক্ষাত্কারের পারফরম্যান্স, অভিজ্ঞতা এবং শিক্ষাগত পেশাগত ট্র্যাক রেকর্ডের ভিত্তিতে সবাই তিন প্রার্থীর সমন্বয়ে একটি প্যানেল তৈরির মত দেন। প্যানেলের মধ্যে থাকার প্রার্থীরা হলেন এম আশিক রহমান, মো. শওকত জাহান খান মো আক্তারুজ্জামান। তবে ডিএসইর স্বতন্ত্র পরিচালক এনআরসির সদস্য সালমা নাসরীন প্যানেল গঠনের বিষয়ে দ্বিমত পোষণ করেন। তিনি এম আশিক রহমানকেই সিআরও পদের জন্য একমাত্র যোগ্য প্রার্থী হিসেবে পর্ষদের কাছে প্রস্তাব করার পক্ষে মত দেন। তাছাড়া একাধিক প্রার্থীর নাম প্রস্তাব করার কোনো বাধ্যবাধকতা নেই বলেও জানান তিনি। তিনি তার মতামত সভার কার্যবিবরণীতে নথিভুক্ত করারও অনুরোধ করেন। অবশ্য শেষ পর্যন্ত এনআরসি প্যানেলভুক্ত তিনজনকে ডিএসইর পর্ষদের কাছে উপস্থাপনের সিদ্ধান্ত নেয়।

এনআরসির যে সভায় সিআরও পদের জন্য প্রার্থী বাছাই করা হয়েছে, সেই একই সভায় বিবিধ এজেন্ডা হিসেবে সিআরও পদের জন্য আবেদন করা প্রার্থীদের প্রাথমিক মূল্যায়নের ক্ষেত্রে প্রকৃত অবস্থা প্রতিফলিত হয়নি বলে মত পোষণ করা হয়। এক্ষেত্রে এক্সচেঞ্জটির মানবসম্পদ বিভাগ কর্তৃক জীবনবৃত্তান্তভিত্তিক প্রাথমিক মূল্যায়ন প্রতিবেদনের মাধ্যমে নির্ধারিত শর্তের বিপরীতে একজন প্রার্থীর প্রকৃত অবস্থা প্রতিফলিত হয় না বলে মত দেন তারা। এজন্য এনআরসির পক্ষ থেকে এক্সচেঞ্জটির ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালককে মানবসম্পদ বিভাগের প্রধানের কাছ থেকে বিষয়ে ব্যাখ্যা তলবের পরামর্শ দেয়া হয়। বিষয়ে এরআরসির পরবর্তী সভায় অবহিত করার জন্যও বলা হয়েছে।

তাছাড়া ডিএসইর এনআরসি কমিটির প্রধান অধ্যাপক মো. মাসুদুর রহমানসহ কমিটির অন্য সদস্যরা সভায় মত পোষণ করেন যে ডিএসই ব্যবস্থাপনা পরিচালক, সিআরও অন্যান্য পদে যোগ্য প্রার্থী পাচ্ছে না। ভবিষ্যৎ প্রস্তুতির জন্য ডিএসইকে বিষয়টি নিয়ে চিন্তা করা উচিত বলে মত দেন তারা।

এনআরসির সুপারিশের ভিত্তিতে মে অনুষ্ঠিত ডিএসই পর্ষদ সভায় এম আশিক রহমানকে এক্সচেঞ্জটির সিআরও হিসেবে নিয়োগের জন্য নির্বাচিত করা হয়। নিয়োগের বিষয়টি অনুমোদনের জন্য মে বিএসইসির কাছে চিঠি পাঠান ডিএসইর ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রধান পরিচালক কর্মকর্তা (সিওও) এম সাইফুর রহমান মজুমদার।

এম আশিক রহমানকে সিআরও হিসেবে নির্বাচিত করার বিষয়ে জানতে চেয়ে ডিএসইর চেয়ারম্যান মো. ইউনূসুর রহমানকে একাধিকবার কল করা হলেও তিনি রিসিভ করেননি। বিষয়ে ডিএসইর ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রধান পরিচালক কর্মকর্তা (সিওও) এম সাইফুর রহমান মজুমদার বণিক বার্তাকে বলেন, আমরা যে ধরনের যোগ্যতা, দক্ষতা অভিজ্ঞতাসম্পন্ন প্রার্থী চাইছি সে ধরনের আবেদন অনেক কম পড়ছে। কারণে যেসব আবেদন এসেছে তাদের মধ্য থেকেই একজনকে বেছে নিতে হয়েছে। ডিএসইর বোর্ড অ্যান্ড অ্যাডমিনিস্ট্রেশন রেগুলেশনসের নির্ধারিত মানদণ্ডের সঙ্গে এম আশিক রহমানের পেশাগত যোগ্যতার কিছুটা ঘাটতি রয়েছে। তবে অন্যান্য কিছু ক্ষেত্রে দেশের বাইরের ডিগ্রি রয়েছে। সিআরও হিসেবে নির্বাচিত করার ক্ষেত্রে বিষয়টি এনআরসি পর্ষদ বিবেচনা করেছে বলে জানান তিনি।

ডিএসই কর্তৃক নির্বাচিত করা হলেও নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসির অনুমোদন সাপেক্ষে এটি কার্যকর হবে। আইন বিধিবিধান পরিপালনসহ পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলোর সুশাসন ইস্যুতে এক্সচেঞ্জ বিএসইসির মধ্যে যোগসূত্র হিসেবে কাজ করে থাকেন সিআরও। বিষয়ে জানতে চাইলে বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক . শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ বণিক বার্তাকে বলেন, গত বৃহস্পতিবার সিআরএও নিয়োগসংক্রান্ত ডিএসইর একটি চিঠি এসেছে। এটি এখনো আমার হাতে এসে পৌঁছেনি। তবে নিয়োগ চূড়ান্ত করার আগে কমিশন প্রয়োজনীয় যোগ্যতা, দক্ষতা অভিজ্ঞতার সব শর্ত পূরণ হয়েছে কিনা এবং তিনি পদে দায়িত্ব পালনের উপযুক্ত কিনা সেটি যাচাই-বাছাই করেই সিদ্ধান্ত নেবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন