শুক্রবার | মে ০৭, ২০২১ | ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

দেশের খবর

ঝালকাঠী পৌরসভায় ৫ বছরে ৫০ কোটি টাকার উন্নয়নকাজ

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, ঝালকাঠি

একসময় ঝালকাঠি পৌরসভার প্রায় প্রতিটি সড়ক ছিল খানাখন্দে ভরা। একটু বৃষ্টি হলেই সড়কে পানি জমে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়ত। ধুলো আর খানাখন্দের কারণে পৌরবাসীর ভোগান্তীর শেষ ছিল না। এমন অবস্থায় ২০১৬ সালে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়ে ঝালকাঠি পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হন পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি  লিয়াকত আলী তালুকদার। মেয়র পদের দায়িত্বভার গ্রহণ করে কাউন্সিলদের মতামতের ভিত্তিতে উন্নয়নের পরিকল্পনা করেন তিনি। তার সততা দক্ষতার কারণে ঝালকাঠির ভাঙা সড়কগুলোর ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে।

মূল শহরের পাশাপাশি বর্ধিত এলাকায়ও টেকসই সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে। শুধু সড়কের উন্নয়ন নয় ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা লক্ষ্যে এরই মধ্যে বেশকিছু পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। পৌর এলাকার মধ্য দিয়ে প্রবাহমান প্রায় ১০টি খালই পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার কাজ শুরু করা হয়েছে। বাধাহীন পানিপ্রবাহে প্রতিটি খাল খনন করা হবে। যেখানে-সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলে কেউ পরিবেশ দূষিত না করতে পারে, সেজন্য ঝালকাঠি শহরসংলগ্ন বাসন্ডা ইউনিয়নের কুনহারী গ্রামে নিদিষ্ট স্থানে ময়লা ফেলার জন্য ডাম্পিং স্টেশন নির্মাণের জমি এরই মধ্যে কেনা হয়েছে। শিগগিরই সেখানে ময়লা ফেলার কাজ শুরু করা হবে বলে পৌরসভা সূত্রে জানা গেছে।

শুধু উন্নয়নমূলক কাজই নয় বাড়ির প্লান পাস করা, ট্রেড লাইসেন্স করা, জন্মসনদ মৃত্যু সনদ পাওয়া থেকে শুরু করে অন্যান্য নাগরিক সুবিধা পেতে কোনো ভোগান্তি পোহাতে হয় না। দিতে হয় না বাড়তি কোনো অর্থ। পাঁচ বছরে মেয়র লিয়াকত ৫০ কোটি টাকারও বেশি উন্নয়নমূলক কাজ করেছেন পৌরসভায়। ১৮৭৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার পর থেকে এত টাকার কাজ ঝালকাঠি পৌরসভায় এর আগে কোনো মেয়রের আমলে হয়নি। লিয়াকত আলী তালুকদার পাঁচ বছর পৌর মেয়রের দায়িত্বে রয়েছেন। সময় প্রতিদিন সকাল ৯টায় পৌরসভায় গিয়ে নাগরিক সেবা প্রদান শুরু করে দুপুর পর্যন্ত একটানা সেবা প্রদান করেন। এর পরে মেয়রের বাসার নিচে নিজ অফিসে বিকাল থেকে রাত পর্যন্ত নাগরিক সেবা প্রদান করে পৌরবাসীর সুনাম কুড়িয়েছেন। 

ঝালকাঠির পৌর মেয়র পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি লিয়াকত আলী তালুকদার বলেন, আমার রাজনৈতিক অভিভাবক কেন্দ্রীয় ১৪ দলের সমন্বয়ক মুখপাত্র, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য আমির হোসেন আমু এমপির নির্দেশে সততার সঙ্গে পৌরবাসীর উন্নয়নে কাজ করেছি। এবারো দল থেকে আমাকে মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। এজন্য বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমির হোসেন আমু ভাইয়ের  প্রতি আমি কৃতজ্ঞ। আমি আবারো নির্বাচিত হলে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রেখে ঝালকাঠিকে একটি মডেল পৌরসভায় রূপান্তর করার লক্ষ্যে কাজ করব।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন