শুক্রবার | মে ০৭, ২০২১ | ২৩ বৈশাখ ১৪২৮

খবর

পঞ্চগড়-ঢাকা সবজি ট্রেন সার্ভিস চালু

ঢাকা পৌঁছতে কেজিপ্রতি খরচ পড়বে দেড় টাকা

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, পঞ্চগড়

করোনাকালীন সব ধরনের পণ্যবাহী ট্রেন চলাচলের পাশাপাশি কৃষিজাত পণ্য পার্সেল পরিবহনের সুবিধার্থে বাংলাদেশ রেলওয়ে পঞ্চগড়-ঢাকা রুটে সবজি ট্রেন সার্ভিস চালু করেছে। গতকাল দুপুরে পঞ্চগড় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম স্টেশনে জেলা প্রশাসক . সাবিনা ইয়াসমিন আনুষ্ঠানিকভাবে সবজি ট্রেনে সবজি তুলে দেন। সময় পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইউসুফ আলী, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আনোয়ার সাদাত সম্রাট, রেলওয়ের লালমনিরহাট ডিভিশনের ব্যবস্থাপক শাহ সুফী নূর মোহাম্মদ, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আমিরুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফ হোসেন সবজি ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

পঞ্চগড় উৎপাদিত শসা, টমেটো, বেগুন, মরিচ, লাউ, শিম, মিষ্টিকুমড়াসহ বিভিন্ন শাকসবজি ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে রফতানি হয়। প্রথম দিনই পঞ্চগড়ের চারজন ব্যবসায়ী শসা, টমেটো, বেগুন শুকনো মরিচসহ তিন টন সবজি পাঠান।

বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলস্টেশনের মাস্টার মাসুদ পারভেজ জানান, কৃষিপণ্য পরিবহনের সুবিধার্থে একটি পার্সেল ট্রেন সপ্তাহে শনি, সোম বুধবার পঞ্চগড় বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম-ঢাকা রুটে চলবে। পঞ্চগড় থেকে ছাড়বে বেলা ১টায়, ঢাকা পৌঁছবে ভোর ৩টায়। সপ্তাহে রবি, মঙ্গল বৃহস্পতিবার ঢাকা-বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রুটে একটি পার্সেল ট্রেন চলবে। ঢাকা ছাড়বে সকাল ৬টায়, বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম স্টেশনে পৌঁছাবে রাত ৮টা ৩০ মিনিটে।

বিশেষ পার্সেল ট্রেনে কৃষিজাত পণ্য, যেমন শাকসবজি, দেশীয় ফলমূলসহ অন্যান্য কৃষি পণ্যাদি পরিবহনের ক্ষেত্রে মূল ভাড়ার ওপর ২৫ শতাংশ রেয়াতি অন্য সব ধরনের চার্জ রহিত থাকবে। প্রতি কেজি সবজি পঞ্চগড় থেকে ঢাকা পৌঁছাতে খরচ হবে টাকা ৫৬ পয়সা।

পঞ্চগড় জেলার সদর উপজেলার পানিমাছ পুকুরী এলাকার কাঁচামাল ব্যবসায়ী রশিদুল ইসলাম বদরুজ্জামান বাবু জানান, প্রথম দফায় পণ্য রেলে পাঠানো হলো, কেমন খরচ হয় হিসেব-নিকেষ করতে হবে। লাভ হলে রেলে পণ্য পাঠাব, না হলে বিকল্প চিন্তা করতে হবে।

পঞ্চগড় রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার মাসুদ পারভেজ জানান, পার্সেল ট্রেনে যেকোনো স্টেশনে পণ্য লোড এবং আনলোড (ওঠানামা) করা যাবে। মালামালের সঙ্গে ব্যবসায়ীরাও যেতে পারবেন।

রেলওয়ের লালমনিরহাট ডিভিশনের ব্যবস্থাপক শাহ সুফী নূর মোহাম্মদ জানান, করোনার মধ্যে জীবন এবং জীবিকা চালু রাখতে এবং লকডাউনে কৃষক যাতে কৃষিপণ্য সহজে পরিবহন করতে পারেন, সেইজন্য বাংলাদেশ রেলওয়ে বিশেষ পার্সেল ট্রেন চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। রেলওয়ে অতীতে বিভিন্ন সময় ম্যাংগো স্পেশাল ট্রেন, ক্যাটল ট্রেনসহ পার্সেল ট্রেন পরিচালনা করেছে। রেলওয়ে বর্তমানে তেল, সারসহ অন্যান্য মাল পরিবহন করছে। প্রতিটিতে ৪০ টন সবজি ধারণক্ষমতাসম্পন্ন চারটি ওয়াগন সংযুক্ত থাকছে।

পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক . সাবিনা ইয়াসমিন উপস্থিত সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, আমাদের রেলমন্ত্রী অ্যাডভোকেট নূরুল ইসলাম সুজনের একান্ত চেষ্টায় আজ পঞ্চগড় থেকে চালু হয়েছে বিশেষ পার্সেল ট্রেন সার্ভিস। গত বছরের মতো এবারো আমরা ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি কৃষি সবজি পণ্য পরিবহনে। কারণ স্থলপথে পণ্য পরিবহনের চেয়ে রেলপথে অনেক সাশ্রয়ী। এছাড়া লকডাউনে পণ্য পরিবহন নিয়ে পঞ্চগড় জেলার সবজি ব্যবসায়ীদের দুশ্চিন্তা ছিল। পার্সেল ট্রেন সার্ভিস চালু হওয়ার ফলে তাদের দুশ্চিন্তা অনেকটা লাঘব হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন