রবিবার | মে ০৯, ২০২১ | ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

শিল্প বাণিজ্য

ভোমরা স্থলবন্দর

৯ মাসে রাজস্ব ঘাটতি ৩৪৫ কোটি ৪ লাখ টাকা

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, সাতক্ষীরা

ভোমরা স্থলবন্দরে চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে রাজস্ব আয় হয়েছে ৬৪০ কোটি ৮৩ লাখ টাকা। ফলে চলতি অর্থবছরের মোট রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ঘাটতি পড়েছে ৩৪৫ কোটি লাখ টাকা। তবে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসের তুলনায় চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরে ৬১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বেশি আয় হয়েছে।

রাজস্ব ঘাটতি বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে বন্দরসংশ্লিষ্টরা বলছেন, করোনার প্রভাবে বন্দরের ব্যবসা-বাণিজ্য ভালো হওয়ায় রাজস্ব ঘাটতি বেড়েই চলেছে।

ভোমরা শুল্কস্টেশনের রাজস্ব বিভাগ থেকে জানা গেছে, ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম নয় মাস অর্থাৎ জুলাই-মার্চ পর্যন্ত ভোমরা বন্দরে রাজস্ব আদায় লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয় ৯৮৬ কোটি লাখ টাকা। এর মধ্যে জুলাইয়ে ৭৩ কোটি ৫২ লাখ, আগস্টে ৭৭ কোটি ৫৯ লাখ, সেপ্টেম্বরে ৬৭ কোটি ৬৮ লাখ, অক্টোবরে ৮৮ কোটি লাখ, নভেম্বরে ১১৪ কোটি লাখ, ডিসেম্বরে ১৩১ কোটি লাখ, জানুয়ারিতে ১৩২ কোটি ৫৫ লাখ, ফেব্রুয়ারিতে ১৫৫ কোটি ২৭ লাখ মার্চে ১৪৬ কোটি ১৯ লাখ টাকা লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়।

রাজস্ব কর্মকর্তা আকবর আলী জানান, লক্ষ্যমাত্রা সামনে রেখে গেল নয় মাসে রাজস্ব আদায় হয়েছে ৬৪০ কোটি লাখ টাকা। এর মধ্যে জুলাইয়ে ৫৪ কোটি ৭৩ লাখ, আগস্টে ৪৬ কোটি ৪১ লাখ, সেপ্টেম্বরে ৫৩ কোটি ৯৩ লাখ, অক্টোবরে ৭২ কোটি ১৯ লাখ, নভেম্বরে ৭৩ কোটি ৪৬ লাখ, ডিসেম্বরে ৯৩ কোটি ২৭ লাখ, জানুয়ারিতে ৭৮ কোটি ১৬ লাখ, ফেব্রুয়ারিতে ৮৮ কোটি ১২ লাখ মার্চে ৮০ কোটি ৫৩ লাখ টাকা, যা লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় ৩৪৫ কোটি লাখ টাকা ঘাটতি।

শুল্কস্টেশনের রাজস্ব বিভাগ সূত্রে আরো জানা যায়, গেল ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে ভোমরা বন্দরে রাজস্ব অর্জিত হয়েছিল ৫৭৯ কোটি ৩৩ লাখ টাকা। হিসাব অনুযায়ী, গত অর্থবছরের তুলনায় চলতি অর্থবছরের প্রথম নয় মাসে ৬১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বেশি আদায় হয়েছে।

ভোমরা স্থলবন্দরে সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট ব্যবসায়ী অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান নাসিম জানান, করোনার প্রভাবে বন্দরে ব্যবসা-বাণিজ্য ভালো যাচ্ছে না। বাংলাদেশের চেয়ে ভারতে করোনা আরো ভয়াবহ অবস্থা। যে কারণে ভারতীয় ব্যবসায়ীরা আমদানি-রফতানিতে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। এতে করে রাজস্ব আদায়ও কমে যাচ্ছে।

ভোমরা শুল্কস্টেশনের দায়িত্বরত কাস্টমসের বিভাগীয় সহকারী কমিশনার আমির মামুন বণিক বার্তাকে জানান, চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের গত নয় মাসে ৩৪৫ কোটি লাখ টাকার রাজস্ব ঘাটতি পড়লেও গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৬১ কোটি ৪৭ লাখ টাকা বেশি আদায় হয়েছে।

উল্লেখ্য, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) কর্তৃক ২০২০-২১ অর্থবছরের জন্য ভোমরা বন্দরে রাজস্ব আদায় লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে হাজার কোটি লাখ টাকা।

এরমধ্যে জুলাইয়ে ৭৩ কোটি ৫২ লাখ, আগস্টে ৭৭ কোটি ৫৯ লাখ, সেপ্টেম্বরে ৬৭ কোটি ৬৮ লাখ, অক্টোবরে ৮৮ কোটি লাখ, নভেম্বরে ১১৪ কোটি লাখ, ডিসেম্বরে ১৩১ কোটি লাখ, জানুয়ারিতে ১৩২ কোটি ৫৫ লাখ, ফেব্রুয়ারিতে ১৫৫ কোটি ২৭ লাখ, মার্চে ১৪৬ কোটি ১৯ লাখ জুনে ১৬ কোটি লাখ টাকা। তবে গেল অর্থবছরের এপ্রিল মে মাসে বন্দর বন্ধ থাকায় কোনো রাজস্ব আদায় না হওয়ায় চলতি অর্থবছরের এপ্রিল মে মাসে কোনো রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য নির্ধারণ করা হয়নি। তবে যে ১০ মাসের জন্য রাজস্ব আদায় লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে, তা গেল অর্থবছরের তুলনায় ১৬৩ কোটি টাকা কম বলে জানান সংশ্লিষ্টরা। গেল ২০১৯-২০ অর্থবছরে ভোমরা বন্দরে রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল হাজার ১৬৭ কোটি টাকা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন