শনিবার | মে ০৮, ২০২১ | ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

শেষ পাতা

মামুনুল হক গ্রেফতার, ডিবির কাছে হস্তান্তর

নিজস্ব প্রতিবেদক

হেফাজতে ইসলামের নেতা কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব ঢাকা মহানগরীর সেক্রেটারি মামুনুল হককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

জানা গেছে, গতকাল দুপুর ১২টার দিকে মোহাম্মদপুরের জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়া মাদ্রাসা থেকে গ্রেফতার করা হয় তাকে। এরপর মামুনুলকে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনারের (ডিসি) কার্যালয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। ডিএমপির অতিরিক্ত উপকমিশনার (মিডিয়া) ইফতেখায়রুল ইসলাম বণিক বার্তাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি জানান, তাণ্ডবের অভিযোগে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

গতকাল মামুনুল হককে গ্রেফতারের আগে দুপুর ১২টা থেকে মোহাম্মদপুর এলাকায় গোয়েন্দা বিভাগ দাঙ্গা পুলিশের সদস্যরা অবস্থান নেন। গ্রেফতারের পর মামুনুল হককে প্রথমে শ্যামলীতে পুলিশের তেজগাঁও বিভাগের উপকমিশনারের কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেয়া হয়।

সূত্র অনুযায়ী, ২০২০ সালে মোহাম্মদপুরে একটি ভাংচুরের মামলায় মামুনুলকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। মতিঝিল, পল্টন নারায়ণগঞ্জেও তার বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে। মামুনুল হকের বিরুদ্ধে সর্বশেষ মামলা হয়েছে চলতি বছরের এপ্রিল। গত ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররম মসজিদে জুমার নামাজের পর পুলিশ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী  লীগ তার অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের সঙ্গে ধর্মভিত্তিক দলের নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনায় মামলা করেছেন ঢাকা মহানগর যুবলীগের (দক্ষিণ) উপদপ্তর সম্পাদক খন্দকার আরিফ উজ জামান। মামুনুল হক মামলার নম্বর আসামি। মামলার এজাহার অনুযায়ী মামুনুল হকের নির্দেশে পূর্বপরিকল্পিতভাবে ঘৃণ্য ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের জন্য দেশী-বিদেশী আগ্নেয়াস্ত্রসহ দা, ছোরা, কুড়াল, কিরিচ, হাতুড়ি, তলোয়ার, বাঁশ, গজারি লাঠি, শাবল রিভলভার, পাইপগানসহ অন্যান্য আগ্নেয়াস্ত্রে সজ্জিত হয়ে সাধারণ মুসল্লিদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ২০১৩ সালের করা ১৫টি মামলা রয়েছে। ওই বছর মে মতিঝিলের শাপলা চত্বরে হেফাজতের তাণ্ডবের পর মামলাগুলো করা হয়, যেগুলোর বাদী পুলিশ। আজ মামুনুলকে আদালতে তোলা হতে পারে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন