শনিবার | মে ০৮, ২০২১ | ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

শেষ পাতা

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষার ফি বৃদ্ধি

নিজস্ব প্রতিবেদক

গুচ্ছ পদ্ধতির আওতায় থাকা দেশের সাধারণ, বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার চূড়ান্ত আবেদন ফি ১০০ টাকা বাড়ানো হয়েছে। এর আগে ৫০০ টাকা নেয়ার কথা থাকলেও ভর্তি কমিটির সভায় নতুন ফি ৬০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এছাড়া বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদনের সময়সূচি ঘোষণা করেছে।

এবারই প্রথমবারের মতো দেশের ২০ বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া হবে। এজন্য আবেদন গ্রহণ প্রক্রিয়াকে দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রাথমিক আবেদন শুরু হয়েছে এপ্রিল, চলবে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত। প্রাথমিক আবেদনে শিক্ষার্থীদের কোনো ফি দিতে হচ্ছে না। প্রথম ধাপে আবেদনকারীদের মধ্য থেকে মেধার ভিত্তিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য শিক্ষার্থীদের মনোনয়ন দেয়া হবে। ২৩ এপ্রিল মনোনয়নের ফলাফল ভর্তির ওয়েবসাইটে জানিয়ে দেয়া হবে। এরপর মনোনীতদের ২৪ এপ্রিল থেকে ২০ মের মধ্যে চূড়ান্ত আবেদন করতে হবে। সে সময়ই দিতে হবে নির্ধারিত ফি। শিক্ষার্থীরা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আবেদন ফি জমা দিতে পারবেন।

এদিকে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) স্নাতক প্রথম বর্ষে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদনের সময় শুরু হবে ১৫ এপ্রিল। অনলাইনে ওইদিন সকাল ১০টা থেকে ২৪ এপ্রিল বেলা ৩টা পর্যন্ত আবেদন করা যাবে। গতকাল ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক ভর্তি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে বুয়েট কর্তৃপক্ষ। 

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এবার কভিড-১৯ মহামারীর কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দুই ধাপে হবে পরীক্ষা। প্রথমে হবে প্রাক-নির্বাচনী পরীক্ষা। এতে উত্তীর্ণরা মূল পরীক্ষায় অংশ নেয়ার সুযোগ পাবেন। গ্রুপ (প্রকৌশল বিভাগসমূহ এবং নগর অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ) আবেদন, প্রাক-নির্বাচনী মূল ভর্তি বাবদ হাজার এবং গ্রুপে (প্রকৌশল বিভাগসমূহ, নগর অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগ এবং স্থাপত্য বিভাগ) হাজার ২০০ টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে ফি দিয়ে প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে।

আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হলে আগামী ৩১ মে জুন মোট চারটি শিফটে ১০০ নম্বরের এমসিকিউ পরীক্ষা হবে। পরীক্ষার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে জুন মূল ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য যোগ্য আবেদনকারীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হবে। ১০ জুন হবে মূল ভর্তি পরীক্ষা। এরপর আগামী জুলাই নির্বাচিত অপেক্ষমাণ প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করবে বুয়েট কর্তৃপক্ষ।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন