শনিবার | মে ০৮, ২০২১ | ২৫ বৈশাখ ১৪২৮

খবর

তথ্য-প্রযুক্তি খাত : জরুরি পরিষেবায় অন্তর্ভুক্তির দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে কঠোর লকডাউনে যাচ্ছে পুরো দেশ। জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, বুধবার শুরু হতে যাওয়া এই লকডাউনে জরুরি পরিষেবা ছাড়া বন্ধ থাকবে সবকিছু। যদিও লকডাউনের পুরো সময়জুড়ে ব্যবসায়িক কার্যক্রম চালু রাখতে চান সফটওয়্যার সফটওয়্যার পরিষেবা (আইটিইএস) এবং আইটি আউটসোর্সিং খাতের ব্যবসায়ীরা। এজন্য এসব ব্যবসাকে জরুরি সেবা খাত হিসেবে অন্তর্ভুক্তির দাবি জানিয়েছেন তারা।

দেশের সফটওয়্যার খাতের ব্যবসায়ীরা বলছেন, এর আগে জারি করা প্রজ্ঞাপনে এপ্রিল থেকে অফিস-আদালত, গণপরিবহন, যানবাহন জনবলের চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। প্রজ্ঞাপনে সফটওয়্যার সফটওয়্যার পরিষেবা (আইটিইএস) এবং আইটি আউটসোর্সিং খাতকে জরুরি পরিষেবা হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। নতুন করে সরকার যে কঠোর লকডাউন আরোপ করতে যাচ্ছে, তাতে খাতটি জরুরি পরিষেবাভুক্ত করা না হলে সফটওয়্যার সফটওয়্যার পরিষেবা (আইটিইএস) এবং আইটি আউটসোর্সিং খাতের কোম্পানিগুলো খোলা রাখা সম্ভব হবে না। ফলে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি পর্যায়ে অনলাইনে প্রদত্ত নাগরিক সেবাগুলো মারাত্মকভাবে ব্যাহত হবে এবং সাধারণ মানুষ চরম ভোগান্তিতে পড়বে।

ব্যবসায়ীরা আরো বলছেন, যেসব প্রতিষ্ঠান সফটওয়্যার আইটি পরিষেবা রফতানি তথা আউটসোর্সিং কাজে নিয়োজিত, তাদের যেহেতু দেশের বাইরে বিভিন্ন দেশে নিরবচ্ছিন্নভাবে সেবা প্রদান করতে হয়, তাদের সেবা প্রদান কার্যক্রম বিঘ্নিত হবে। এতে একদিকে যেমন রফতানি আয় আশঙ্কাজনকভাবে কমে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে, অন্যদিকে বিশ্বে বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হবে। ফলে সফটওয়্যার আইটি পরিষেবা রফতানি তথা আউটসোর্সিং কাজে নিয়োজিত ব্যক্তি প্রতিষ্ঠানের জন্য লকডাউনের বাধ্যবাধকতা সামগ্রিকভাবে দেশের অর্থনীতিতে বিরূপ নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

এমন পরিপ্রেক্ষিতে সফটওয়্যার আইটি পরিষেবা রফতানি তথা আউটসোর্সিং তথা রফতানিকাজে নিয়োজিত বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেসের (বেসিস) এক হাজারের বেশি কোম্পানির ব্যবসায়িক কার্যক্রম সচল রাখার স্বার্থে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে যে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে, তাতে সফটওয়্যার, আইটি পরিষেবা আইটি আউটসোর্সিং শব্দগুলো অন্তর্ভুক্ত করার অনুরোধ জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

প্রসঙ্গে জানতে চাইলে দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের বাণিজ্য সংগঠন বেসিসের সভাপতি সৈয়দ আলমাস কবির বণিক বার্তাকে বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যে সব জরুরি সেবার প্রতিষ্ঠানগুলোর মতোই দেশের আইটি সফটওয়্যার খাতের প্রতিষ্ঠানগুলো কাজ করে। এসব প্রতিষ্ঠান যেমন দেশের বিপুল সংখ্যক ভোক্তাশ্রেণীর নৈমিত্তিক চাহিদাগুলো পূরণে কাজ করে আসছে, তেমনি জরুরি রফতানি কার্যক্রমেও যুক্ত। সার্বিকভাবে এসব বিষয় আমলে নিয়ে সফটওয়্যার, আইটি পরিষেবা আইটি আউটসোর্সিং খাতটিকে জরুরি পরিষেবা হিসেবে লকডাউনের সময় কাজ করার সুযোগ দেয়ার জন্য সরকারের কাছে অনুরোধ করছি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন