বুধবার | এপ্রিল ২১, ২০২১ | ৮ বৈশাখ ১৪২৮

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি বিলিয়নেয়ার বেইজিংয়ে

বণিক বার্তা ডেস্ক

বিশ্বের অন্য যেকোনো শহরের তুলনায় বেইজিংয়ে সবচেয়ে বেশি বিলিয়নেয়ারের বসবাস। গত বছর চীনের রাজধানীতে ৩৩ জন বিলিয়নেয়ার বেড়েছে। বর্তমানে শহরটিতে ১০০ জন বিলিয়নেয়ার বাস করেন। ৯৯ জন বিলিয়নেয়ার নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে নেমে গেছে নিউইয়র্ক সিটি। এর আগে টানা সাত বছর ধরে বিলিয়নেয়ারদের বসবাসে শীর্ষে ছিল যুক্তরাষ্ট্রের সর্বাধিক জনবহুল শহর। দ্রুত কভিড-১৯ মহামারী নিয়ন্ত্রণ এবং প্রযুক্তি সংস্থাগুলো শেয়ারবাজারের উত্থান বেইজিংয়ের শীর্ষস্থান অর্জনে সহায়তা করেছে। ফোর্বস ম্যাগাজিনের সর্বশেষ বার্ষিক ধনীর তালিকায় তথ্য উঠে এসেছে।

বিগ অ্যাপলে তুলনায় বেইজিংয়ে বিলিয়নেয়ারদের সংখ্যা বেশি হলেও সম্মিলিত নিট সম্পদে এখনো এগিয়ে আছে নিউইয়র্ক সিটি। শহরটির বিলিয়নেয়ারদের সম্মিলিত নিট সম্পদ বেইজিংয়ের তুলনায় হাজার কোটি ডলার বেশি। বেইজিংয়ের সবচেয়ে ধনী বাসিন্দা হলেন ভিডিও শেয়ারিং অ্যাপ টিকটকের প্রতিষ্ঠাতা এবং এর মূল সংস্থা বাইটড্যান্সের প্রধান নির্বাহী। গত বছর তার নিট সম্পদ দ্বিগুণ হয়ে হাজার ৫৬০ কোটি ডলারে উন্নীত হয়েছে। অন্যদিকে নিউইয়র্ক সিটির সবচেয়ে ধনী বাসিন্দা সাবেক মেয়র মাইকেল ব্লুমবার্গের সম্পদের পরিমাণ হাজার ৯০০ কোটি ডলার।

কভিড-১৯ মহামারীতে ঘরবন্দি অবস্থায় মানুষ অনেক বেশি প্রযুক্তিনির্ভর হয়ে পড়ে এবং অনলাইন কেনাকাটা ব্যাপকভাবে বেড়ে যায়। ফলে যুক্তরাষ্ট্রসহ চীনের প্রযুক্তি জায়ান্টদের সম্পদও তর তর করে বেড়েছে। ধাক্কায় প্রযুক্তি সংস্থাগুলোর প্রতিষ্ঠাতা শেয়ারহোল্ডারদের সম্পদ কয়েক গুণ বেড়ে যায় এবং নতুন করে অনেকে বিলিয়নেয়ারের তালিকায় জায়গা করে নেয়।

ফোর্বসের তালিকা অনুযায়ী, হংকং, ম্যাকাওসহ চীনে নতুন বিলিয়নেয়ার বেড়েছে ২১০ জন। বৃদ্ধি বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় বেশি। -সিগারেট থেকে সম্পদ অর্জন করা নারী বিলিয়নেয়ার কেট ওয়াংসহ চীনের নতুন বিলিয়নেয়ারদের অর্ধেকই উৎপাদন কিংবা প্রযুক্তি খাতের ব্যবসা থেকে তাদের সম্পদ অর্জন করেছেন। ৬৯৮ জন বিলিয়নেয়ার নিয়ে চীন যুক্তরাষ্ট্রের কাছাকাছি পৌঁছে যাচ্ছে। বিলিয়নেয়ারদের সংখ্যায় শীর্ষে থাকা যুক্তরাষ্ট্রে ৭২৪ জন বিলিয়নেয়ার বাস করেন।

ফোর্বস অনুসারে, গত বছর বিশ্বজুড়ে রেকর্ড ৪৯৩ জন ব্যক্তি বিলিয়নেয়ারদের তালিকায় জায়গা করে নিয়েছেন। হিসাবে প্রতি ১৭ ঘণ্টায় একজন করে নতুন ব্যক্তি বিলিয়নেয়ার হয়েছেন। ১৪০ জন বিলিয়নেয়ার নিয়ে তৃতীয় সর্বাধিক সংখ্যক বিলিয়নেয়ার ছিল ভারতে। এশিয়া প্যাসিফিকে বিলিয়নেয়ারদের মোট সম্পদ লাখ ৭০ হাজার কোটি ডলারের বিপরীতে কেবল যুক্তরাষ্ট্রের বিলিয়নেয়ারদের মোট সম্পদ লাখ ৪০ হাজার কোটি ডলার ছিল।

অ্যামাজনের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান নির্বাহী জেফ বেজোস টানা চতুর্থ বছরের মতো বিশ্বের শীর্ষ ধনীর খ্যাতি পেয়েছেন। গত বছর তার নিট সম্পদ হাজার ৪০০ কোটি থেকে ১৭ হাজার ৭০০ কোটি ডলারে পৌঁছেছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন