শুক্রবার | এপ্রিল ২৩, ২০২১ | ১০ বৈশাখ ১৪২৮

খেলা

চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কোয়ার্টার ফাইনাল

প্রতিশোধের জন্য খেলবে না লিভারপুল

ক্রীড়া ডেস্ক

২০১৮ সালের উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে লড়াই হয়েছিল লিভারপুল ও রিয়াল মাদ্রিদের। ৩-১ গোলের ব্যবধানে কিয়েভের সেই ফাইনাল জিতে নিয়েছিল জিনেদিন জিদানের রিয়াল মাদ্রিদ। সেটা ছিল রিয়ালের ১৩তম ইউরোপিয়ান মুকুট। ওই ম্যাচের পর আজ ফের মুখোমুখি ইউরোপিয়ান ফুটবলের দুই পরাশক্তি। রিয়ালের মাঠ আলফ্রেডো ডি স্টেফানো স্টেডিয়ামে আজ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগের উত্তাপ।

কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগে আজ ইংলিশ জায়ান্ট ম্যানচেস্টার সিটি ঘরের মাঠে খেলবে জার্মানির বরুশিয়া ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে। 

তিন বছর পর আবার ইউরোপের মঞ্চে মুখোমুখি লিভারপুল-রিয়াল। কিয়েভের সেই হারের প্রতিশোধ নিতে উদগ্রীব হওয়ারই কথা সাতবারের ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের। যদিও দলটির কোচ ইয়ুর্গেন ক্লোপ কোনো প্রতিশোধের কথা ভাবছেন না। তিনি বলেন, আমার প্রেরণা আসলে সর্বোচ্চ পর্যায়ে, কারণ এটা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ। ২০১৮ সালের ম্যাচ নিয়ে এখানে কিছু করার নেই। যদিও ড্র (কোয়ার্টার ফাইনাল) দেখার পর ওই ম্যাচটার কথা আমার মনে এসেছে, কারণ তারপর এই প্রথম আমরা মুখোমুখি হচ্ছি। আমরা প্রতিশোধের জন্য খেলব না। প্রতিশোধে আমার খুব বেশি বিশ্বাসও নেই, কিন্তু জিতলে দারুণ ব্যাপার হবে। জয়ের মানে হবে, আমরা পরের রাউন্ডের পথে যাব।

মাঝের এই তিন বছরে লিভারপুল ও রিয়াল মাদ্রিদের স্কোয়াড বেশ খানিকটা বদলে গেছে। দেখে নেয়া যাক এই পরিবর্তন। 

রিয়াল মাদ্রিদে নেই রোনালদো ও বেল

২০১৮ সালের রিয়াল মাদ্রিদ আর বর্তমানের রিয়াল মাদ্রিদের মধ্যে বেশ তফাত্। সেবার রিয়ালের আশা-ভরসার প্রতীক হয়ে ছিলেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো, ছিলেন ওয়েলস তারকা গ্যারেথ বেল। এ দুজনই রিয়াল ছেড়ে চলে গেছেন। 

রিয়ালের সর্বকালের সবচেয়ে বেশি গোলের মালিক রোনালদো ওই ফাইনালের পরই নাম লেখান ইতালির জায়ান্ট জুভেন্টাসে। সেই থেকে তার অভাব কাউকে দিয়েই পূরণ করতে পারেনি রিয়াল। এদিকে কিয়েভে বদলি হিসেবে নেমে ২০ মিনিটের মধ্যে দুই গোল করে রিয়ালের জয়ের নায়ক বেল পরবর্তীতে দলে জায়গা হারান। জিদানের দ্বিতীয় অধ্যায়ে তিনি দলে ব্রাত্য হয়ে পড়ায় বর্তমানে ধারে পাঠানো হয়েছে টটেনহামে।

গোলবারের নিচেও পরিবর্তন, কেইলর নাভাসের জায়গায় এখন রিয়ালের গোলবারের অতন্দ্র প্রহরী থিবো কোর্তোয়া। এছাড়া দানি কারবাহাল ও সার্জিও রামোস ইনজুরির কারণে খেলবেন না বলে আজকের রিয়াল একাদশ অনেকটা অচেনাই মনে হবে। 

লিভারপুলের মিডফিল্ড ও ডিফেন্সে পরিবর্তন

২০১৮ সালের ফাইনালের পর লিভারপুলের গতিময় মিডফিল্ডে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে। গত গ্রীষ্মে বায়ার্ন মিউনিখ থেকে এসেছেন থিয়াগো আলকানতারা, তার কিছুদিন আগে মোনাকো থেকে আনা হয় ফাবিনহোকে। মিডফিল্ডে এখন বেশ অগ্রবর্তী ভূমিকায় খেলতে পারছেন থিয়াগো, আর ফাবিনহাও আগের মতো ‘সাময়িক’ ডিফেন্ডার হিসেবে না খেলে বরং হোল্ডিং মিডফিল্ডার হিসেবে খেলতে পারছেন। জার্মানিতে খেলার সময় দূরপাল্লার পাসিং ও গতিময় ফুটবল দিয়ে নজর কাড়তেন থিয়াগো, এখন সেই ভূমিকায় খেলতে পারছেন তিনি। ভার্জিল ফন ডাইক ও জো গোমেজের দীর্ঘস্থায়ী ইনজুরি লিভারপুল কোচ ইয়ুর্গেন ক্লোপের জন্য একটা বড় ধাক্কা। যদিও তরুণ ডিফেন্সিভ জুটি নাথানিয়েল ফিলিপস ও ওজান কাবাকের সামনে ফাবিনহো খেলায় এ কোচ অনেকটা স্বস্তিতে থাকবেন। 

লিভারপুল সমর্থকদের স্বস্তি, গোলবারের নিচে এবার থাকছেন বিশ্বস্ত অ্যালিসন বেকার। তিন বছর আগে কিয়েভ ফাইনালে লরিস কারিউসের ভুলে দু দুটি গোল পেয়েছিল রিয়াল। এবার অ্যালিসনের কাছে অনেক ভালো পারফরম্যান্স আশা করবে অল রেড সমর্থকরা। 

রামোস ও সালাহর ‘যুদ্ধ’ হচ্ছে না এবার

২০১৮ সালের ফাইনালের মিসরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহকে টেনে মাটিতে ফেলে মারাত্মক ইনজুরির মুখে ঠেলে দেন রামোস। নিজের ও লিভারপুলের স্বপ্ন বিসর্জন যেতে দেখে কাঁদতে কাঁদতে মাঠ ছাড়েন সালাহ। 

ইনজুরির কারণে আজ খেলা হবে না রিয়াল অধিনায়কের, ফলে রামোস-সালাহর দ্বৈরথও দেখা যাবে না। 

কোয়ার্টার ফাইনাল প্রথম লেগে আজ দুটি ম্যাচই শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ১টায়। সরাসরি দেখা যাবে সনি টেন-১ ও সনি টেন-২ চ্যানেলে।  

সূত্র: মার্কা ও বিবিসি 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন