রবিবার | মে ০৯, ২০২১ | ২৬ বৈশাখ ১৪২৮

শেয়ারবাজার

দুদিন স্পট মার্কেটে লাফার্জহোলসিম

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজ আগামীকাল লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেডের শেয়ার কেবল স্পট মার্কেটে লেনদেন হবে। দুদিন ব্লক মার্কেটে কোম্পানিটির লেনদেনও স্পট সেটলমেন্ট সাইকেলের মাধ্যমে নিষ্পত্তি করা হবে। বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) সংক্রান্ত রেকর্ড ডেটের কারণে ২৪ মার্চ কোম্পানিটির শেয়ার লেনদেন বন্ধ থাকবে।

৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০২০ হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানের সুপারিশ করেছে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য সময়ের নিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন, লভ্যাংশসহ অন্যান্য এজেন্ডা পর্যালোচনা অনুমোদনের জন্য আগামী ২২ এপ্রিল বেলা ৩টায় ডিজিটাল প্লাটফর্মে কোম্পানিটির বার্ষিক সাধারণ সভা (এজিএম) আহ্বান করা হয়েছে।

সমাপ্ত হিসাব বছরের সম্মিলিত হিসাব অনুযায়ী, লাফার্জহোলসিমের বিক্রি হয়েছে হাজার ৬২২ কোটি ২০ লাখ টাকা। আগের হিসাব বছরে তা ছিল হাজার ৭৮৪ কোটি টাকা। হিসাবে কোম্পানিটির বিক্রি কমেছে দশমিক শূন্য শতাংশ। গত হিসাব বছরে প্রতিষ্ঠানটির কর-পরবর্তী নিট মুনাফা হয়েছে ২৩৬ কোটি ১০ লাখ টাকা, আগের হিসাব বছরে যা ছিল ১৭৩ কোটি ৭০ লাখ টাকা। হিসাবে লাফার্জহোলসিমের নিট মুনাফা বেড়েছে ৩৫ দশমিক ৯২ শতাংশ।

আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে টাকা পয়সা, আগের হিসাব বছরের একই সময়ে যা ছিল টাকা ৫০ পয়সা। হিসাবে কোম্পানিটির বার্ষিক ইপিএস বেড়েছে ৩৫ দশমিক ৩৩ শতাংশ। ৩১ ডিসেম্বর শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ১৪ টাকা ৮৯ পয়সা, আগের হিসাব বছর শেষে যা ছিল ১৩ টাকা ৯৫ পয়সা।

২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরেও শেয়ারহোল্ডারদের ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছিল লাফার্জহোলসিম। তার আগের চার হিসাব বছরেও একই হারে নগদ লভ্যাংশ পেয়েছিলেন কোম্পানিটির শেয়ারহোল্ডাররা।

লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ সম্প্রতি আন্তর্জাতিক মানের চুনাপাথর চিপের বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করেছে। এসব চুনাপাথর চিপের প্রধান বৈশিষ্ট্য হলো এগুলো ক্লিয়ার সাইজের গ্রেডেড চিপ। অর্থাৎ এসব চিপের সবগুলোর আকার আকৃতি একই, যা আন্তর্জাতিক মানদণ্ড অর্জনের অন্যতম শর্ত। লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ সুনামগঞ্জের ছাতকে অবস্থিত তাদের ক্লিংকার সিমেন্ট উৎপাদন কারখানা প্রাঙ্গণেই এই চুনাপাথর চিপ ক্রাশিং ইউনিটটি স্থাপন করেছে। ইউনিটটি বছরে ১২ লাখ টন কোণ আকৃতির চুনাপাথর চিপ উৎপাদন করতে সক্ষম। এই ইউনিট স্থাপনে কোম্পানিটি বিনিয়োগ করেছে ৪০ কোটি ১০ লাখ টাকা। এর পুরোটাই অর্থায়ন করা হয়েছে কোম্পানির নিজস্ব তহবিল থেকে।

ডিএসইতে গতকাল লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ শেয়ারের সর্বশেষ সমাপনী দর ছিল ৫২ টাকা ৩০ পয়সা। গত এক বছরে শেয়ারটির দর ৩৫ টাকা ৯০ পয়সা থেকে ৭০ টাকার মধ্যে ওঠানামা করেছে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন