বৃহস্পতিবার | এপ্রিল ২২, ২০২১ | ৯ বৈশাখ ১৪২৮

খবর

আলোচনা সভায় বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী

বঙ্গবন্ধু কৌশলে বাঙালিকে মুক্তির বার্তা দিয়েছিলেন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বস্ত্র পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক, এমপি বলেছেন, মার্চের ভাষণ শুধু বাংলাদেশ নয়, সারা বিশ্ববাসীর একটি সম্পদ। পরাধীন জাতির মুক্তির একটি ঐতিহাসিক বার্তা। বঙ্গবন্ধু ছিলেন বিশ্বের শোষিত মানুষের কণ্ঠস্বর। যেখানেই অন্যায়-অবিচার, সেখানেই বঙ্গবন্ধু প্রতিবাদ করেছেন। পাকিস্তানের শাসকগোষ্ঠী যাতে বঙ্গবন্ধুকে বিদ্রোহী বলতে না পারে, বঙ্গবন্ধু সেভাবে কৌশলে বাঙালিদের মুক্তির বার্তা দিয়েছিলেন।

গতকাল বস্ত্র পাট মন্ত্রণালয় কর্তৃক ঐতিহাসিক মার্চ দিবস-২০২১ উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে গোলাম দস্তগীর এসব কথা বলেন।

বস্ত্র পাট মন্ত্রণালয়ের সচিব লোকমান হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বস্ত্র অধিদপ্তরের মহাপরিচালক দিলীপ কুমার সাহা, বিটিএমসির চেয়ারম্যান ব্রি. জেনারেল মো. জাকির হোসেন, বস্ত্র পাট মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এসএম সেলিম রেজা, সাবিনা ইয়ামিন (অতিরিক্ত সচিব), বাংলাদেশ তাঁত বোর্ডের চেয়ারম্যান মো. শাহ আলমসহ বস্ত্র পাট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

মন্ত্রী বলেন, একটি জাতিকে কীভাবে জাগ্রত করতে হবে তা বঙ্গবন্ধু ভালো করেই জানতেন। ১৯৭১ সালের এদিন তত্কালীন রেসকোর্স ময়দানের বিশাল জনসমাবেশে দেয়া ওই ভাষণে বঙ্গবন্ধু বাঙালি জাতিকে স্বাধীনতাযুদ্ধের চূড়ান্ত প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন। বিশাল জনসমুদ্রে দাঁড়িয়ে বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, এবারের সংগ্রাম আমাদের মুক্তির সংগ্রাম, এবারের সংগ্রাম স্বাধীনতার সংগ্রাম। পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর বিরুদ্ধে লড়াই শুরুর আহ্বানের অধীর অপেক্ষায় ছিল সমগ্র বাঙালি জাতি। বঙ্গবন্ধুর মার্চের উদ্দীপ্ত ঘোষণায় বাঙালি জাতি পেয়ে যায় স্বাধীনতার দিকনির্দেশনা। স্বাধীনতার যে ডাক বঙ্গবন্ধু দিয়েছিলেন, তা বিদ্যুত্গতিতে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়েছিল।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন