বৃহস্পতিবার | এপ্রিল ২২, ২০২১ | ৯ বৈশাখ ১৪২৮

খবর

বিলসের সমাবেশ ও ছাতা র‌্যালি

গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্তির দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনাকালে নারী নেতৃত্ব, গড়বে নতুন সমতার বিশ্ব স্লোগান সামনে রেখে আন্তর্জাতিক নারী দিবস ২০২১ উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব লেবার স্টাডিজ-বিলসের উদ্যোগে এবং অক্সফাম ইন বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থা-আইএলওর সহযোগিতায় গৃহশ্রমিক সমাবেশ ছাতা র‌্যালি গতকাল রাজধানীর মুক্তাঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তারা গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্তি আইএলও কনভেনশন ১৮৯ অনুসমর্থনের দাবি জানান।

একই সঙ্গে সুনীতি প্রকল্পের আওতায় গণসাক্ষরতা অভিযানের উদ্যোগে একটি সুসজ্জিত ট্রাক গৃহশ্রমিক সুরক্ষা কল্যাণ নীতি ২০১৫ বিষয়ে বাউল গানের মাধ্যমে সচেতনতামূলক গান পরিবেশন করে এবং ট্রাকটি ঢাকা শহরের বিভিন্ন এলাকা প্রদক্ষিণ করে।

গৃহশ্রমিক অধিকার প্রতিষ্ঠা নেটওয়ার্কের ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারী আবুল হোসাইনের নেতৃত্বে মানববন্ধন ছাতা র‌্যালিতে আরো উপস্থিত ছিলেন জাতীয় শ্রমিক জোট বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক বিলস উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য নইমুল আহসান জুয়েল, জাতীয় শ্রমিক লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ হোসাইন, বাংলাদেশ জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শামীম আরা, জাতীয় শ্রমিক জোটের কার্যকরী সভাপতি আব্দুল ওয়াহেদ, বাংলাদেশ ফ্রি ট্রেড ইউনিয়ন কংগ্রেসের সম্পাদক পূলক রঞ্জন ধর, বিলস পরিচালক নাজমা ইয়াসমীন প্রমুখ।

সমাবেশে আন্তর্জাতিক নারী দিবসের তাত্পর্য তুলে ধরে বক্তারা বলেন, নারীর অধিকার প্রতিষ্ঠায় লড়াই-সংগ্রামের বিকল্প নেই। লড়াই-সংগ্রামের মধ্য দিয়ে কিছু অধিকার প্রতিষ্ঠিত হলেও এখনো গৃহশ্রমিকদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি। গৃহশ্রমিকরা খুব মানবেতর জীবন যাপন করেন। তাদের না আছে কোনো নির্দিষ্ট কর্মঘণ্টা, থাকার জায়গা, সাপ্তাহিক বা মাতৃত্বকালীন ছুটি। তাদের জন্য কোনো নির্ধারিত বেতনও নেই। তাই গৃহশ্রমকে পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়ার পাশাপাশি তাদের শ্রম আইনে অন্তর্ভুক্ত করা প্রয়োজন।

বক্তারা আরো বলেন, গৃহশ্রমিকরা তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত এবং নানাভাবে নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন। গৃহশ্রমিকদের অধিকার মর্যাদা নিশ্চিত, শ্রমিক হিসেবে তাদের স্বীকৃতি এবং দক্ষ জনশক্তি হিসেবে তাদের সংগঠিত করা, তাদের অধিকার সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য আইএলও কনভেনশন-১৮৯ অনুস্বাক্ষর করা অত্যন্ত জরুরি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন