বৃহস্পতিবার | এপ্রিল ২২, ২০২১ | ৯ বৈশাখ ১৪২৮

টেলিকম ও প্রযুক্তি

অ্যামাজনের সঙ্গে বিরোধ

হুমকিতে পেন্টাগন-মাইক্রোসফটের ১ হাজার কোটি ডলারের চুক্তি

বণিক বার্তা ডেস্ক

বাস্তবায়নের হুমকিতে রয়েছে মার্কিন সামরিক সদর দপ্তর পেন্টাগনের সঙ্গে করা মাইক্রোসফটের হাজার কোটি ডলারের একটি চুক্তি। চুক্তির আওতায় পেন্টাগনে ক্লাউড কম্পিউটিং সার্ভিস সরবরাহ করার দায়িত্ব পেয়েছিল মাইক্রোসফট। কয়েক বছরের বিতর্কের পর মার্কিন সরকার চুক্তি বাতিলের হুমকি দেয়। খবর ব্লুমবার্গ।

মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর জানায়, ফেডারেল বিচারপতি কর্তৃক অ্যামাজনের উত্থাপিত আপত্তি নাকচ করা হলে চুক্তিটি পুনর্বিবেচনা করা হবে। সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হস্তক্ষেপে মাইক্রোসফট চুক্তিটি পেয়েছিল বলে অভিযোগ জানিয়েছে অ্যামাজন।

এর ফলে সামরিক সদস্যদের জন্য প্রস্তাবিত ক্লাউড কম্পিউটিংয়ের প্রকল্পটির বাস্তবায়ন সম্পূর্ণই ঝুলে আছে আদালতের রায়ের ওপর। তবে অতিশিগগিরই অ্যামাজনের করা অভিযোগের ব্যাপারে রায় আসতে পারে বলে জানা গেছে। গত মাসে পেন্টাগন জানায়, চুক্তিটি হোয়াইট হাউজ থেকে প্রভাবিত করা হয়নি, আদালতে এমনটা প্রমাণ করতে বেশ লম্বা সময় নেয়া হয়েছে। একই সময়ে এক সংবাদ সম্মেলনে পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবে বলেন, যদি আদালত সরকারের আবেদন প্রত্যাখ্যান করে, তবে আমরা আরো দীর্ঘ মামলা প্রক্রিয়ায় জড়িয়ে যাব। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রধান তথ্য কর্মকর্তা এটিকে আরো দীর্ঘায়িত করার আবেদন করবেন।

তবে চুক্তির বাস্তবায়নের আরেকটি ঝুঁকি হলো চুক্তিটি জিতে নেয়ার দৌড়ে অ্যামাজনের করা লবিং পিআর প্রচারণা। ২০১৮ সালে প্রস্তাবটি উত্থাপিত হওয়ার এক বছরের কিছু পর মাইক্রোসফট এটি জিতে নেয়। বিতর্ক সত্ত্বেও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বিশ্বব্যাপী সামরিক সেবার জন্য সামরিক তথ্যভাণ্ডারকে সহায়তা করার উদ্দেশ্যে জয়েন্ট এন্টারপ্রাইজ ডিফেন্স ইনফ্রাস্টাকচার ক্লাউড (জেইডিআই) বাস্তবায়নে এখনো চেষ্টা করে যাচ্ছে।

মাইক্রোসফটের ভাইস প্রেসিডেন্ট টম কিন বলেন, প্রতিরক্ষা দপ্তরের মিশনগুলোর জন্য জেইডিআই প্রয়োজন। আমরা আমাদের একটি পদক্ষেপের জন্য অপেক্ষা না করে প্রতিটি পদক্ষেপের মাধ্যমে চেষ্টা করে যাচ্ছি। যাতে পেন্টাগনের সঙ্গে কাজ করা যায়।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, তারা ওরাকল করপোরেশন, অ্যামাজন, জেনারেল ডায়নামিকস ইনফরমেশন টেকনোলজি মাইক্রোসফটসহ ১৩টি কোম্পানির সঙ্গে ক্লাউড প্রজেক্টে কাজ করছে।

যখন পেন্টাগন প্রকল্পটি ঘোষণা করে তখন করপোরেট প্রতিষ্ঠানগুলো শুধু একটি কোম্পানির ওপর নির্ভর করা থেকে সরে এসেছে। এর পরিবর্তে তারা বিভিন্ন কোম্পানি সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হয়ে সবচেয়ে ভালো সেবাটি গ্রহণ করতে উত্সুক। জেইডিআই প্রকল্পের জন্য ক্লাউড সেবা স্থানান্তরের প্রক্রিয়া শুরু হয়, তখন এসব সেবার বেশির ভাগই অ্যামাজন সরবরাহ করত। প্রতিরক্ষা দপ্তর জানিয়েছিল, বেশি কোম্পানির সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হলে এতে জটিলতা তৈরি হবে। কিন্তু এক্ষেত্রে অপ্রত্যাশিতভাবেই বেশির ভাগ কাজ জিতে নেয় মাইক্রোসফট। এর পরই ট্রাম্পের সহযোগিতায় তারা কাজ জিতে নিয়েছে অভিযোগ তুলে মামলা দায়ের করে। ফলে পেন্টাগনের জন্য নিরপেক্ষভাবে প্রকল্পের সেবা সরবরাহের জন্য বিজয়ীকে নির্বাচন করা কঠিন হয়ে উঠেছিল।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন