সোমবার | এপ্রিল ১৯, ২০২১ | ৫ বৈশাখ ১৪২৮

পণ্যবাজার

সরকারি পূর্বাভাস

আসন্ন মৌসুমে গতি হারাবে অস্ট্রেলিয়ার কৃষিজ উৎপাদন

বণিক বার্তা ডেস্ক

বাম্পার ফলন হওয়ায় গত ফসলি মৌসুমটা বেশ ভালো গেছে অস্ট্রেলিয়ার জন্য। তবে আসন্ন মৌসুমে হয়তো এর উল্টো অভিজ্ঞতা পেতে হবে দেশটিকে। উত্পদিত পণ্যের দাম পড়তির দিকে থাকায় এবং ফসল প্রাণিজ উৎপাদনের পরিমাণ কম হওয়ার আশঙ্কায় আগামী মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার কৃষি খাতের জন্য কিছুটা নেতিবাচক পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে। খবর ব্লুমবার্গ।

অস্ট্রেলিয়ার ব্যুরো অব এগ্রিকালচারাল অ্যান্ড রিসোর্স ইকোনমিকসের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, ২০২১-২২ মৌসুমে দেশটির কৃষিজ উৎপাদনের মূল্যমান শতাংশ কমে হাজার ৩৩০ কোটি অস্ট্রেলীয় ডলারে (৪৪ হাজার ৯০০ কোটি মার্কিন ডলার) নেমে আসতে পারে।

গত মৌসুমে কভিড-১৯ মহামারীর প্রকোপের মধ্যেও খাতের পারফরম্যান্স বেশ ভালো ছিল। সময়ে দেশটির কৃষি খাতের প্রডাকশন ভ্যালু আগের মৌসুমের চেয়ে শতাংশ বেড়ে হাজার ৬০০ কোটি অস্ট্রেলীয় ডলারে দাঁড়ায়। আর সাফল্যের নেপথ্যে ছিল পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাত।

আগের মৌসুমের চেয়ে এবার কিছুটা কম হলেও আগামী পাঁচ বছর অস্ট্রেলিয়ার কৃষিজ উৎপাদন হাজার কোটি অস্ট্রেলীয় ডলারের নিচে নামবে না বলে আশা করছে দেশটির সরকার। তবে সময়ে দেশটিকে বেশকিছু চাপ সামলাতে হবে। যেমন চীনের শূকরের খামারগুলোর কার্যক্রম পুনরায় গতি পেতে শুরু করায় অস্ট্রেলিয়ার রেড মিটের বাজার কিছুটা মূল্যচাপে থাকবে। এছাড়া জলবায়ুর অস্বাভাবিক আচরণও বিপাকের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে দেশটির কৃষি খাতের জন্য।

এদিকে তুলা, পশম দুগ্ধজাত পণ্যের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ২০২১-২২ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার কৃষিজ পণ্য রফতানি শতাংশ বাড়তে পারে বলে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। পূর্বাভাস সত্য হলে চার বছরের মধ্যে প্রথমবারের মতো ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি দেখবে খাতটি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন