মঙ্গলবার | এপ্রিল ২০, ২০২১ | ৬ বৈশাখ ১৪২৮

টেলিকম ও প্রযুক্তি

হোয়াটসঅ্যাপের গোপনীয়তা নীতিমালা না মানলে...

চলতি বছরের শুরুতে গোপনীয়তা নীতিমালায় বড় পরিবর্তন আনার ঘোষণা দিয়েছে হোয়াটসঅ্যাপ, যা নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়ে প্রতিষ্ঠানটি। বিতর্কিত নতুন নীতিমালা নিয়ে বিশ্বজুড়ে সমালোচনার পরও নিজেদের অবস্থানে অনড় রয়েছে ফেসবুক নিয়ন্ত্রিত ক্রস-প্লাটফর্ম মেসেজিং ভয়েস ওভার আইপি সেবা হোয়াটসঅ্যাপ। অর্থাৎ সামান্য কিছু পরিবর্তন এনে গোপনীয়তা নীতিমালা কার্যকরের পথে এগোচ্ছে প্রতিষ্ঠানটি। হোয়াটসঅ্যাপের নতুন গোপনীয়তা নীতিমালা না মানলে যা কিছু ঘটবে সেসব নিয়ে আয়োজনের আজ প্রথম পর্ব

গোপনীয়তা নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট না করলেও তাত্ক্ষণিক কোনো ব্যবহারকারীর হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট ডিলিট বা বন্ধ করে দেয়া হবে না। কিন্তু কিছু সীমাবদ্ধতা জুড়ে দেয়া হবে। যেসব ব্যবহারকারী হোয়াটসঅ্যাপের নতুন গোপনীয়তা নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট করবেন না, তাদের নীতিমালাটি পর্যালোচনা করে দেখার জন্য যথেষ্ট সময় দিতে অ্যাকাউন্ট সক্রিয় রাখা হবে। অর্থাৎ নতুন গোপনীয়তা নীতিমালা কার্যকরের নির্ধারিত সময়সীমা ১৫ মের পরও কেউ নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট না করলে তার হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট সচল থাকবে।

হোয়াটসঅ্যাপের গোপনীয়তা নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট না করলেও আগামী ১৫ মের পর অ্যাপটির মাধ্যমে কল করা এবং নোটিফিকেশন পাওয়া যাবে। তবে অ্যাপটির মাধ্যমে মেসেজ পড়া এবং পাঠানোর সুবিধা বন্ধ হয়ে যাবে। অর্থাৎ প্রতিষ্ঠানটি নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গোপনীয়তা নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট না করলে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কিছু সীমাবদ্ধতা চালু হবে। ব্যবহারকারী যদি নীতিমালাটি পর্যালোচনা শেষে শর্ত মেনে তা অ্যাকসেপ্ট করেন, সেক্ষেত্রে পুনরায় হোয়াটসঅ্যাপের সব সুবিধা পাবেন।

পরিবর্তিত গোপনীয়তা নীতিমালা নির্ধারিত সময়ের মধ্যে গ্রহণ না করলে একটি নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত হোয়াটসঅ্যাপে কল করা এবং নোটিফিকেশন পাওয়া যাবে। এরপর অ্যাকাউন্ট ডিলিট করা হবে। একবার কারো হোয়াটসঅ্যাপ অ্যাকাউন্ট ডিলিট করা হলে তা আর পুনরায় ফিরে পাওয়া যাবে না। হোয়াটসঅ্যাপের দাবি, তাদের নতুন গোপনীয়তা নীতিমালা গ্রাহকদের স্বার্থ ক্ষুণ্ন করতে সাজানো নয়। কাজেই নীতিমালাটি পর্যালোচনার জন্য ব্যবহারকারীদের সীমাবদ্ধ সুবিধা ব্যবহারের সুযোগ রাখা হচ্ছে।

হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ ঠিক করে দেয়া সময়ের মধ্যে নতুন গোপনীয়তা নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট না করলেও ব্যবহারকারীর মেসেজ হিস্ট্রি মুছে যাবে এবং তা কোনো অবস্থাতেই আর ফিরে পাওয়া যাবে না। কাজেই অতি প্রয়োজনীয় কোনো তথ্য মেসেজ হিস্টোরিতে থাকলে তা ব্যবহারকারীকে সংরক্ষণের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

হোয়াটসঅ্যাপের যেসব ব্যবহারকারী নতুন গোপনীয়তা নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট করবেন না, তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে বিভিন্ন গ্রুপ থেকে বাদ পড়বেন। বিভ্রান্ত না হয়ে নতুন নীতিমালা অ্যাকসেপ্ট করার আহ্বান জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

হোয়াটসঅ্যাপের নতুন গোপনীয়তা নীতিমালার যে বিষয়টি নিয়ে বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে তা হলো ব্যবহারকারীর চ্যাট-সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য ফেসবুকের সঙ্গে বিনিময় করবে হোয়াটসঅ্যাপ। বিভিন্ন বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের জন্যই নাকি এটি করা হচ্ছে। কিন্তু ব্লগ পোস্টে এমন অভিযোগ সম্পূর্ণ রূপে খারিজ করে দেয় প্রতিষ্ঠানটি। ব্যবহারকারীদের উদ্দেশে তারা বলেন, না আমরা আপনাদের ব্যক্তিগত মেসেজ দেখতে পারি, না আপনাদের ফোনকল শুনতে পাই। আপনার বিনিময় করা অবস্থানও আমরা দেখতে পাই না। ফেসবুকও এসব তথ্য পায় না। তাদের প্লাটফর্মে লোকেশন বা অবস্থান সংক্রান্ত সব তথ্য এন্ড-টু-এন্ড এনক্রিপটেড থাকে বলে দাবি করে হোয়াটসঅ্যাপ।

 

সূত্র: গ্যাজেটস নাউ

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন