সোমবার | এপ্রিল ১৯, ২০২১ | ৫ বৈশাখ ১৪২৮

খবর

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্প নিয়ে রেলমন্ত্রী

ঠিকাদারকে নিয়ম মেনেই অর্থ পরিশোধ করা হচ্ছে

নিজস্ব প্রতিবেদক

পদ্মা সেতু রেল সংযোগ প্রকল্পের ঠিকাদার চায়না রেলওয়ে গ্রুপ লিমিটেডকে (সিআরইসি) নিয়ম মেনেই অর্থ পরিশোধ করার কথা জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন। ঠিকাদারকে তার কাজের বিল দেয়াকে চলমান প্রক্রিয়া হিসেবেও উল্লেখ করেছেন মন্ত্রী। বাংলাদেশ রেলওয়ে প্রকল্পের ঠিকাদারকে ঠিকমতো বিল পরিশোধ করছে না, এমন অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল রেলভবনে অনুষ্ঠিত একটি অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন মন্ত্রী।

সিআরইসির অভিযোগ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, প্রকল্পের কাজ ২০১৮ সালে শুরু হয়েছে। প্রকল্পের যে কাজগুলো হয়, এখানে কনসালট্যান্ট থাকে, পিডি থাকে। যে পার্টিকুলার প্রকল্পের কথা আমরা বলছি, এটা চায়না জি টু জি অর্থায়নে বাস্তবায়ন হচ্ছে। প্রকল্পের ঠিকাদারও চীনের। এখানে কাজের অগ্রগতির ওপর ভিত্তি করে ধাপে ধাপে পেমেন্ট করা হয়। উনারা বিল দিয়েছেন, এখনো পাননি তার মানে এই নয় যে বিল পাবেন না। বিল অবশ্যই পাবেন। এটা চলমান বিষয়। এটা তো পত্রপত্রিকায় বলার মতো কিছু নয়। অথরিটি হিসেবে তো আমরা রেল মন্ত্রণালয় আছি। আমাদের তো আগে জানাবে। তাদের যদি কোনো জায়গায় অসুবিধা হয়, সেটা তো প্রথমে আমাদের জানাবে। এটা তো পত্রপত্রিকায় জানানোর মতো বিষয় না।

এর আগে বাংলাদেশ রেলওয়ে এবং ওয়াটার এইডের মধ্যে রেলওয়ে স্টেশনসংলগ্ন স্থানে আধুনিক পাবলিক টয়লেট নির্মাণ/সংস্কারসহ ওয়াশ ব্যবস্থাপনার উন্নয়ন এবং পারস্পরিক শিখন কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে রেলমন্ত্রী বলেন, রেলওয়ে নিরাপত্তার সঙ্গে এবং শিডিউল রক্ষা করে সময়মতো চালানোর জন্য ডাবল লাইন নির্মাণ করা জরুরি। একটি লাইনের ওপর ট্রেন চলার ফলে গতি বাড়ানো সম্ভব হচ্ছে না, ফলে যাত্রীদের কাঙ্ক্ষিত সেবাও দেয়া যাচ্ছে না। যাত্রীসেবার মান বৃদ্ধির জন্য সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। বিভিন্ন রুটে ডাবল লাইন নির্মাণ করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে ঢাকার কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে দুটি বিমানবন্দর স্টেশনে একটি পাবলিক টয়লেট নির্মাণ সংস্কার করার কাজের উদ্বোধন করেন মন্ত্রী। এগুলো নির্মাণ/সংস্কারের জন্য গতকাল বাংলাদেশ রেলওয়ের সঙ্গে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ওয়াটার এইড।

রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব সেলিম রেজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে আরো বক্তব্য দেন বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ মজুমদার, ওয়াটার এইডের কান্ট্রি ডিরেক্টর হাসিন জাহান, সিনিয়র ডিসেন্ট্রালাইজেশন ওয়াশ স্পেশালিস্ট শান্তনু লাহিড়ী প্রমুখ।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন