শুক্রবার | এপ্রিল ২৩, ২০২১ | ১০ বৈশাখ ১৪২৮

পণ্যবাজার

অক্টোবর থেকে জানুয়ারি

ভারতের চিনি উৎপাদন বেড়েছে ২৫.৩৭%

বণিক বার্তা ডেস্ক

গত অক্টোবর থেকে জানুয়ারির মধ্যে ভারতের চিনি উৎপাদন ২৫ দশমিক ৩৭ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে কোটি ৭৬ লাখ ৮০ হাজার টন। ভারতের চিনি শিল্পের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন ইন্ডিয়ান সুগার মিলস অ্যাসোসিয়েশন (আইএসএমএ) গত মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে তথ্য নিশ্চিত করেছে। খবর ইকোনমিক টাইমস।

বিবৃতিতে আইএসএমএ জানায়, গত বছরের শেষ তিন মাসে (অক্টোবর-ডিসেম্বর) ভারতের চিনি উৎপাদন বৃদ্ধির রেকর্ড হয়েছে। আখ মাড়াইয়ের মৌসুমে ২০২০ সালের অক্টোবর থেকে ২০২১ সালের ১৫ জানুয়ারিতে ভারতে মোট কোটি ৪২ লাখ ৭০ হাজার টন চিনি উৎপাদন হয়েছে। ধারাবাহিকতা বজায় থাকলে চলতি ২০২০-২১ মৌসুমে ভারতে সব মিলিয়ে কোটি ৫৫ লাখ টন চিনি উৎপাদন হতে পারে। সে হিসাবে উৎপাদন প্রায় এক-পঞ্চমাংশ বাড়বে, যা বছর শেষে বাড়বে ১৯ দশমিক শতাংশ। একই সময়ে মহারাষ্ট্রের ১৮১টি চিনিকলে সব মিলিয়ে ৫১ লাখ ৬০ হাজার টন চিনি উৎপাদনের তথ্য দিয়েছে আইএসএমএ। আগের মৌসুমের একই সময়ে রাজ্যে ২৫ লাখ ৫০ হাজার টন চিনি উৎপাদন হয়েছিল। সক্রিয় ছিল ১৩৯টি চিনিকল।

ভারতের শীর্ষ চিনি উৎপানকারী রাজ্য উত্তর প্রদেশে জানুয়ারি নাগাদ চিনি উৎপাদন হয়েছে ৫৪ লাখ ৪০ হাজার টন। তার আগের বছরের একই সময়ে উৎপাদন হয়েছিল ৫৪ লাখ ৯০ হাজার টন। দেশটির দ্বিতীয় বৃহত্তম চিনি উৎপাদক রাজ্য মহারাষ্ট্রে উৎপাদন লক্ষণীয় পরিমাণ বেড়ে ৬৩ লাখ ৮০ হাজার টনে দাঁড়িয়েছে। গত বছরের একই সময়ে রাজ্যটিতে চিনি উৎপাদন ছিল ৩৪ লাখ ৬০ হাজার টন।

ভারতের তৃতীয় বৃহত্তম চিনি উৎপাদক রাজ্য কর্ণাটকে জানুয়ারি নাগাদ চিনি উৎপাদন হয়েছে ৩৪ লাখ ৩০ হাজার টন। গত বছরের একই সময়ে উৎপাদন হয়েছিল ২৭ লাখ ৯০ হাজার টন। গুজরাটে চিনি উৎপাদন হয়েছে লাখ ৫৫ হাজার টন। তামিলনাড়ু, অন্ধ্র পদেশ তেলাঙ্গানায় সম্মিলিতভাবে লাখ ৫৬ হাজার টন চিনি উৎপাদন হয়েছে।

চলতি আখ মাড়াই মৌসুমে জানুয়ারি নাগাদ বিহার, উত্তরখণ্ড, পাঞ্জাব, হরিয়ানা, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়, রাজস্থান ওড়িশায় সম্মিলিতভাবে চিনি উৎপাদন হয়েছে ১৫ লাখ ১০ হাজার টন।

চিনি উৎপাদনে বিশ্বের দ্বিতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে ভারত। আবার রফতানিতে দেশটির অবস্থন তৃতীয়।

আইএসএমএ বলছে, জানুয়ারি নাগাদ ভারতের প্রায় ৪৯১টি চিনিকল সক্রিয় ছিল। এর আগের বছরে সক্রিয় ছিল ৪৪৭ টি চিনিকল।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন