বুধবার | মার্চ ০৩, ২০২১ | ১৯ ফাল্গুন ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

যুক্তরাষ্ট্রে ১০ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ পরিকল্পনা স্যামসাংয়ের

বণিক বার্তা ডেস্ক

বিশ্বজুড়ে চিপ সংকট দেখা দিয়েছে। চিপ সংকটের কারণে অনেক মোবাইল ব্র্যান্ড চাহিদামাফিক ডিভাইস উৎপাদন করতে পারছে না। এছাড়া হাই-এন্ড ফিচার সংবলিত গাড়ি নির্মাতারাও চিপ সংকটে পড়ে উৎপাদন কমিয়ে দিতে বাধ্য হচ্ছে। পরিস্থিতিতে অ্যাডভান্সড চিপ উৎপাদন জোরদারের উদ্যোগ নিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক স্যামসাং ইলেকট্রনিকস। এমন উদ্যোগের অংশ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাস রাজ্যে হাজার কোটি ডলারের বেশি বিনিয়োগে অ্যাডভান্সড লজিক চিপ কারখানা স্থাপনের পরিকল্পনা নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। এর ফলে আরো বেশি মার্কিন চিপ গ্রাহক আকৃষ্ট করতে পারবে স্যামসাং বলে মনে করা হচ্ছে। খবর ইয়াহু ফাইন্যান্স।

বিশ্বের বৃহৎ স্মার্টফোন নির্মাতা এবং বৃহৎ মেমোরি চিপ নির্মাতা স্যামসাং। টেক্সাস কারখানায় ভবিষ্যতের জন্য আরো উন্নত ন্যানোমিটার প্রযুক্তিতে চিপ তৈরি করবে প্রতিষ্ঠানটি।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, স্যামসাংয়ের টেক্সাসে বিনিয়োগের বিষয়টি এখনো প্রাথমিক পর্যায়ে রয়েছে এবং পরিবর্তন হতে পারে। টেক্সাসে কারখানা স্থাপনের পরিকল্পনা চূড়ান্ত হলে ২০২২ সাল থেকে প্রধান মেশিনারিজ স্থাপন শুরু হবে এবং ২০২৩ সাল থেকে কারখানাটি পূর্ণাঙ্গ উৎপাদনে যাবে।

মার্কিন প্রশাসন চাচ্ছে সেমিকন্ডাক্টর নির্মাতারা যুক্তরাষ্ট্রে কারখানা চালু করুক, যা কভিড-১৯ মহামারীর অর্থনৈতিক মন্দা কাটিয়ে উঠতে সহায়ক হবে। এরই অংশ হিসেবে গত বছর

মে মাসে বিষয়টি নিয়ে প্রধান চিপ নির্মাতাদের সঙ্গে আলোচনায় বসেছিল সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন। ওয়াশিংটনের এমন উদ্যোগে সাড়া দিয়ে চিপ নির্মাতারা অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে সংশ্লিষ্ট প্রযুক্তি সরবরাহের নিশ্চয়তা চেয়েছে।

বিষয়ে ইন্টেল করপোরেশনের মুখপাত্র উইলিয়াম মস এক -মেইল বিবৃতিতে জানায়, ইন্টেল যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিভাগের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে। বিশেষ করে অভ্যন্তরীণ উৎস থেকে মাইক্রোইলেকট্রনিকস এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য প্রযুক্তিসামগ্রী সরবরাহের বিষয়টি আরো উন্নত করার তাগাদা দেয়া হয়েছে।

অন্যদিকে আরেক চুক্তিভিত্তিক পণ্য নির্মাতা তাইওয়ান সেমিকন্ডাক্টর ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি (টিএসএমসি) জানায়, তারা যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিভাগের সঙ্গে কারখানা নির্মাণের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করে যাচ্ছে। তবে এখনো বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

টিএসএমসির মুখপাত্র নিনা কাও বিবৃতিতে জানান, তারা যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য জায়গায় চিপ তৈরির কারখানার জন্য উপযুক্ত জায়গা খুঁজে পেতে জোরেশোরে কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে বিষয়ে এখন পর্যন্ত দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি হয়নি।

এমন একটি সময়ে যুক্তরাষ্ট্রে স্যামসাংয়ের নিজস্ব চিপ তৈরির কারখানার বিষয়টি নিয়ে আলোচনা চলছে, যখন কভিড-১৯ মহামারীর কারণে টালমাটাল অবস্থায় রয়েছে বিশ্ব। আর ভাইরাসটিতে ধরাশায়ী হওয়া বিশ্বের শীর্ষ দুই অর্থনীতির দেশ যুক্তরাষ্ট্র চীন বাণিজ্যযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, চীনের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ঠেকাতে চিপ নির্মাণে আরো দৃঢ় অবস্থান তৈরি করতে চাইছে যুক্তরাষ্ট্র। যে কারণে স্যামসাং টিএসএমসির মতো প্রতিষ্ঠানগুলোকে যুক্তরাষ্ট্রে কারখানা স্থাপনে অনুপ্রাণিত করা হচ্ছে।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, মার্কিন প্রশাসন স্থানীয়ভাবে চিপ উৎপাদন বাড়াতে স্যামসাংয়ের সহযোগিতা পাওয়ার চেষ্টা করছে। এরই মধ্যে টেক্সাস অঙ্গরাজ্যের রাজধানী অস্টিনে স্যামসাংয়ের একটি চিপ তৈরির কারখানা রয়েছে। মার্কিন কর্মকর্তারা এখন স্যামসাংকে দিয়ে দেশটিতে চুক্তিভিত্তিক চিপ তৈরির বিষয়টি ভাবছে। যদিও সিউল মার্কিন প্রশাসনের এমন তত্পরতার বিষয়ে মন্তব্য করা থেকে বিরত রয়েছে। একই বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য দিতে নারাজি জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য বিভাগ।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন