সোমবার | মার্চ ০১, ২০২১ | ১৭ ফাল্গুন ১৪২৭

খেলা

সাকিব-হাসানদের আগুনে বোলিংয়ে ১২২ রানে শেষ ওয়েস্ট ইন্ডিজ

ক্রীড়া প্রতিবেদক

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা সাকিব আল হাসান ও অভিষিক্ত হাসান মাহমুদের বিধ্বংসী বোলিংয়ে প্রথম ওয়ানডেতে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে মাত্র ১২২ রানে গুটিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত বোলিংয়ে সাকিব একাই নিয়েছেন ৪ উইকেট। হাসান মাহমুদ তুলে নেন উইন্ডিজদের ৩ ব্যাটসম্যানকে। এছাড়া অন্যদের মাঝে মুস্তাফিজ নিয়েছেন ২ উইকেট এবং একটি উইকেট গেছে মেহেদী হাসান মিরাজের দখলে। মাত্র ৩২ দশমিক ২ ওভারেই গুটিয়ে যায় অতিথিরা।

মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে এদিন টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই উইন্ডিজ শিবিরে প্রথম আঘাত হানেন দলের প্রধান পেসার মুস্তাফিজুর রহমান। তার করা ফুল লেংথ ডেলিভারিটি একটু ভেতরে ঢুকে এমব্রিসের ব্যাটকে ফাঁকি দিয়ে আঘাত হানে প্যাডে। আম্পায়ার আউট দিলেও রিভিউ নেয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাঁচতে পারেননি এমব্রিস। ৭ রান করেই ফিরতে হয় তাকে। এর একটু পর বৃষ্টি নামলে খেলা বন্ধ করে দেন আম্পায়ার। সে সময় ৩ দশমিক ৩ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সংগ্রহ ১৫।

বৃষ্টির থামার পর ফের বাংলাদেশকে আনন্দে ভাসান মুস্তাফিজ। দারুণ এক ডেলিভারিতে ফিরিয়ে দেন ৯ রান করা জশোয়া ডি সিলভাকে। তবে এই উইকেটে প্রাপ্তিতে সবচেয়ে বেশি কৃতিত্ব দিতে হবে লিটন দাসকে। গালিতে ফিল্ডিং করা লিটন ডান দিকে ঝাপিয়ে দারুণভাবে লুফে নেন ক্যাচটি। ২৪ রানে দুই উইকেট হারানো ওয়েস্ট ইন্ডিজের জন্য বিপদ আরো বাড়ান প্রত্যাবর্তনে জ্বলে উঠা সাকিব আল হাসান। দলীয় ৪৫ রানে আন্দ্রে ম্যাকার্থিকে ফিরিয়ে দেন সাকিব। অফ স্টাম্পের বাইরে পড়া বলে সুইপ করতে চেয়েছিলেন ম্যাকার্থি, কিন্তু লাইন মিস করে সরাসরি বোল্ড হয়ে যান। এটি ঘরের মাঠে সাকিবের ১৫০ তম উইকেট। দলীয় ৫৬ রানে অধিনায়ক জেসন মোহাম্মদকে ফিরিয়ে ফের উইন্ডিজ শিবিরে ধাক্কা দেন সাকিব। সাকিবের ঘূর্ণিতে বেসামাল জেসন স্টাম্পিং হন মুশফিকুর রহিমের হাতে। রানের খাতায় আর কিছু যোগ হওয়ার আগে এনক্রুমাহ বোনারকেও লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন সাকিব।

এরপর কাইল মেয়ার্স ও রভম্যান পাওয়েল জুটি চেষ্টা করে ইনিংস মেরামতের। এ দুজন মিলে দলকে নিয়ে যান ১১৫ রানে। কিন্তু এরপর সফরকারী শিবিরে পরপর দুই বলে জোড়া আঘাত হানেন অভিষিক্ত হাসান মাহমুদ। প্রথমে দারুণ এক ডেলিভারিতে ফিরিয়ে দেন বিপজ্জনক হয়ে উঠা পাওয়েলকে। ৩১ বলে ২৮ রান করেন পাওয়েল। পরের বলেই  লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন রেমান রেইফেরকে। পরের ওভারেই উইকেট শিকারের তালিকায় নাম লেখান মেহেদী হাসান মিরাজ। হালকা টার্ন করা বলটি ঠিকঠাক খেলতে ব্যর্থ হয়ে লিটন দাসের তালুবন্দি হন মেয়ার্স। ৪০ রান আসে মেয়ার্সের ব্যাট থেকে। এক ওভার পর আবারো বল হাতে জাদু দেখান হাসান। এবার ফিরিয়ে দেন আকিল হোসেইনকে। এরপর শেষ উইকেটটি তুলে নিয়ে উইন্ডিজদের ১২২ রানেই গুটিয়ে দেন সাকিব।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন