শুক্রবার | ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ | ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারে প্রবেশের পরিকল্পনা করছে গ্র্যাব

বণিক বার্তা ডেস্ক

চলতি বছরে যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করছে দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম রাইডশেয়ারিং খাবার সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান গ্র্যাব। বিষয় সম্পর্কে অবগত তিনটি সূত্র বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছে, বিনিয়োগকারীরা দীর্ঘদিন ধরেই ইনিশিয়াল পাবলিক অফারিংস (আইপিও) ছাড়ার প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন।একটি সূত্র বলছে, গ্র্যাব আইপিও ছাড়ার মাধ্যমে অন্তত ২০০ কোটি ডলার সংগ্রহ করতে পারে। এমনটা হলে এটা হবে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার কোনো কোম্পানির বৃহত্তম আইপিও ছাড়।

সূত্রটির পক্ষ থেকে বলা হয়, বাজার বেশ ভালো এবং ব্যবসাও আগের চেয়ে অনেক ভালো করছে। পাবলিক মার্কেটেও এটি ভালোভাবে কাজ করা উচিত।

যদিও আকার এবং সময়সীমাসহ পরিকল্পনা এখনো চূড়ান্ত হয়নি, যা মূলত মার্কেটের পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে। সিঙ্গাপুরভিত্তিক গ্র্যাব অবশ্য সম্ভাব্য এই আইপিও তালিকাভুূক্তির ব্যাপারে মন্তব্য করতে সম্মত হয়নি।

গ্র্যাবকে যারা সমর্থন দিচ্ছে, সেই তালিকায় সফটব্যাংক গ্রুপ করপোরেশন এবং মিত্সুবিশি ইউএফজে ফাইন্যান্সিয়াল গ্রুপও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। একেবারে শুরু থেকেই দারুণ গতিতে বিস্তৃত হচ্ছে এই রাইডশেয়ারিং প্রতিষ্ঠানটি। ২০১২ সালে তারা মালয়েশিয়ার সবচেয়ে মূল্যবান স্টার্টআপে পরিণত হয়, যার বাজার মূলধন হাজার ৬০০ কোটি ডলার ছাড়িয়েছিল। সাম্প্রতিক সময়ে তারা সিঙ্গাপুরের ডিজিটাল ব্যাংক লাইসেন্সও অর্জন করেছে।

২০২০ সালে গ্র্যাবের সামগ্রিক আয় আগের বছরের তুলনায় ৭০ শতাংশ বেড়েছে এবং খুব সহজেই মহামারী-পূর্ব সময়ের চেয়ে আরো ভালো অবস্থান অর্জন করেছে। একটি সূত্র বলছে, দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগকারীরা তাদের শেয়ার কমালে এবং নতুন বিনিয়োগকারীরা তা গ্রহণ করলে আইপিওর মাধ্যমে ২০০ কোটি ডলার সংগ্রহ করতে পারবে গ্র্যাব।

২০১৮ সালে গ্র্যাবের কাছে উবার তাদের ব্যবসা বিক্রি করে দিলে তা বৈশ্বিক আকর্ষণের কেন্দ্রে দাঁড়ায়। বর্তমানে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার আটটি দেশের ৩৯৭টি শহরে কার্যক্রম পরিচালনা করছে গ্র্যাব। এর অ্যাপটি ডাউনলোড হয়েছে ২১ কোটি ৪০ লাখ বার।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন