বৃহস্পতিবার | ফেব্রুয়ারি ২৫, ২০২১ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৭

শেষ পাতা

তিন জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

বণিক বার্তা ডেস্ক

রাজধানী ঢাকাসহ তিন জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় ছয়জন নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার রাতে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর:

ঢাকা: রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে বাসচাপায় স্বামী-স্ত্রী নিহত হয়েছেন। গতকাল সকালে বিমানবন্দরের নির্মাণাধীন টার্মিনালের কাছে দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন মো. আকাশ ইকবাল (৩৩) তার স্ত্রী মায়া হাজারিকা (২৫)

বিমানবন্দর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মশিউল আলম জানান, আকাশ ইকবাল পদ্মা সেতু প্রকল্পে এবং মায়া হাজারিকা রাজধানীর একটি হোটেলে চাকরি করতেন। সকালে কর্মক্ষেত্রের উদ্দেশে মোটরসাইকেলে রওনা হয়েছিলেন। সড়কের কাওলা পদ্মা অয়েল গেটের সামনে এলে আজমেরী পরিবহনের একটি বাস তাদের ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা মারা যান।

লালমনিরহাট: গতকাল দুপুরে হাতীবান্ধা উপজেলার খানেরবাজার এলাকায় ট্রাকচাপায় ডিএসবির এসআইসহ দুজন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন কুড়িগ্রাম জেলার ভুরুঙ্গামারী উপজেলার বাসিন্দা ডিএসবির এসআই আব্দুল মতিন রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলার বাসিন্দা কনস্টেবল মজিবুল হক।

হাতীবান্ধা থানার ওসি এরশাদুল হক জানান, গতকাল সকালে নিহতরা সিঙ্গিমারী ইউনিয়নে যাওয়ার পথে খানেরবাজার এলাকায় বুড়িমারী থেকে ছেড়ে আসা পাথরবোঝাই ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ দুটি উদ্ধার করে।

হবিগঞ্জ: পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে সদর উপজেলায় একজন, লাখাইয়ে একজন মাধবপুর উপজেলায় আরেকজনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রোববার রাতে এসব দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন হবিগঞ্জ সদর উপজেলার রিচি গ্রামের দিদার আলীর ছেলে শাবাজ মিয়া (৩৮), মাধবপুর উপজেলার আদাঐর গ্রামের আনু মিয়ার ছেলে আলম মিয়া (৩৫) ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার দড়িয়াপুর গ্রামের ঠান্ডা মিয়ার ছেলে এসএম কেরামত আলী (৩৫)

স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, লাখাই উপজেলার বুল্লা ব্র্যাক কার্যালয়ের কর্মসূচি ম্যানেজার এসএম কেরামত আলী সকাল ৮টায় মোটরসাইকেলে হবিগঞ্জ থেকে কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন। পথে গাড়িচাপায় ঘটনাস্থলেই তিনি মারা যান। তবে কুয়াশার কারণে মরদেহ কেউ দেখতে পায়নি। কয়েক ঘণ্টা পর কুয়াশা কমলে স্থানীয়রা কেরামত আলীর মরদেহ তার মোটরসাইকেল রাস্তার পাশের খাদ থেকে উদ্ধার করে।

একই দিন সকালে মাধবপুর উপজেলার হোটেল হাইওয়ে ইনের পাশে গাড়িচাপায় আলম মিয়া নামে আরেকজন মারা গেছেন। তার মরদেহও দীর্ঘক্ষণ সড়কে পড়ে ছিল, কিন্তু কেউ দেখেনি। কুয়াশা কমলে স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পায়। খবর পেয়ে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

এর আগে রোববার রাতে ঢাকা থেকে শ্রীমঙ্গলগামী একটি বাস হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ভাদৈ এলাকায় ট্রাক্টরকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। এতে ট্রাক্টরের চালক শাবাজ মিয়া আহত হন। রাতেই তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃত্যু হয়।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাসুক আলী দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন