সোমবার | মার্চ ০১, ২০২১ | ১৬ ফাল্গুন ১৪২৭

শেষ পাতা

দ্বিতীয় ধাপে আজ ৬০ পৌরসভায় ভোট

নিজস্ব প্রতিবেদক

পৌরসভা নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে আজ দেশের ৬০টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। ভোট চলবে সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। ভোটগ্রহণের সব প্রস্তুতি শেষ করে এনেছে নির্বাচন কমিশন। ৩২টি পৌরসভায় ব্যালটে আর বাকি ২৮টিতে ভোট গ্রহণ করা হবে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম)

দ্বিতীয় ধাপের পৌরসভা নির্বাচনের জন্য ৬১টি পৌরসভার তফসিল ঘোষণা করা হয়। তবে সৈয়দপুর পৌরসভার মেয়র প্রার্থীর মৃত্যুর কারণে নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। নির্বাচনে মোট ভোটার ২২ লাখ ৪০ হাজার ২২৬ জন। এর মধ্যে পুুরুষ ভোটার ১১ লাখ হাজার ৪৩১ জন। নারী ভোটার ১১ লাখ ৩১ হাজার ৮৩১ জন। ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা হাজার ৮০। ভোটকক্ষ হাজার ৫০৮টি।

দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি (জাপা), ইসলামী আন্দোলন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি), জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলন (এনডিএম) এবং ন্যাশনাল পিপলস পার্টি (এনপিপি) থেকে প্রার্থীরা অংশ নিচ্ছেন। এর আগে প্রথম ধাপে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে পাঁচটি রাজনৈতিক দলের প্রার্থীরা অংশ নিয়েছিলেন। এবার আটটি রাজনৈতিক দল স্বতন্ত্র মিলে মেয়র প্রার্থী ২২১ জন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে হাজার ৩২০ জন আর সংরক্ষিত কাউন্সিলর হিসেবে ৭৪৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। নির্বাচনে আটটি রাজনৈতিক দল তাদের নিজস্ব প্রতীক নিয়ে অংশ নিচ্ছে। তবে ভোটের আগেই তিন পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

ইসি সচিবালয়ের যুগ্ম সচিব জনসংযোগ পরিচালক এসএম আসাদুজ্জামান জানিয়েছেন, এবার যেসব পৌরসভায় ব্যালট পেপারে ভোট নেয়া হবে, তার অনেকগুলোতেই সকালে (আজ) ব্যালট পাঠানো হবে। সুষ্ঠুু শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য পর্যাপ্ত আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য এবং ম্যাজিস্ট্রেট মোতায়েন করা হয়েছে। ভোটকেন্দ্র ছাড়াও নির্বাচনী এলাকাগুলোয় বিজিবি, পুলিশ, আনসার মোতায়েন করা হচ্ছে। পাশাপাশি থাকছে মোবাইল টিম স্ট্রাইকিং ফোর্সের সদস্যরা।

গত ২৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত প্রথম ধাপের নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হলেও দ্বিতীয় ধাপের নির্বাচনকে ঘিরে কয়েকটি জায়গায় উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। মূলত কাউন্সিলর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে ঘটনা ঘটছে।

দেশে পৌরসভার সংখ্যা ৩২৯। গত ২৮ ডিসেম্বর প্রথম ধাপের ২৩টি পৌরসভায় ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে ৬৫ দশমিক শতাংশ ভোট পড়েছে। তৃতীয় ধাপের ৬৪ পৌরসভায় ভোট হবে ৩০ জানুয়ারি। ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে ৫৮টি পৌরসভায় ভোট অনুষ্ঠিত হবে। স্থানীয় সরকার আইন সংশোধনের পর ২০১৫ সালে মেয়র পদে প্রথম দলীয় প্রতীকে ভোট হয় পৌরসভায়। সেবার ২০টি দল ভোটে অংশ নিয়েছিল।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন