মঙ্গলবার | জানুয়ারি ২৬, ২০২১ | ১৩ মাঘ ১৪২৭

খবর

বিটকয়েন প্রতারণায় রাতারাতি কোটিপতি, র‌্যাবের জালে যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশে বিট কয়েন প্রতারণা চক্রের মূলহোতা মো. রায়হান হোসেন ওরফে রায়হানকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে গাজীপুরের কালিয়াকৈর থানার সফিপুর দক্ষিণপাড়া আতর আলীর বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব বলছে, আসামির ব্যাংক অ্যাকাউন্ট পর্যালোচনা করে গত এক মাসে ৩৫ হাজার মার্কিন ডলার লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। এই সময়ে তিনি ১ কোটি ৭ লাখ টাকা দিয়ে একটি অডি গাড়ি কিনেছেন। 

অভিযানে তার কাছ থেকে ১৯টি ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র, ২২টি সিমকার্ড, ২৫ ডলারসহ ১ হাজার ২৭৫ টাকা, একটি কম্পিউটার, ৩টি সেলফোন, ৩টি ভুয়া চালান বই, একটি ট্রেড লাইসেন্স, একটি টিন সার্টিফিকেট, একটি রেকর্ডিং মাইক্রোফোন, একটি ক্যামেরা, একটি রাউটার, একটি হেডফোন, একটি মডেম, বিভিন্ন ব্যাংকের ৪টি চেকবই উদ্ধার করা হয়।

র‌্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস) কর্নেল তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার বলেন, বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ডিজিটাল মুদ্রা বিটকয়েন কেনাবেচা ও প্রতারণার মাস্টারমাইন্ড রায়হান সম্প্রতি ১ কোটি ৭ লাখ টাকা মূল্যের অডি গাড়ি কিনেছেন। মাত্র এক মাসে তার অ্যাকাউন্টে ৩৫ লাখ ডলার লেনদেনের তথ্য পাওয়া গেছে। তার একটি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে ৩৫ লাখ টাকার সন্ধান পাওয়া গেছে। রায়হানের প্রতারণার শিকার হয়েছেন বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষ। ২০০৬ সালে কম্পিউটারের ওপর প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন রায়হান।  ২০১১ সাল থেকে ওয়েব ডেভেলপিং, গ্রাফিক্স ডিজাইন, ইউটিউব চ্যানেল ইত্যাদি পরিচালনা করে আসছেন।

২০২০ সালের জুন থেকে পাকিস্তানি নাগরিক সাইদের সহায়তায় বিটকয়েনের মাধ্যমে প্রতারণা করে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছেন রায়হান। অনলাইন অ্যাকটিভিস্ট হিসেবে বিভিন্ন দেশের গ্রাহকের সঙ্গে বিটকয়েনের মাধ্যমে প্রতারণা শুরু করেন।  পাকিস্তান, নাইজেরিয়া এবং রাশিয়ার চোরাকারবারি, ক্রেডিট কার্ড হ্যাকার ও বিটকয়েনের মাধ্যমে অবৈধ পাচারকারীদের সঙ্গে যোগসাজশে সাধারণ মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছিলেন তিনি।  তিনি ক্রেডিট কার্ড হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বিটকয়েন কিনেন।  স্মার্ট ডিভাইস ব্যবহার করে নামে-বেনামে দেশী এবং বিদেশী অনলাইন ব্যাংক হিসাব তদারকি করে এখন পর্যন্ত ৩৫ হাজার ডলার হাতিয়ে নিয়েছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন