বুধবার | জানুয়ারি ২৭, ২০২১ | ১৩ মাঘ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

ভ্যাকসিন রফতানির সিদ্ধান্ত নিতে আরো কয়েক সপ্তাহ লাগতে পারে: জয়শঙ্কর

বণিক বার্তা ডেস্ক

ভারতে আজ মঙ্গলবার থেকে শুরু হয়েছে বিভিন্ন রাজ্যে কভিড টিকা সরবরাহ। আগামী শনিবার থেকে শুরু হবে টিকাপ্রয়োগ। এর পরিপ্রেক্ষিতে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রাহ্মনিয়ম জয়শঙ্কর বলেছেন, টিকা রফতানির বিষয়টি পরিষ্কার করতে তাদের আরো কয়েক সপ্তাহ সময় লাগবে।

আজ ‘রয়টার্স নেক্সট’ কনফারেন্সে এ কথা বলেন জয়শঙ্কর। তিনি বলেন, নিজেদের জনগণের জন্য ভ্যাকসিন পেতে বিদেশের সরকারগুলো অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে, সেই উৎকণ্ঠার কথা ভারত বুঝতে পারছে। তার কথায়, আমাদের নিজেদের কতটা লাগবে এবং কী পরিমাণ আমরা অন্যদের দিতে পারব এ ব্যাপারে শিগগিরই স্পষ্ট ধারণা পাবো। ভারত তার বৈশ্বিক ভূমিকা ভুলে যায়নি বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

আজ থেকে সেরাম ইনস্টিটিউট ভারতে কভিড ভ্যাকসিন সরবরাহ শুরু করেছে। অক্সফোর্ডের কভিড ভ্যাকসিনের সাড়ে ৫৬ লাখ ডোজ এরই মধ্যে ১৩টি শহরে পৌঁছে গেছে। আগামী শনিবার (১৬ জানুয়ারি) থেকে শুরু হবে গণটিকাদান কর্মসূচি।

এদিকে বাংলাদেশ, ব্রাজিলসহ বেশ কয়েকটি দেশ ভারত থেকে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন পেতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে। অনেক দেশ ভ্যাকসিন  উৎপাদক প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউটকে আগাম অর্থ পরিশোধও করেছে। অক্সফোর্ড ভ্যাকসিনের একটি চালান ত্বরান্বিত করার আহ্বান জানান জানিয়ে গত সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো।

এমন পরিস্থিতিতে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুব্রাহ্মনিয়ম জয়শঙ্কর জানালেন, ভ্যাকসিন রফতানির বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে ভারত সরকারের আরো কয়েক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে। কবে থেকে রফতানি শুরু করা হবে সেটি কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই পরিষ্কার করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

ভ্যাকসিন ও জেনেরিক ওষুধ বিশ্বে সবচেয়ে বেশি উৎপাদিত হয় ভারতে। এবার কভিড-১৯ ভ্যাকসিন উত্পাদনেও বিশ্বের কেন্দ্রস্থলে পরিণত হতে চলেছে দক্ষিণ এশিয়ার এ দেশ।

ভারতে অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রাজেনেকা উদ্ভাবিত কভিড ভ্যাকসিন উৎপাদন করছে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সেরাম ইনস্টিটিউট অব ইন্ডিয়া (এসআইআই)। সম্প্রতি বাংলাদেশ সরকারের তরফ থেকে বলা হয়েছে, ২৫ জানুয়ারির মধ্যেই সেরাম থেকে ভ্যাকসিনের প্রথম চালানটি পাওয়া যেতে পারে।

ভ্যাকসিন বিতরণে ভারতকে ভারসাম্য বজায় রাখতেই হচ্ছে। কেননা নিজেদের জনগণের বিশাল চাহিদা রয়েছে। বিশ্বে কভিড-১৯ সংক্রমণে যুক্তরাষ্ট্রের পরেই ভারত। জনবহুল এ দেশটিতে আজ মঙ্গলবার পর্যন্ত ১ কোটি ৪ লাখ ৭৯ হাজার মানুষ কভিডে সংক্রমিত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে দেড় লাখেরও বেশি মানুষের। কভিডে নাজুক ভারতে এ সপ্তাহের শেষের দিকেই ভ্যাসকিনের প্রয়োগ শুরু হবে বলে দিল্লি থেকে ভার্চুয়াল কনফারেন্সে জানিয়েছেন জয়শঙ্কর। ভারতজুড়ে শনিবার থেকে কোভিশিল্ডের প্রয়োগ শুরু হবে।  

পররাষ্ট্রমন্ত্রী জয়শঙ্কর বলেন, ভারতে শিগগিরই ভ্যাকসিন প্রয়োগের সূচনা করার পরিকল্পনা আমাদের। সত্যি বলতে কী, আমাদের নিজস্ব চ্যালেঞ্জও রয়েছে।

অন্য দেশগুলোর চাহিদা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বেশ কয়েকটি দেশ আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করছে। আমরা তাদের বলেছি, এটাতো প্রথম মাস। উৎপাদন মাত্রই শুরু হল, যা ধীরে ধীরে বাড়বে। বর্তমানে এর কিছু পরিমাণ মজুদও করা হচ্ছে।’ 

কোভিশিল্ড ছাড়াও ভারত বায়োটেক কর্তৃক উদ্ভাবিত দেশীয় ভ্যাকসিনকেও ছাড়পত্র দিয়েছে ভারতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। জয়শঙ্কর জানান, এছাড়া আরো চারটি ভ্যাকসিন ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল পর্যায়ে রয়েছে। এর মধ্যে অন্যতম জাইদুস কাদিলার জাইকভ-ডি ও রাশিয়ার স্পুটনিক ভি।

সূত্র: রয়টার্স ও এনডিটিভি

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন