শুক্রবার | ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১ | ১৩ ফাল্গুন ১৪২৭

খবর

বিশ্ব মৃত্তিকা দিবসের সেমিনারে কৃষিমন্ত্রী

খাদ্য ও পুষ্টিনিরাপত্তা নিশ্চিতে মাটির গুরুত্ব অপরিসীম

নিজস্ব প্রতিবেদক

কৃষিমন্ত্রী . মো. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, দেশের মানুষের খাদ্য পুষ্টি নিরাপত্তার জন্য মাটির গুরুত্ব অপরিসীম। মানুষের জীবন-জীবিকা খাদ্য নিরাপত্তা নির্ভর করে টেকসই মৃত্তিকা ব্যবস্থাপনার ওপর। দেশে বর্তমানে ১৭ কোটি মানুষ রয়েছে যা ক্রমে বাড়ছে, প্রতি বছর ২২ লাখ নতুন মুখ যুক্ত হচ্ছে। অন্যদিকে শিল্পায়ন, নগরায়ণ, বাড়িঘর নির্মাণ, রাস্তাঘাট তৈরিসহ নানা কারণে চাষের জমি কমছে। দুই চ্যালেঞ্জের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে জলবায়ু পরিবর্তন। এসব বিবেচনায় নিয়ে খাদ্য পুষ্টি নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হলে টেকসই উৎপাদন ব্যবস্থা শস্যের উৎপাদনশীলতা বাড়াতে হবে। সেজন্য মাটিকে সজীব রাখতে হবে, মাটির গুণাগুণ বজায় রাখতে হবে।

কৃষিমন্ত্রী গতকাল অনলাইনে বিশ্ব মৃত্তিকা দিবস পালন উপলক্ষে আয়োজিত সেমিনার, শোকেসিং এবং সয়েল কেয়ার অ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কথা বলেন।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, শুধু কৃষি নয়, মাছ, প্রাণিসম্পদ পোলট্রির খাদ্যও মাটি থেকে আসে। সেজন্য মাটিকে বাঁচিয়ে রাখতে হবে। এছাড়া দেশে খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি করতে গিয়ে শস্যের নিবিড়তা বাড়ছে কিন্তু মাটির উৎপাদনশীলতা কমে যাচ্ছে। টেকসই মাটি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে মাটির উৎপাদনশীলতা, মাটিতে গাছের অপরিহার্য পুষ্টি উপাদানের মান বজায় রাখতে হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি মৎস্য প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী রেজাউল করিম বলেছেন, মাটির উর্বরতা রক্ষা প্রয়োজন উপযোগী ব্যবহার নিশ্চিত করতে গবেষণায় প্রাধান্য দিতে হবে। এজন্য বিজ্ঞানমনস্ক চিন্তা দিয়ে, গবেষণালব্ধ জ্ঞান দিয়ে আমাদের নতুন কিছু সৃষ্টি করতে হবে। শুধু কৃত্রিম সার ব্যবহার করে বছরে একটার পর একটা ফসল উৎপাদনের দিকে ধাবিত হলে হবে না।

মৃত্তিকা সম্পদ উন্নয়ন ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক বিধান কুমার ভাণ্ডারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম। অতিথি ছিলেন এফএওর বাংলাদেশ প্রতিনিধি রবার্ট ডি সিম্পসন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের নির্বাহী চেয়ারম্যান . শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হাসানুজ্জামান কল্লোল।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন