মঙ্গলবার | জানুয়ারি ১৯, ২০২১ | ৬ মাঘ ১৪২৭

খবর

ওয়েবিনারে বক্তারা

বিদ্যুৎ উৎপাদনে জ্বালানির বিন্যাস সমান রাখতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়াতে সরকার জ্বালানি হিসেবে নানা ধরনের উপাদান ব্যবহার করছে। জীবাশ্ম জ্বালানি, নবায়নযোগ্য এমনকি এলএনজিভিত্তিক ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন সক্ষমতা বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে। বিদ্যুতের পাওয়ার সিস্টেম মাস্টারপ্ল্যান অনুযায়ী গ্যাস, কয়লা এবং নবায়নযোগ্য উৎসের ব্যবহার করে বিদ্যুতের উৎপাদন ক্ষমতা ভিন্ন ভিন্ন থাকলেও এখন তা সংশোধনের পরিকল্পনা করছে। ফলে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষেত্রে জ্বালানির বিন্যাস সমান রাখতে পারলে ভবিষ্যতে বিদ্যুৎ উৎপাদন লাভজনক পর্যায়ে যাবে।

গতকাল মিশ্র জ্বালানি ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদন চ্যালেঞ্জ শীর্ষক ওয়েবিনারে এমন কথা বলেন বক্তারা। এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার ম্যাগাজিন ওয়েবিনারটি আয়োজন করে। ওয়েবিনারটি সঞ্চালনা করেন এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার ম্যাগাজিনের সম্পাদক মোল্যাহ আমজাদ হোসেন।

এনার্জি অ্যান্ড পাওয়ার ম্যাগাজিনের কন্ট্রিবিউটর এডিটর প্রকৌশলী খন্দকার সালেক সুফী বলেন, নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পেতে আমাদের টেকসই জ্বালানির ব্যবহার বাড়াতে হবে। একই সঙ্গে শুধু গ্যাস বা কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনের ওপর নির্ভরশীল হলে চলবে না। এলএনজিসহ প্রাকৃতিক উৎসগুলো কাজে লাগিয়ে জ্বালানির নানামুখী ব্যবহার বাড়াতে হবে। দেশে উৎপাদিত কয়লা ব্যবহার করে বিদ্যুতের উৎপাদন বাড়ানো যেতে পারে। পাশাপাশি বিদ্যুৎ খাতে আধুনিক টেকনোলজি ব্যবহার করতে হলে দক্ষ মানবসম্পদ গড়ে তুলতে হবে।

মাইনিং ইঞ্জিনিয়ার মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান বলেন, বাংলাদেশে নবায়নযোগ্য জ্বালানির ক্ষেত্রে দুটির বাস্তবতা রয়েছে। এক হলো সোলার, অন্যটি বাতাস। তবে এখন পর্যন্ত বাতাস থেকে কোনো বেনিফিট আমরা পাই না। পায়রা থেকে ৫০ মেগাওয়াট একটা বাতাসভিত্তিক প্রকল্পের কথা চিন্তা করা হচ্ছে। তবে সেটি কতটুকু কস্ট কার্যকর হবে সেটা নিয়ে চিন্তা করতে হবে।

বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোক্তাদির আলী বলেন, আমরা যখন বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো তৈরি করি, তখন তার ডাইরেক্ট কস্ট বিবেচনায় নিই। অথচ ইনডাইরেক্ট কস্ট যোগ করলে এটার যে কস্ট কী পরিমাণে বেড়ে যায়, সেটি আমরা হিসাব করি না। তাছাড়া বিদ্যুৎ ব্যবহারকারীর ওপর কী ধরনের চাপ পড়ছে সেটা আমরা বিবেচনায় নিই না।

ওয়েবিনারে বিদ্যুৎ বিভাগের সিনিয়র সচিব নূরুল আলম, বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রকৌশলী সাঈদ আবদুল মাইয়্যিদ, বিপিডিবির সাবেক চেয়ারম্যান এএসএম আলমগীর কবির, বিপিডিপির সাবেক চেয়ারম্যান প্রকৌশলী খালেদ মাহমুদ, পেট্রোবাংলার সাবেক চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন