শনিবার | জানুয়ারি ১৬, ২০২১ | ৩ মাঘ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

নতুন প্রযুক্তিতে ৩৬৭ কোটি ডলার বিনিয়োগ করবে ডাইসন

বণিক বার্তা ডেস্ক

আগামী পাঁচ বছরে নতুন প্রযুক্তি পণ্য খাতে অতিরিক্ত ৩৬৭ কোটি ডলার বিনিয়োগ করতে যাচ্ছে ডাইসন, যা এই বিনিয়োগ কোম্পানিটিকে সুযোগ করে দেবে বর্তমান সময়ের চেয়ে দ্বিগুণ পণ্য বিক্রি করার এবং সেই সঙ্গে নিজেদের ব্যবসাকে আরো নানা খাতে বিস্তৃত করার। খবর বিবিসি।

নতুন এই বিনিয়োগের ক্ষেত্রে যেসব দেশের ওপর মনোযোগ দেয়া হচ্ছে সেগুলো হলো, সিঙ্গাপুর, যুক্তরাজ্য ফিলিপাইন। বিশেষত উদীয়মান প্রযুক্তিগুলোর ওপর চোখ রেখেই এই পরিকল্পনা সাজাচ্ছে ডাইসন। সাধারণত কোম্পানিটি ভ্যাকুয়াম ক্লিনার, এয়ার পিউরিফায়ার হেয়ার ড্রায়ার তৈরির জন্য অধিক পরিচিত। কিন্তু নতুন এই বিনিয়োগ প্রকৌশলী বিজ্ঞানীদের জন্য কাজের বাড়তি সুযোগ তৈরি করে দেবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে অগ্রাধিকার পাবেন সফটওয়্যার, মেশিন লার্নিং রোবটিকসে অভিজ্ঞ লোকজন।

ডাইসনের প্রধান নির্বাহী রোনাল্ড ক্রুয়েগার বলেন, এখন সময় হচ্ছে নতুন প্রযুক্তি যেমন এনার্জি স্টোরেজ, রোবটিকস সফটওয়্যার খাতে বিনিয়োগ করার, যা কিনা আমাদের পণ্যের পারফরম্যান্স স্থায়িত্ব নিশ্চিত করবে। এতে উপকৃত হবেন ডাইসনের গ্রাহকরা।

তিনি সময় আরো বলেন, আমরা আমাদের বিদ্যমান পণ্য বিভাগগুলোকে আরো বেশি প্রসারিত করব। পাশাপাশি পাঁচ বছর ধরে একদম নতুন ক্ষেত্রগুলোয় প্রবেশও করব, যা কিনা ডাইসনের উন্নয়নে নতুন অধ্যায়ের সূচনা করবে।

কোম্পানিটি বলছে, এরপর তারা রোবটিকস, নেক্সট জেনারেশন মোটর টেকনোলজি, ইন্টেলিজেন্ট প্রডাক্ট মেশিন লার্নিং খাতে গবেষণার জন্য বিনিয়োগ করবে। এছাড়া নিজেদের সলিড স্টেট ব্যাটারি প্রযুক্তির বাণিজ্যিকীকরণের ওপরও বাড়তি মনোযোগ দিচ্ছে কোম্পানিটি; যা যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, জাপান সিঙ্গাপুরে বিকাশমান অবস্থায় রয়েছে। কোম্পানিটি বলছে, তাদের প্রযুক্তি হবে বিদ্যমান বিকল্পগুলোর চেয়ে অধিক নিরাপদ, পরিচ্ছন্ন টেকসই।

কোম্পানিটি বলছে, তারা যুক্তরাজ্যে নিজেদের রোবটিকস গবেষণা এবং আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স প্রোগ্রামের বিস্তৃতিতে গুরুত্ব দিচ্ছে। সিঙ্গাপুরে ডাইসন উন্নত গবেষণা উন্নয়নের সুযোগগুলো প্রসারিত করবে, যা মেশিন লার্নিং, রোবটিকসসহ ক্রমবর্ধমান ক্ষেত্রগুলোকে কাভার করবে। পাশাপাশি সিঙ্গাপুরে কোম্পানিটি একটি নতুন গবেষণা প্রোগ্রামও প্রতিষ্ঠা এবং অগ্রসরমাণ উৎপাদন কেন্দ্র তৈরির পরিকল্পনা করছে। এছাড়া ফিলিপাইনের আলাবাংয়ে সফটওয়্যার কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনাও রয়েছে তাদের।

এছাড়া ডাইসনের পরিকল্পনা ছিল বৈদ্যুতিক মোটরগাড়ি তৈরি করার। কিন্তু মোটরগাড়ি ব্যবসায়িক দিক থেকে লাভজনক হবে না ভেবে পরে সেটি বাতিল করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন