বুধবার | জানুয়ারি ২০, ২০২১ | ৭ মাঘ ১৪২৭

আন্তর্জাতিক খবর

টিকা না নেয়া আমার অধিকার: ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

বণিক বার্তা অনলাইন

কভিড-১৯ মহামারীর মধ্যে দক্ষিণ আমেরিকায় সবচেয়ে নাকাল অবস্থা ব্রাজিলের। যদিও প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো তাতে খুব একটা গা করছেন না। যদিও নিজেই সম্প্রতি কভিড-১৯ থেকে সেরে উঠেছেন। এবার তিনি বলেছেন, করোনার ভ্যাকসিন নেবেন না। এটা তার অধিকারের মধ্যে পড়ে বলেও উল্লেখ করেছেন।

এদিকে গোটা ইউরোপ ও আমেরিকায় চলছে কভিডের দ্বিতীয় ঢেউ। ব্যাপকহারে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। হঠাৎ করে মৃত্যুর সংখ্যাও বেড়ে গেছে। অধিকাংশ দেশেই হাসপাতালগুলোর আইসিইউ বেড খালি নেই। 

এই পরিস্থিতি থেকে বাঁচতে প্রতিষেধকের অপেক্ষায় দিন গুনছে গোটা বিশ্ব। এরই মধ্যে মার্কিন ও ইউরোপীয় অন্তত তিনটি সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের কার্যকারিতা আশার দেখিয়েছে। চলমান আছে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল ব্রাজিলেও চলছে সম্ভাব্য প্রতিষেধকের ট্রায়াল চলছে।

কিন্তু খোদ ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বলে দিয়েছেন, তিনি কোনো টিকা নেবেন না। দেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে বিবৃতি দিতে গিয়ে গত বৃহস্পতিবার নিজের অবস্থান জানান বলসোনারো। সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বলেন, পরিষ্কার জানিয়ে দিচ্ছি, আমি কোনো ভ্যাকসিন না। এটা আমার অধিকারের মধ্যে পড়ে।

সর্বজনীন মাস্ক পরিধানের কার্যকারিতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বলসোনারো। সংক্রমণ প্রতিরোধ করতে মাস্ক আদৌ সক্ষম কিনা তা নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তিনি।

অবশ্য গত অক্টোবরেও বলসোনারো টুইট করে বলেন, টিকা যদি দিতেই হয়, তাহলে তার বাড়ির কুকুরকে দিতে হবে। এ বক্তব্যের জন্য তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি। কিন্তু বৃহস্পতিবারের বক্তব্যে স্পষ্ট, প্রেসিডেন্ট তার অবস্থান থেকে একচুলও নড়েননি। 

কভিড-১৯ প্রকোপে মৃত্যুর হিসাবে বিশ্বে দ্বিতীয় স্থানে ব্রাজিল। এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৭১ হাজার ৪৬০ রোগীর মৃত্যু হয়েছে দেশটিতে। গত জুলাইয়ে প্রেসিডেন্ট বলসোনারো নিজেও করোনায় আক্রান্ত হন। 

তা সত্ত্বেও মহামারী নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য থামেনি তার। করোনাভাইরাসকে তাচ্ছিল্য করে বক্তব্য দিয়েছেন। সামাজিক দূরত্ব, হাত ধোয়া, মাস্ক পরা ইত্যাদি স্বাস্থ্যবিধি কখনোই মানতে চাননি তিনি। 

সূত্র: আল জাজিরা

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন