মঙ্গলবার | জানুয়ারি ২৬, ২০২১ | ১৩ মাঘ ১৪২৭

দেশের খবর

শিক্ষার আলোবঞ্চিত হালুয়াঘাটের ৯১ গ্রামের শিশু

মুহাম্মদ আলমগীর কবীর, ময়মনসিংহ

ময়মনসিংহের সীমান্তবর্তী গারো পাহাড় অধ্যুষিত হালুয়াঘাট উপজেলার ৯১টি গ্রামে নেই কোনো প্রাথমিক বিদ্যালয়। গ্রামগুলোর হাজার হাজার শিশু শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত রয়েছে।

সচ্ছল অনেক পরিবার গ্রাম ছেড়ে বাধ্য হয়ে অন্য এলাকায় গিয়ে শিশুদের পড়ালেখা করাচ্ছেন, কেউবা কয়েক কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে অন্য গ্রামে পড়াশোনা করছে। এছাড়া কোনো কোনো গ্রাম দু-তিন কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত হওয়ায় অনেক গ্রামের ছোট শিশুরা ইচ্ছা থাকা সত্ত্বেও বিদ্যালয়ে যেতে পারে না। ফলে প্রতি বছর বিদ্যালয়ে গমনোপযোগী শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষার আলো থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, হালুয়াঘাট উপজেলার পৌর শহরসহ ১২টি ইউনিয়নের ২৬৮টি গ্রামের মধ্যে ১৭৭টি গ্রামে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশাপাশি ৩৮টি বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় রয়েছে। সব মিলিয়ে শিক্ষার হার শতকরা ৫৭ ভাগ। এর মধ্যে এখন পর্যন্ত কোনো প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপিত হয়নি পৌর শহরের একটি গ্রাম, ভুবনকুড়া ইউনিয়নের ১১টি গ্রাম, জুগলীর ইউনিয়নের তিনটি, কৈচাপুর ইউনিয়নের পাঁচটি, সদর ইউনিয়নের তিনটি, গাজিরভিটা ইউনিয়নের ১৫টি, বিলডোরা ইউনিয়নের সাতটি, শাকুয়াই ইউনিয়নের ১৮টি, নড়াইল ইউনিয়নের তিনটি, ধারা ইউনিয়নের সাতটি, ধুরাইল ইউনিয়নের পাঁচটি, আমতৈল ইউনিয়নের সাতটি স্বদেশী ইউনিয়নের ছয়টি গ্রামসহ মোট ৯১ গ্রামে।

জানা যায়, প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় (পরিকল্পনা শাখা-) কর্তৃক বিদ্যালয়বিহীন গ্রামে হাজার ৫০০ সরকারি বিদ্যালয় নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করে। বিদ্যালয় নির্মাণ প্রকল্পের শর্ত অনুযায়ী দানকৃত জমির পরিমাণ ন্যূনতম ৩০ শতক হবে, দানকৃত জমিটি অখণ্ড এবং বিদ্যালয় স্থাপনের উপযোগী হতে হবে। বিদ্যালয় গমনোপযোগী রাস্তা থাকতে হবে। দানকৃত জমি সচিব, প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নামে রেজিষ্ট্রেশন করার শর্তসহ যে গ্রামে জনসংখ্যা দুই হাজারেরও বেশি আর দুই কিলোমিটারের মধ্যে কোনো বিদ্যালয় নেই, ওইসব গ্রামে প্রাথমিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। পাশাপাশি বছর গত ১৫ মার্চ সিনিয়র সচিব মো. নূরুননবী কর্তৃক স্বাক্ষরিত প্রাথমিক গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় (পরিকল্পনা শাখা-) বিদ্যালয়বিহীন এলাকায় এক হাজার নতুন বিদ্যালয় স্থাপন শীর্ষক নতুন প্রকল্পের আওতায় বিদ্যালয়বিহীন এলাকা চি?হ্নিত সম্পর্কিত কমিটি গঠনের কথা বলা হয়। ওই পরিপত্রের আলোকে উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিস বিদ্যালয়বিহীন গ্রামের তালিকা তৈরি করে।

নতুন বিদ্যালয় স্থাপন প্রসঙ্গে উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার স্বপন কুমার সূত্রধর জানান, উপজেলায় বিদ্যালয়শূন্য গ্রামের তালিকা প্রস্তুত শেষে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সভায় বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে। প্রাথমিকভাবে উপজেলা প্রকৌশলীর কাছ থেকে নতুন বিদ্যালয় স্থাপনে ম্যাপ পেয়েছি। উপজেলার তিন-চারটি স্থানে বিদ্যালয় স্থাপনের বিষয়টি আলোচনায় উঠে এসেছে।

বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম জানান, বিদ্যালয়বিহীন গ্রামে বিদ্যালয় স্থাপনের কাজ শুরু করার বিষয়টি চলমান রয়েছে। তবে নীতিমালা অনুযায়ী বিদ্যালয় স্থাপনের লক্ষ্যে শিক্ষা কমিটি যাচাই-বাছাই করে যাচ্ছে। নতুন বিদ্যালয় স্থাপনের লক্ষ্যে শিগগিরই তালিকা প্রণয়ন করে মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন