বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ২৬, ২০২০ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

খেলা

অনাস্থা ভোটের আগেই পদত্যাগ করলেন বার্তোমেউ

বণিক বার্তা ডেস্ক

লিওনেল মেসি ইস্যুই কাল হলো বার্সেলোনা প্রেসিডেন্ট মারিয়া হোসেপ বার্তোমেউর জন্য। ইউরোপের অন্যতম সেরা এই ক্লাবটির শীর্ষ পদ থেকে সরে দাঁড়ালেন তিনি। মঙ্গলবার এক বৈঠক শেষে পুরো পরিচালনা পর্ষদসহ পদত্যাগ করেন বার্তোমেউ। খবর বিবিসি ও মার্কা।

বার্সেলোনার প্রথম প্রেসিডেন্ট হিসেবে অনাস্থা ভোটে বিদায় নিতে চাননি বার্তোমেউ। যদিও সমর্থকরা অনড় ছিলেন। কাতালোনিয়া সরকার অনাস্থা ভোটের অনুমতি দেয়ার পর নভেম্বরে দিনক্ষণও ঠিক হয়। ৬৬ শতাংশ ভোট হলেই প্রেসিডেন্টকে বিদায় করা সম্ভব, কিন্তু সমর্থকরা তার বিরুদ্ধে ৮০ শতাংশ ভোট ভোট জড়ো করার প্রত্যাশা করছিলেন। যদিও সেই ভোটের আর প্রয়োজন পড়ছে না।  

সদ্য গ্রীষ্মকালীন দলবদলে বার্সেলোনা ছেড়ে অন্য কোথাও চলে যেতে চেয়েছিলেন আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড মেসি। মূলত দলগঠন ও খেলোয়াড় কেনাবেচা নিয়ে বার্তোমেউর ওপর নাখোশ ছিলেন তিনি। সমর্থকরা মেসিকে রাখার জন্য ন্যু ক্যাম্পের সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন এবং একই সঙ্গে বার্তোমেউর পদত্যাগ দাবি করেন। সমর্থকদের দাবির মুখেও সেই সময় তিনি পদত্যাগ করেননি। এরপর ২০২০-২১ মৌসুম শুরু হলো, কয়েক রাউন্ডের খেলাও মাঠে গড়িয়েছে। অবশেষে তিনি পদত্যাগ করলেন। 

২০১৪ সাল থেকে বার্সার প্রেসিডেন্ট ছিলেন বার্তোমেউ। তার দ্বিতীয় মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল আগামী বছর মার্চে। কিন্তু অনাস্থা ভোটের মুখোমুখি হয়ে তাকে সরে যেতে হলে আগেভাগেই। সংবাদ সম্মেলনে বার্তোমেউ বলেন, নিজেদের সিদ্ধান্ত নিয়ে আমি ও পরিচালনা পর্ষদ খুশি। 

গত মৌসুমে বার্সেলোনা একটিও শিরোপা জিততে পারেনি। এছাড়া চ্যাম্পিয়ন্স লিগে টানা তিন মৌসুম শোচনীয়ভাবে ব্যর্থতা এবং অর্থনৈতিকভাবেও পিছিয়ে পড়ার কারণে ক্রমেই বার্তোমেউর ওপর ক্লাব সদস্য ও সমর্থকদের বিরক্তি বাড়ছিল। সর্বশেষ লিওনেল মেসি যখন ক্লাবের কাছে দলবদলের আবেদন জানান তখন সংকটে পড়ে যান বার্তোমেউ। এই দায়টা বার্তোমেউর ওপরই চাপান সমর্থকরা। যদিও চুক্তির জটিলতা নিয়ে শেষ পর্যন্ত চলতি মৌসুমে যাওয়া হয়নি মেসির। আর্জেন্টাইন সুপারস্টার বলেছেন, তিনি বার্তোমেউর কাছে প্রতারিত হয়েছেন।  

বার্সেলোনা ক্লাবের মালিক তাদের সমর্থকরা, যারা ক্লাব পরিচালনার জন্য ভোট দিয়ে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করেন। 

বিদায়ী বক্তব্যে বার্তোমেউ বলেছেন, অর্থনৈতিক ভবিষ্যত সুরক্ষিত করতে ইউরোপিয়ান সুপার লিগে যোগ দিতে চলেছে বার্সেলোনা। গত সপ্তাহে বিবিসির এক খবরে বলা হয়, ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোকে নিয়ে ৪৬০ কোটি পাউন্ডের ইউরোপিয়ান প্রিমিয়ার লিগ সৃষ্টি নিয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে, যদিও তা প্রাথমিক পর্যায়ে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন