রবিবার | নভেম্বর ০১, ২০২০ | ১৬ কার্তিক ১৪২৭

করোনা

হার্ড ইমিউনিটির বিরুদ্ধে ১৭টি স্বাস্থ্য সংস্থা

বণিক বার্তা ডেস্ক

হার্ড ইমিউনিটির কৌশলের সমর্থক, উৎসাহদাতাদের সমালোচনা করেছে বেশ কয়েকটি স্বাস্থ্য সংস্থা। তার বলছে, হার্ড ইমিউনিটি ধারণাটি ভুল। কভিড-১৯-এর সংক্রমণ সীমাবদ্ধ করতে হার্ড ইমিউনিটিকে ব্যবহার করা কৌশলের বিরুদ্ধে বিবৃতি দিয়েছে বেশ কয়েকটি সংগঠন।

আমেরিকান পাবলিক হেলথ অ্যাসোসিয়েশনের ওয়েবসাইটে সম্প্রতি বিবৃতি প্রকাশিত হয়েছে। বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছে ১৭টি সংগঠন, যার মধ্যে আছে ট্রাস্ট ফর আমেরিকা হেলথ, আমেরিকান একাডেমি অব সোস্যাল ওয়ার্ক সোস্যাল ওয়েলফেয়ার।  

সংস্থাগুলো তাদের বিবৃতিটি দিয়েছে অক্টোবর প্রকাশিত দ্য গ্রেট ব্যারিংটন ডিক্লারেশন শিরোনামের একটি খোলা চিঠির বিরুদ্ধে। দ্য গ্রেট ব্যারিংটন ডিক্লারেশনের স্বাক্ষর ছিল হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুল, স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল স্কুল অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের।

দ্য গ্রেট ব্যারিংটন ডিক্লারেশনকে সমর্থন দিয়েছেন হোয়াইট হাউজের সিনিয়র কর্মকর্তারা। ডিক্লারেশনে বলা হয়েছে, লকডাউনের কারণে জনস্বাস্থ্যের ওপর যে স্বল্প দীর্ঘমেয়াদি ভয়ানক প্রভাব দেখা গেছে তা রোধ করার একমাত্র উপায় হচ্ছে হার্ড ইমিউনিটি। অর্থাৎ লকডাউন না আরোপ করে সামনে হার্ড ইমিউনিটির মাধ্যমে কভিড-১৯ মহামারীকে মোকাবেলা করা।

খোলা চিঠিতে বলা হয়েছে, যাদের কভিডে মৃত্যুর ঝুঁকি কম তাদের স্বাভাবিক জীবনযাপন করতে দিতে হবে যেন তাদের মধ্যে প্রাকৃতিক প্রতিরোধ গড়ে ওঠে। অন্যদিকে যারা ঝুঁকিতে আছেন তাদের আলাদাভাবে সুরক্ষার ব্যবস্থা নিতে হবে। এর  বিরুদ্ধে ১৭টি সংগঠনের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, আমরা হার্ড ইমিউনিটির ধারেকাছে আছি এমন কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ নেই। তার বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রে এখনো ৮৫ থেকে ৯০ শতাংশ মানুষ আক্রান্তই হয়নি। হার্ড ইমিউনিটির চেষ্টা বিভিন্ন বর্ণের মানুষের জন্য বড় ঝুঁকি বয়ে আনবে।

হাফিংটন পোস্ট

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন