শুক্রবার | অক্টোবর ৩০, ২০২০ | ১৫ কার্তিক ১৪২৭

আন্তর্জাতিক ব্যবসা

ডিসেম্বরে ফের আকাশে উড়বে ‘অভিশপ্ত’ বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স!

বণিক বার্তা অনলাইন

সফটওয়্যারে মারাত্মক ত্রুটির কারণে পরপর কয়েকটি প্রাণঘাতি দুর্ঘটনার পর দেড় বছরের বেশি সময় ধরে বিশ্বজুড়ে গ্রাউন্ডেড বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের সব উড়োজাহাজ। তবে শিগগিরই গ্রাউন্ডেড উড়োজাহাজগুলো যাত্রী পরিবহন পরিষেবায় ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে আমেরিকান এয়ারলাইন্স। যদিও তাদের এই সিদ্ধান্তটি নির্ভর করছে যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল এভিয়েশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফএএ) থেকে ছাড়পত্র পাওয়ার ওপর। 

আজ রোববার এয়ারলাইন্সটি জানিয়েছে, ২৯ ডিসেম্বর থেকে ২৪ জানুয়ারি পর্যন্ত মিয়ামি-নিউইয়র্কের মধ্যে ৭৩৭ ম্যাক্স উড়োজাহাজ দিয়ে ফ্লাইট পরিচালনা করা হবে। আগামী ২৪ অক্টোবর থেকে ফ্লাইটের টিকিট বুকিং দেয়া যাবে।

সংস্থাটি একটি বিবৃতিতে বলেছে, আমরা ছাড়পত্রের প্রক্রিয়া নিয়ে এফএএ ও বোয়িংয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। ছাড়পত্র পাওয়ার সঙ্গে আমরা আমাদের পরিকল্পনা হালনাগাদ করতে থাকবো। 

দুটি মারাত্মক দুর্ঘটনায় ৩৪৬ জন নিহত হওয়ার পর নিরাপত্তা শংকায় গত বছরের মার্চ থেকে বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স উড়োজাহাজের উড্ডয়ন নিষিদ্ধ করা হয়। তবে আগামী নভেম্বরে এফএএ কিছু ক্ষেত্রে গ্রাউন্ডিং আদেশ তুলে নেবে বলে আশা করা হচ্ছে। 

২০১৮ সালের অক্টোবরে ইন্দোনেশিয়ার লায়ন এয়ারের ৭৩৭ ম্যাক্স মডেলের উড়োজাহাজটি উড্ডয়নের ১২ মিনিটের মাথায় জাভা সাগরে বিধ্বস্ত হয়। এসময় উড়োজাহাজটিতে থাকা ১৮৯ আরোহীর সবাই নিহত হয়। এরপর ২০১৯ সালে মার্চে দ্বিতীয়বারের মতো ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের ৭৩৭ ম্যাক্স  উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়। এসময় নিহত হয় ১৫৭ জন।

এরপরই নিরাপত্তা শংকায় একের পর এক দেশ বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্সের উড্ডয়ন নিষিদ্ধ করতে থাকে। উড়োজাহাজটিকে সেসময় ‘অভিশপ্ত’ হিসেবেও চিহ্নিত করা হয়েছিল। পরে তদন্তকারীরা দেখতে পান, দুটি দুঘটনাতেই উড়োজাহাজের ম্যান্যুভারিং ক্যারেক্টারিস্টিক্স অগমেন্টেশন সিস্টেমের (এমসিএএস) ত্রুটির সম্পর্ক রয়েছে। যদিও এটিকে সবচেয়ে আধুনিক ও জ্বালানি সাশ্রয়ী উড়োজাহাজ হিসেবে দাবি করেছিল বোয়িং।

সূত্র: রয়টার্স

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন