রবিবার | নভেম্বর ০১, ২০২০ | ১৬ কার্তিক ১৪২৭

পণ্যবাজার

চীন-অস্ট্রেলিয়ার রাজনৈতিক টানাপড়েন

অস্ট্রেলিয়ার কয়লা রফতানির ভবিষ্যৎ অন্ধকারে

বণিক বার্তা ডেস্ক

চীনের সঙ্গে কূটনৈতিক রাজনৈতিক টানাপড়েনের কারণে ২০২১ সালে অস্ট্রেলিয়ার কয়লা রফতানিতে বড় ধরনের পতন ঘটতে পারে। এরই মধ্যে অস্ট্রেলিয়া থেকে কয়লা আমদানি বন্ধ করেছে বেইজিং। চীন যদি অস্ট্রেলিয়া থেকে পুরোপুরি কিংবা বিরাট পরিমাণ কয়লা আমদানি বন্ধ করে দেয়, তবে তাদের দেশে বিপুল চাহিদা পূরণ করতে চোখ দিতে হবে অন্য বাজারের দিকে। যেমন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া দক্ষিণ আফ্রিকা। আর ইন্দোনেশিয়া থেকেও এরই মধ্যে শিপমেন্ট বেড়েছে। খবর লয়েড লিস্ট।

চীনের বিদ্যুৎকেন্দ্র ইস্পাত কারখানাগুলোকে মৌখিকভাবে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে, তারা যেন অস্ট্রেলিয়া থেকে আমদানি করা কয়লার ব্যবহার দ্রুত বন্ধ করে। বন্দরগুলোকেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে, তারা যেন অস্ট্রেলিয়া থেকে আসা কোনো কয়লা খালাস না করে। এছাড়া চীনের শুল্ক প্রশাসন অস্ট্রেলিয়া থেকে কয়লা আমদানির বিষয়ে তাদের নজরদারি জোরদার করবে বলে জানিয়েছেন সংস্থাটির এক মুখপাত্র।

চলতি বছর বেশ কয়েকটি ইস্যুতে চীন অস্ট্রেলিয়ার মধ্যে কূটনৈতিক টানাপড়েন তৈরি হয়। এরই মধ্যে ক্যানবেরার বেশ কয়েকটি কূটনৈতিক পদক্ষেপের বিরোধিতা করে বেইজিং বলেছে, এসব পদক্ষেপের মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া আসলে যুক্তরাষ্ট্র-চীন দ্বন্দ্বে ওয়াশিংটনের পক্ষ নিয়েছে। গত এপ্রিলে অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসন জানিয়েছিলেন, চীনের উহান শহরে কীভাবে নভেল করোনাভাইরাসের উত্পত্তি হলো তা ছড়িয়ে পড়ল, সে বিষয়ে নিরপেক্ষ তদন্ত চালাবেন তারা। ঘোষণাও ভালোভাবে নেয়নি বেইজিং। এছাড়া চীনের বৃহত্তম ভোগ্যপণ্য সরবরাহকারীর কাছ থেকে কৃষিপণ্য আমদানি বন্ধ করেছিল অস্ট্রেলিয়া, যা দেশ দুটির মধ্যকার কূটনৈতিক সম্পর্ক আরো জটিল করে তুলেছে।

চীনের নিষেধাজ্ঞার কারণে অবশ্য চলতি বছর খুব বড় ধরনের প্রভাব অস্ট্রেলিয়ার রফতানির ওপর পড়বে না। কিন্তু ২০২১ সালের রফতানির ওপর বিরাট প্রভাব ফেলবে বলে জানিয়েছে এসঅ্যান্ডপি প্ল্যাটস। সংস্থাটির এক হিসাব বলছে, শুধু ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকেই কোটি ২০ লাখ টন থার্মাল কয়লার শিপমেন্ট বাতিল হবে অস্ট্রেলিয়ার।

এমন পরিস্থিতিতে ইন্দোনেশিয়া থেকে কয়লা আমদানি বাড়াতে হচ্ছে চীনকে। কিন্তু এখানে খানিকটা সংকটও রয়েছে। অস্ট্রেলিয়ার কয়লার চেয়ে ইন্দোনেশিয়ার কয়লার তাপন মূল্য কম। তাই রাশিয়া কিংবা দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে চীনকে কয়লা আমদানি করা লাগতে পারে বলে মনে করছেন এজেন্সির জ্যেষ্ঠ বিশ্লেষক ম্যাথিউ বয়েল।

অস্ট্রেলিয়ার থার্মাল মেটালার্জিক্যাল কয়লার সবচেয়ে বড় আমদানিকারক চীন। এখন পর্যন্ত চলতি বছরের প্রথম আট মাসে তারা চীনে কোটি ৮৬ টন থার্মাল কয়লা কোটি ১৬ লাখ টন মেটালার্জিক্যাল কয়লা রফতানি করেছে, যা ২০১৯ সালের তুলনায় যথাক্রমে ৪৬ লাখ টন ৮৫ লাখ টন বেশি।

প্রতি বছর অস্ট্রেলিয়া যে পরিমাণ মেটালার্জিক্যাল কয়লা রফতানি করে, তার এক-চতুর্থাংশই যায় চীনে। জাপানের পর এশিয়ায় অস্ট্রেলিয়ার থার্মাল কয়লা রফতানিতে দ্বিতীয় শীর্ষ গন্তব্য চীন। ২০১৯-২০ অর্থবছরে চীনে থার্মাল কয়লা রফতানি বাবদ অস্ট্রেলিয়ার আয় হাজার ৫০০ কোটি অস্ট্রেলীয় ডলারে নেমে আসার পূর্বাভাস দেয়া হয়েছে, আগের অর্থবছরে যা ছিল হাজার কোটি অস্ট্রেলীয় ডলার।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন