বুধবার | অক্টোবর ২১, ২০২০ | ৫ কার্তিক ১৪২৭

শেষ পাতা

ইন্টারনেট বন্ধের সিদ্ধান্ত স্থগিত

নিজস্ব প্রতিবেদক

বিকল্প ব্যবস্থা না করে রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশন থেকে ঝুলন্ত তার অপসারণের কাজ বন্ধ না করলে দিনে ঘণ্টা ইন্টারনেট সেবা বন্ধ রাখার যে ঘোষণা ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (আইএসপিএবি) দিয়েছিল, তা স্থগিত করা হয়েছে। ফলে আপাতত ইন্টারনেট সেবা বন্ধ হচ্ছে না। গতকাল ডাক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে বৈঠকের পর সিদ্ধান্ত জানিয়েছে আইএসপিএবি।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন কর্তৃক ওভারহেড ইন্টারনেট কেবল টিভির কেবল অপসারণে গৃহীত কর্মসূচির প্রতিবাদে আইএসপিএবি এবং কোয়াব আজ রোববার থেকে ধর্মঘট কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছিল।

ধর্মঘট প্রত্যাহারের লক্ষ্যে ডাক টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার জরুরি এক জুম বৈঠকে সংগঠন দুটির সঙ্গে মিলিত হন। বৈঠকে তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক এবং ডাক টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব মো. আফজাল হোসেন সংযুক্ত ছিলেন। বৈঠকে আইএসপিএবির প্রতিনিধিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিনুল হাকিম এবং কোয়াবের প্রতিনিধিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আনোয়ার পারভেজ। সরকারের আহ্বানে ধর্মঘট প্রত্যাহার করায় মন্ত্রী উভয় সংগঠনকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

টেলিযোগাযোগমন্ত্রীর সঙ্গে ফলপ্রসূ বৈঠকের পর আইএসপিএবি কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) ঘোষিত ধর্মঘট কর্মসূচি স্থগিত করা হয়েছে। তবে বিষয়ে স্থায়ী কোনো সমাধান না এলে আগামী শনিবার থেকে ধর্মঘটে যাওয়ার সিদ্ধান্তও জানিয়েছেন আমিনুল হাকিম।

টেলিযোগাযোগমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকের পর ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসে আমিনুল হাকিম বলেন, বিষয়ে রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) কার্যালয়ে বৈঠক হবে। ওই মিটিংয়ে কোনো সমাধান না এলে আমরা আগামী শনিবার থেকে আবার ধর্মঘটে যাব। মাননীয় মন্ত্রী (মোস্তাফা জব্বার) আমাদের আশ্বাস দিয়েছেন, তিনি আমাদের সংকট নিয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা করবেন। এখন সে বৈঠকের জন্য দুই, তিন বা চারদিন যতই সময় লাগুক আমরা অপেক্ষা করব। আশা করছি, সপ্তাহের মধ্যেই আমরা ফলপ্রসূ সমাধান পাব।

পরে টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, আমি বলেছি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমরা যত দ্রুত পারি সিদ্ধান্ত নেব। এখন তিনি কবে আমাদের সঙ্গে মিটিংয়ে বসেন, সেটা কিন্তু আমি এখনই বলতে পারব না।

এর আগে বিকল্প ব্যবস্থা না করে রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশন থেকে ঝুলন্ত তার অপসারণের কাজ বন্ধ না করলে রোববার থেকে প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত সারা দেশে ইন্টারনেট কেবল টিভি সেবা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছিল ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ এবং কেবল অপারেটরস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (কোয়াব) তাদের ঘোষণায় উদ্বেগ জানিয়েছিলেন ব্যাংক খাতের কর্মকর্তারা। ইন্টারনেট বন্ধ থাকলে ব্যাংক মোবাইলে কোনো ধরনের আর্থিক লেনদেন সম্ভব হবে না বলে সতর্ক করেছিলেন তারা।

এদিকে নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে অনলাইনের ক্লাস নেয়া বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষ স্কুলের সময় পাল্টে সকালের বদলে রাতে ক্লাস নেয়ার সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিয়েছে। পরিস্থিতিতে গতকাল বিকালে বিষয়টির সুরাহায় উদ্যোগী হন টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন