শুক্রবার | অক্টোবর ৩০, ২০২০ | ১৫ কার্তিক ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

সিটিও ফোরাম ইনোভেশন সেন্টারের যাত্রা

নিজস্ব প্রতিবেদক

দেশের প্রধান কারিগরি কর্মকর্তাদের সংগঠন সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের ইনোভেশন সেন্টারের উদ্বোধন হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে এক ভার্চুয়াল আয়োজনের মাধ্যমে সিটিও ফোরাম ইনোভেশন সেন্টার উদ্বোধন করেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

বাংলাদেশ সরকারের তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগের অতিরিক্ত সচিব এবং সিটিও ফোরাম বাংলাদেশের সহসভাপতি বিকর্ণ কুমার ঘোষের সঞ্চালনায় উদ্বোধনী আয়োজনে অডিও ভিজ্যুয়াল উপস্থাপনার মাধ্যমে ইনোভেশন সেন্টারের কার্যক্রম তুলে ধরেন সিটিও ফোরামের যুগ্ম সচিব এবং ইউসিবিএল ব্যাংকের ডিএমডি আবদুল্লাহ আল মামুন।

সিটিও ফোরাম ইনোভেশন সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে অংশগ্রহণ চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সময়ে প্রযুক্তির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে নতুন উদ্ভাবনে সাহায্য করবে ইনোভেশন সেন্টার। বিশ্বের অন্যতম প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যামাজনের সহযোগিতায় দেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে দক্ষ জনবল তৈরিতে ইনোভেশন সেন্টারটি কাজ করবে। তরুণরাই জাতির ভবিষ্যৎ। তাদের ক্লাউড, এআই, ব্লকচেইনসহ নতুন নতুন প্রযুক্তি শিখতে হবে। আমাদের দেশের জনসংখ্যার অধিকাংশই তরুণ। তারাই আধুনিক প্রযুক্তি উদ্ভাবনে দেশকে নেতৃত্ব দেবে।

সিটিও ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি তপন কান্তি সরকার বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ তৈরিতে সিটিও ফোরাম ২০১২ সাল থেকে কাজ করছে। সরকারের বিভিন্ন তথ্যপ্রযুক্তি নীতিমালা বাস্তবায়ন প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে সিটিওরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। দেশের প্রতি দায়বদ্ধতা দেশপ্রেমের আরেকটি উদাহরণ আজকের ইনোভেশন সেন্টার। এখান থেকে সমস্যার বাস্তবিক সমাধানে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে প্রোটোটাইপ তৈরি করা হবে এবং পরবর্তী সময়ে সরকারি এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো এসব সমাধান ব্যবহারের মাধ্যমে উপকৃত হতে পারবে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন