শুক্রবার | অক্টোবর ৩০, ২০২০ | ১৫ কার্তিক ১৪২৭

শেয়ারবাজার

দোয়েল গ্রুপের কোম্পানি ও ডিবেঞ্চার তালিকাচ্যুতির সিদ্ধান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

দোয়েল গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের মালিকানাধীন ওটিসি মার্কেটের চার কোম্পানি এবং দুটি তালিকাভুক্ত ডিবেঞ্চার তালিকাচ্যুত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) গতকাল বিএসইসির চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৭৪২তম কমিশন সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

কমিশন সভা শেষে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক (চলতি দায়িত্ব) মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম স্বাক্ষরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, দোয়েল গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কর্তৃক ইস্যু করা দুটি তালিকাভুক্ত ডিবেঞ্চার বিডি জিপার ১৪ শতাংশ ডিবেঞ্চার বিডি লাগেজ ১৪ শতাংশ ডিবেঞ্চার এবং ওটিসি মার্কেটে লেনদেনকৃত চারটি কোম্পানি বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, বাংলাদেশ ডায়িং অ্যান্ড ফিনিশিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড, বাংলাদেশ লাগেজ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এবং বাংলাদেশ জিপার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের সাধারণ প্রাতিষ্ঠানিক শেয়ারহোল্ডার ডিবেঞ্চারহোল্ডারদের বিনিয়োগকৃত অর্থ দাবি আদায়ের জন্য সিকিউরিটিজগুলোর লেনদেন সাময়িকভাবে বন্ধ করে তালিকাচ্যুতির প্রক্রিয়ার শুরুর বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে দুই স্টক এক্সচেঞ্জে একটি এসক্রো অ্যাকাউন্ট যৌথভাবে পরিচালনার মাধ্যমে ডিবেঞ্চার শেয়ারহোল্ডারদের অর্থ দাবি অভিহিত মূল্যে কিংবা ইস্যু মূল্যে কিংবা নেগোশিয়েটেড মূল্যে পরিশোধ করা হবে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে ১৯৯৬ সালে তালিকাভুক্ত বিডি জিপার ১৪ শতাংশ বিডি লাগেজ ১৪ শতাংশ ডিবেঞ্চারের সর্বশেষ সমাপনী মূল্য ছিল ৭৮৪ টাকা। আর ওটিসিতে থাকা বাংলাদেশ কেমিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড ১৯৯২ সালে তালিকাভুক্ত হয়। ১০০ টাকা অভিহিত মূল্যের কোম্পানির শেয়ার সর্বশেষ ১৭ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির মোট ১১ লাখ ৭৫ হাজার ২৮০টি শেয়ারের মধ্যে ২৯ দশমিক ৩৮ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী এবং ২৭ দশমিক ৫৭ শতাংশ শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে।

১৯৯৪ সালে তালিকাভুক্ত বাংলাদেশ ডায়িং অ্যান্ড ফিনিশিং ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ারের অভিহিত মূল্য ১০০ টাকা। কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ ২২ টাকা ৩০ পয়সায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির মোট ১২ লাখ শেয়ারের মধ্যে ৪১ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী এবং ১৯ শতাংশ শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে।

১৯৯৬ সালে তালিকাভুক্ত বাংলাদেশ লাগেজ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ারের অভিহিত মূল্য ১০০ টাকা। কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ ১৪ টাকায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির মোট ২০ লাখ শেয়ারের মধ্যে ২৩ দশমিক ৭০ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী এবং ২৬ দশমিক ৩০ শতাংশ শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে।

১৯৯৫ সালে তালিকাভুক্ত বাংলাদেশ জিপার ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের শেয়ারের অভিহিত মূল্য ১০০ টাকা। কোম্পানিটির শেয়ার সর্বশেষ ১৭ টাকায় লেনদেন হয়েছে। কোম্পানিটির মোট লাখ ৮০ হাজার শেয়ারের মধ্যে ৩৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী এবং ২৮ দশমিক ১৫ শতাংশ শেয়ার সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে।

ওটিসিতে থাকা চার কোম্পানি দীর্ঘদিন ধরেই ব্যবসায় সুবিধা করতে পারছে না এবং ধারাবাহিক লোকসানের মধ্যে রয়েছে। ফলে কোম্পানিগুলোয় বিনিয়োগকারীদের পুঁজিও দীর্ঘদিন ধরে আটকে রয়েছে। বিএসইসির নতুন চেয়ারম্যান কমিশনাররা দায়িত্ব নেয়ার পর ওটিসিতে কোম্পানিগুলোর অচলাবস্থা নিরসনের উদ্যোগ নেয়। এরই ধারাবাহিকতায় দোয়েল গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের সঙ্গে কমিশনের আলোচনার পরিপ্রেক্ষিতে চার কোম্পানি দুই ডিবেঞ্চারকে তালিকাচ্যুত করে বিনিয়োগকারীদের অর্থ ফেরত দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন