বৃহস্পতিবার | নভেম্বর ২৬, ২০২০ | ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭

দেশের খবর

টানা বৃষ্টি

তলিয়ে গেছে নওগাঁর ২ হাজার হেক্টর আমন ধান

বণিক বার্তা প্রতিনিধি নওগাঁ

টানা বৃষ্টি উজান থেকে নেমে আসা ঢলের পানিতে আত্রাই নদীর পানি বিপত্সীমার ৫৫ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এদিকে গত বন্যায় মান্দায় আত্রাই নদীর বাঁধের ভাঙা অংশ মেরামত না করায় ওই অংশ দিয়ে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করছে। বন্যার ক্ষতি কাটিয়ে না ওঠার আগেই টানা বৃষ্টিতে হাজার ২৮৮ হেক্টর জমির রোপা আমন ধান তলিয়ে গেছে। বন্যার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে ক্ষতির পরিমাণ বাড়বে বলে আশঙ্কা কৃষি বিভাগের।

গতকাল সকাল ৯টায় নওগাঁ শহরের লিটন ব্রিজ পয়েন্টে ছোট যমুনা নদীর পানি বিপত্সীমার মাত্র ২৬ সেন্টিমিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হলেও আত্রাই নদীর শিমুলতলী পয়েন্টে বিপত্সীমার ৫৫ সেন্টিমিটার জোতবাজার পয়েন্টে বিপত্সীমার ১৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হয়।

মান্দা উপজেলার বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম বলেন, জুলাইয়ের বন্যায় বাঁধভাঙা পানিতে প্রায় ২০ দিন ধরে বিষ্ণুপুর ইউনিয়নের প্রায় সব কয়টি গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়েছিল। বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হলে আগস্টের মাঝামাঝি সময়ে কৃষকরা আমনের চারা রোপণ করেছিলেন। নদীর পানি বেড়ে যাওয়ায় গত বুধবার থেকে জোকাহাট, চকরামপুর কয়লাবাড়ি এলাকায় বাঁধের ভাঙন স্থান দিয়ে আবারো পানি ঢুকতে শুরু করেছে। সদ্য রোপণ করা আমন চারা ডুবে যাওয়ায় আবারো ক্ষতির সম্মুখীন হলেন কৃষকরা।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মো. শামসুল ওয়াদুদ জানান, জেলার আত্রাই উপজেলায় ৮৮০ হেক্টর, মান্দায় ৫৭৫ হেক্টর রানীনগরে ৩৫০ হেক্টরসহ জেলায় কয়েকটি উপজেলায় আবারো বন্যার পানি ঢুকে তৃতীয় দফায় নতুন করে আরো হাজার ২৮৮ হেক্টর জমির রোপা আমন ধান পানিতে তলিয়ে গেছে। নদীর পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে কৃষকদের ক্ষতির পরিমাণ আরো বৃদ্ধি পাবে।

নওগাঁ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আরিফুজ্জামান খান বলেন, নওগাঁর শিমুলতলী পয়েন্টে আত্রাই নদীর পানি বিপত্সীমার ৫৫ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে শনিবার সকাল ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টায় পানির উচ্চতা বেড়েছে ৪৫ সেন্টিমিটার। আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী, আগামী দু-তিনদিন পানি কিছুটা বাড়বে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন