মঙ্গলবার | অক্টোবর ২০, ২০২০ | ৫ কার্তিক ১৪২৭

খবর

ব্যয় হবে ৭০০ কোটি টাকা

মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণে পরামর্শক নিয়োগে চুক্তি সই

নিজস্ব প্রতিবেদক

কক্সবাজারের মহেশখালী উপজেলার মাতারবাড়ীতে গভীর সমুদ্রবন্দর নির্মাণ প্রক্রিয়ায় পরামর্শক নিয়োগে চুক্তি হয়েছে। দুই পরামর্শক প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশের ব্যয় হবে ৭০০ কোটি টাকা।

গতকাল হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে -সংক্রান্ত দুটি চুক্তিপত্র স্বাক্ষরিত হয়েছে। চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের (চবক) কার্যক্রম সংক্রান্ত প্রকল্প পরিচালক জাফর আলম এবং জাপানের নিপ্পন কোয়ের প্রতিনিধি নাওকি কুডো প্রকৌশলগত বিষয়ের চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন। মাতারবাড়ী বন্দর উন্নয়ন প্রকল্পের (বন্দর সংযোগ সড়ক অংশ) সড়ক মহাসড়ক বিভাগের (আরএইচডি) কার্যক্রম সংক্রান্ত প্রকল্প পরিচালক মো. সাদেকুল ইসলাম এবং জাপানের ওরিয়েন্টাল কনসালট্যান্ট গ্লোবাল কোম্পানি লিমিটেডের প্রতিনিধি শুনজি ইউশিহারা সড়ক মহাসড়ক বিভাগ সংক্রান্ত চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করেন। এতে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত ছিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান এবং নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয় জানায়, সমুদ্রের ১৮ দশমিক মিটার গভীরতার বন্দর নির্মাণ প্রক্রিয়ায় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগের মাধ্যমে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে নিয়েছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ। জাপানের নিপ্পন কোয়ে যৌথ কোম্পানি এবং জাপানের ওরিয়েন্টাল কনসালট্যান্ট গ্লোবাল কোম্পানি লিমিটেড যৌথ কোম্পানি দুটিকে প্রকল্পটির পরামর্শক হিসেবে চূড়ান্ত নিয়োগ করা হয়েছে। নিপ্পন কোয়ে পরামর্শক প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রকল্পের যাবতীয় ডিজাইন ব্যয় নির্ধারণ, টেন্ডার ডকুমেন্টস তৈরি এবং অবকাঠামোগত নির্মাণের বিষয়গুলো মনিটরিং এবং তদারকি করা হবে। পরে পরামর্শক প্রতিষ্ঠান ইকুইপমেন্ট সংগ্রহ থেকে শুরু করে বন্দর চালু করে দেয়ার বিষয়টি সমন্বয় করবে। তারা বন্দর চালু হওয়ার এক বছর পর্যন্ত পরামর্শক প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রয়োজনীয় সব ধরনের সাপোর্ট দেবে। এজন্য প্রতিষ্ঠানটিকে ২৩৪ কোটি টাকা দেয়া হবে। ওরিয়েন্টাল কনসালট্যান্ট গ্লোবাল কোম্পানি লিমিটেড প্রকল্পের (বন্দর সংযোগ সড়ক অংশ) সড়ক মহাসড়ক বিভাগের কার্যক্রম সংক্রান্ত পরামর্শ প্রদান করবে। এজন্য ব্যয় হবে ৪৬৬ কোটি টাকা।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন