রবিবার | অক্টোবর ২৫, ২০২০ | ১০ কার্তিক ১৪২৭

টেলিকম ও প্রযুক্তি

১৮ মাস গ্রামজুড়ে ইন্টারনেট বিপর্যয় ঘটাল এক পুরনো টেলিভিশন!

বণিক বার্তা অনলাইন

দৈনিক ঠিক সকালবেলা পুরো গ্রামের ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বহু চেষ্টা করেও এর কোনো কুলকিনারা করতে পারছিল না। এমনকি পুরো গ্রামেই ব্রডব্যান্ড তার পরিবর্তন করেও কোনো সমাধান হয়নি। টানা ১৮ মাস ধরে চলেছে এই সমস্যা। অবশেষে জানা গেল একটি পুরনো টেলিভিশন এর জন্য দায়ী। অবশেষে সেই টেলিভিশনের ব্যবহারকারীকে চিহ্নিত করা গেছে এবং তিনি ডিভাইসটি আর চালু না করতে রাজি হয়েছেন।

ঘটনাটি ঘটেছে যুক্তরাজ্যের ওয়েলশের একটি গ্রামে। এই ঘটনার রহস্য ভেদ করতে প্রকৌশলীদের একটি টিমকে ওই অ্যাবারহোসান গ্রামে নিয়োজিত করা হয়। তারা রীতিমতো গোয়েন্দা স্টাইলে কাজে নেমে পড়েন। সর্বশেষ স্থানীয় প্রকৌশলী মাইকেল জোনসকে এই টিমে কাজ করার জন্য ডাকা হয়। 

প্রথমে তারা পুরো গ্রামের সংযোগ তার চষে বেড়ান। কিন্তু কোথাও কোনো ত্রুটি খুঁজে পান না। সবশেষে তারা একটি তত্ত্ব ধরে এগোতে থাকেন। তারা ধরে নেন, সিঙ্গেল হাইলেভেল ইমপালস নয়েজ (শাইন) নামে বিশেষ একটি বৈদ্যুতিক অবস্থার কারণে এমনটি হয়ে থাকতে পারে। এ তত্ত্বে ধরে নেয়া হয়, কোনো বৈদ্যুতিক যন্ত্রের তরঙ্গ উপরিপাতন ঘটিয়ে ব্রডব্যান্ড সংযোগে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে।

এ বিষয়টি শনাক্ত করতে প্রকৌশলীরা স্পেকট্রাম অ্যানালাইজার নামে একটি বিশেষ যন্ত্র ব্যবহার করেন। এই যন্ত্র নিয়ে দলটি গ্রামের আনাচে কানাচে ঘুরতে থাকে। একদিন সকাল ৬টার দিকে বৃষ্টির মধ্যে বেরিয়ে পড়েন তারা। ঘড়ির কাঁটা যখন ঠিক ৭টায় গিয়ে স্থির হয়েছে তখনই দেখা গেল ডিভাইসটিতে বড় ধরনের বৈদ্যুতিক উপরিপাতনের সংকেত দিল। পরে এই নয়েজের উৎস খুঁজতে গিয়ে দেখা গেল একটি বাড়ি থেকে সেটি আসছে। 

সেই বাড়িতে গিয়ে দেখা গেল গৃহস্থ একটি পুরনো সেকেন্ডহ্যান্ড টেলিভিশন চালান। আর দৈনিক সকাল ৭টায় তিনি এটি চালু করেন। আর তখনই ব্রডব্যান্ড লাইনের সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। ১৮ মাস ধরে এ ঘটনাই ঘটছে।

বিষয়টি জানার পর ওই টিভির মালিক তো আকাশ থেকে পড়েন! তাকে বুঝিয়ে বলা হয় বিষয়টি। পরে তিনি আর এই টিভি ব্যবহার না করতে রাজি হন। টিভিটি বন্ধ করার পর আর কখনো এই সমস্যা হয়নি বলে কোম্পানির পক্ষ থেকে আজ মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

তবে কোম্পানির ওয়েলশ এলাকার প্রধান প্রকৌশলী সুজান রুথারফোর্ড বলেন, এ ধরনের সমস্যা কিন্তু নতুন নয়। এটি অহরহই ঘটে। ঘরের বাইরের বাতি, মাইক্রোওয়েভ ওভেন, সিসিটিভি থেকে শুরু করে যে কোনো হোমঅ্যাপ্লায়েন্স এমন সমস্যা তৈরি করতে পারে।

চলতি বছরের শুরুর দিকে যুক্তরাজ্যের টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা অফকম সতর্ক করে বলে, বাসার মাইক্রোওয়েভ আপনার ওয়াইফাই ডিভাইসের সিগন্যাল দুর্বল করে দিতে পারে। এ কারণে লকডাউনের সময় এই ধরনের সমস্যা এড়াতে আলাদা নির্দেশনাও দিয়েছিল অফকম।

সূত্র: সিএনএন

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন