রবিবার | অক্টোবর ২৫, ২০২০ | ১০ কার্তিক ১৪২৭

খবর

নারায়ণগঞ্জে আটজনকে গ্রেফতারের প্রতিবাদে তিতাসে ‘কর্মবিরতি’

নিজস্ব প্রতিবেদক

নারায়ণগঞ্জের বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় তিতাস গ্যাসের সাময়িক বহিষ্কৃত চার প্রকৌশলীসহ আটজনকে গ্রেফতারে ‘কর্মবিরতি পালন করছেন’ সংস্থাটির প্রধান কার্যালয়ের কর্মকর্তারা। তারা আজ রোববার বিকেল ৫টার দিকে মানববন্ধন কর্মসূচিও পালন করতে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। 

তিতাসের অভ্যন্তরীণ একটি সূত্র জানিয়েছে, গতকাল নাারয়ণগঞ্জে চার প্রকৌশলীসহ আটজন গ্রেফতারের খবর পাওয়ার থেকেই রাজধানীর কাওরান বাজারে অবস্থিত তিতাসের প্রধান কার্যালয়ে অস্থিরতা শুরু হয়েছে। আজ রোববার কর্মকর্তারা তাদের দৈনন্দিন কাজ বন্ধ রেখেছেন। বিকেলে মানববন্ধনের প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে বিস্ফোরণের ঘটনায় গতকাল শনিবার দুপুরে ‘গাফিলতি থাকায় সাক্ষ্যপ্রমাণের ভিত্তিতে’  তিতাসের সাময়িক বহিষ্কৃত আট কর্মকর্তা ও কর্মচারীকে গ্রেফতার করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাদের পাঁচদিনের রিমান্ড আবেদন করলে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত।

রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া আটজনের মধ্যে রয়েছেন তিতাসের ফতুল্লা অঞ্চলের ব্যবস্থাপক প্রকৌশলী মো. সিরাজুল ইসলাম, উপব্যবস্থাপক মাহামুদুর রহমান রাব্বী, সহকারী প্রকৌশলী এসএম হাসান শাহরিয়ার, সহকারী প্রকৌশলী মানিক মিয়া, সিনিয়র সুপারভাইজার মো. মুনিবুর রহমান চৌধুরী, সিনিয়র উন্নয়নকারী মো. আইউব আলী, হেলপার মো. হানিফ মিয়া ও কর্মচারী মো. ইসমাইল প্রধান।

গতকাল বিকালে গ্রেফতারকৃত আসামিদের অধিকতর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ সিআইডি পুলিশ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাউসার আলমের আদালতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পাঁচদিনের রিমান্ডের আবেদন করে প্রেরণ করা হয়। এ সময় রাষ্ট্রপক্ষ পুলিশের সাব-ইন্সপেক্টর রবিউল আলম আদালতকে বলেন, তল্লা মসজিদের বিস্ফোরণের ঘটনায় ৩২ জন মারা গিয়েছেন। বিষয়টি বাংলাদেশের আলোচিত ঘটনা। গ্রেফতারকৃত আসামিদের অবহেলার কারণেই তিতাস গ্যাসের লাইনের লিকেজ থেকে গ্যাস নির্গত হয়। বিদ্যুতের লাইন পরিবর্তনের সময় স্পার্ক করে আগুনের সূত্রপাত হয়ে বিস্ফোরণ ঘটে। তাই এত মানুষের প্রাণহানি হয়। এ কারণে তাদের জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন রয়েছে। তাই রিমান্ড মঞ্জুরের জন্য আবেদন জানান তিনি।

অন্যদিকে আসামিপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সুলতান মাহমুদ জানান, আসামিরা কেউ ছয় মাস, কেউবা সাত মাস কেউবা তারও কম সময় ধরে নারায়ণগঞ্জে কর্তব্যরত রয়েছেন। মসজিদে বিস্ফোরণের সঙ্গে তাদের সম্পৃক্ততা নেই। এ কারণে রিমান্ডের বিরোধিতা করে আসামিদের জামিন প্রার্থনা করেন তিনি। তবে আদালত দুই পক্ষের শুনানি শেষে চার প্রকৌশলীসহ আট কর্মকর্তা-কর্মচারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

প্রসঙ্গত, ৪ সেপ্টেম্বর রাত পৌনে ৯টায় সদর উপজেলার পশ্চিম তল্লা এলাকায় বাইতুস সালাত জামে মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে মসজিদের ইমাম, মুয়াজ্জিন, জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, শিক্ষার্থী, সাংবাদিক ও শিশুসহ ৩৯ জন দগ্ধ হয়। তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শেখ হাসিনা প্লাস্টিক সার্জারি ও বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। গতকাল দুপুর পর্যন্ত ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এখন পর্যন্ত আইসিইউতে আশঙ্কাজনক রয়েছেন চারজন।

এ ঘটনায় ৫ সেপ্টেম্বর ফতুল্লা থানার এসআই হুমায়ন কবির বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামি করে ফতুল্লা থানায় মামলা দায়ের করেন। পরবর্তী সময়ে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন