শনিবার | সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ | ১১ আশ্বিন ১৪২৭

শেয়ারবাজার

এনআরবি ইকুইটি ম্যানেজমেন্টকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সিকিউরিটিজ আইন লঙ্ঘনের দায়ে এনআরবি ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট লিমিটেডকে ১০ লাখ টাকা জরিমানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)। আজ বুধবার বিএসইসির ৭৪০তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বিএসইসির সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এনআরবি ইকুইটি ম্যানেজমেন্টের  গ্রাহক মো. সবুজ হাওলাদারের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কমিশনের এসআরআই বিভাগ তদন্ত করে কয়েকটি সিকিউরিজি আইন লঙ্ঘনের প্রমাণ পেয়েছে। কোম্পানিটি তার গ্রাহকের এবং তাদের সরবরাহকৃত তথ্য ও নথিপত্র উপযুক্তভাবে শনাক্ত ও যাচাই না করেই ২৪৬টি হিসাব খুলে ডিপজিটরি (ব্যবহারিক) প্রবিধানমালা, ২০০৩-এর বিধি ২৬(১) ও সিডিবিএল বাই ল’জের রুল ৭.৩.৩ ভঙ্গ করেছে।

কোম্পানিটি একটি অমনিবাস হিসাবের বিপরীতে স্বতন্ত্র বিও অ্যাকাউন্ট না খুলে এবং একটি বিও অ্যাকাউন্টের (নং ১০৬৫৭৬০০৬১২১৫১৩৯) বিপরীতে ৩০৭টি হিসাব পরিচালিত করে বিএসইসির নির্দেশনা (নং- এসইসি/সিএমআরআরসিডি/২০০৯-১৯৩/১৪২, তারিখ- ডিসেম্বর ৩০, ২০১২) ভঙ্গ করেছে।

কোম্পানিটি তার গ্রাহকের এবং তাদের সরবরাহকৃত তথ্য নথিপত্র উপযুক্তভাবে শনাক্ত ও যাচাই না করে ৩০৫টি হিসাব খুলে ডিপজিটরি (ব্যবহারিক) প্রবিধানমালা, ২০০৩-এর বিধি ২৬(১) ও সিডিবিএল বাই ল’জের রুল ৭.৩.৩ ভঙ্গ করেছে।

কাম্পানিটি একটি অমনিবাস /বিও অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে দুইটির বেশি অ্যাকাউন্ট থেকে আইপিওতে আবেদনের মাধ্যমে আমান কটন ফাইব্রাস লিমিটেড (এসিএফএল) ও বসুন্ধরা পেপার মিলস লিমিটেডের (বিপিএমএল) কনসেন্ট লেটারের ৯ নং শর্ত ভঙ্গ করেছে। দ্য সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স, ১৯৬৯ অনুযায়ী এ শর্ত আরোপ করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, এসআরআই বিভাগের পরিদর্শন প্রতিবেদনে মো. সবুজ হাওলাদার কর্তৃক কোম্পানির কিছু দুর্নীতিগ্রস্ত কর্মকর্তার সহযোগে বেআইনিভাবে অ্যাকাউন্ট খোলার বিষয়টি প্রমাণ হয়েছে এবং পরবর্তীতে এনআরবি ইকুইটি ম্যানেজমেন্ট লিমিটেড কর্তৃক অ্যাকাউন্টগুলো বন্ধ করা হয়েছে। এছাড়া কোম্পানিটি মো. সবুজ হাওলাদারের নামে জিডি ও মামলা করেছে, যা এখনও বিচারাধীন।

সিকিউরিটিজ আইন লঙ্ঘনের জন্য কমিশনের আজকের সভায় এনআরবি ইকুইটি ম্যানেজমেন্টকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এই জরিমানার অর্থ ৩০ কার্যদিবসের মধ্যে কমিশনে জমা দিতে হবে। নির্ধারিত সময়ে জরিমানা না দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং একইসঙ্গে সনদ বাতিল ও স্থগিত করার ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এছাড়া কমিশন আজকের সভায় সিকিউরিটিজ আইন লঙ্ঘনের জন্য তিনটি প্রতিষ্ঠানকে সতর্ক করা সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ওই তিন প্রতিষ্ঠানের নাম উল্লেখ করা হয়নি।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন