শনিবার | সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২০ | ১১ আশ্বিন ১৪২৭

পণ্যবাজার

প্রাক্কলনের তুলনায় উত্তোলন কমে আসছে যুক্তরাষ্ট্রে

বণিক বার্তা ডেস্ক

নভেল করোনাভাইরাসের বৈশ্বিক মহামারীর জের ধরে চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলনে ধস নামতে যাচ্ছে, এটা প্রায় অনুমেয়। তবে মার্কিন এনার্জি ইনফরমেশন অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (ইআইএ) সাম্প্রতিক পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মন্দা ভাব বজায় থাকলেও চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি পণ্যটির উত্তোলন আগের প্রাক্কলনের তুলনায় বাড়তে পারে। খবর রয়টার্স সিএনবিসি।

গত মাসে প্রকাশিত ইআইএর শর্ট টার্ম এনার্জি আউটলুকে বলা হয়েছিল, চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের কূপগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে লাখ ৯০ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলন কমে আসতে পারে। তবে প্রতিষ্ঠানটির সাম্প্রতিক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের কূপগুলো থেকে ২০২০ সালে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের দৈনিক গড় উত্তোলন কমতে পারে লাখ ৭০ হাজার ব্যারেল। অর্থাৎ দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় উত্তোলন হ্রাসের প্রাক্কলন লাখ ২০ হাজার ব্যারেল কমিয়ে এনেছে ইআইএ।

প্রতিষ্ঠানটির সাম্প্রতিক পূর্বাভাস অনুযায়ী, চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রের কূপগুলো থেকে প্রতিদিন গড়ে কোটি ১৩ লাখ ৮০ হাজার ব্যারেল অপরিশোধিত জ্বালানি তেল উত্তোলনের সম্ভাবনা রয়েছে। আর ২০২১ সালে দেশটিতে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় উত্তোলন কমতে পারে তিন লাখ ব্যারেল।

উত্তোলন কমার পাশাপাশি চলতি বছর দেশটিতে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের চাহিদাও কমে আসতে পারে। প্রতিষ্ঠানটির পূর্বাভাস অনুযায়ী, ২০২০ সালে যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি পণ্যটির দৈনিক গড় চাহিদা দাঁড়াতে পারে কোটি ৮৪ লাখ ২০ হাজার ব্যারেলে, যা আগের বছরের তুলনায় দৈনিক ২১ লাখ ২০ হাজার ব্যারেল কম।

করোনাকালে একদিকে উত্তোলন কমে আসা, অন্যদিকে চাহিদায় পতন মার্কিন জ্বালানি তেল খাতের জন্য শাপে বর হতে পারে বলে মনে করছেন খাতসংশ্লিষ্টরা। তাদের মতে, চাহিদা কমলে এমনিতেই যেকোনো পণ্যের দাম বাড়ে। তার ওপর যদি উত্তোলন খাতে মন্দা ভাব বজায় থাকে, তবে আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত জ্বালানি তেলের কাঙ্ক্ষিত মূল্যবৃদ্ধিতে তা সহায়ক হবে। আগামী বছর নাগাদ দেশটিতে জ্বালানি তেলের দাম বর্তমানের তুলনায় বেড়ে ব্যারেলপ্রতি ৫৫-৬০ ডলারে উন্নীত হতে পারে।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন