সোমবার | সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ | ৫ আশ্বিন ১৪২৭

দেশের খবর

নারায়ণগঞ্জে শীতলক্ষ্যায় নিখোঁজ ২ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার, গ্রেফতার ৬

বণিক বার্তা প্রতিনিধি, নারায়ণগঞ্জ

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে ইস্পাহানী এলাকায় শীতলক্ষ্যা নদীতে নিখোঁজ দুই কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজের সাত ঘণ্টা মিহাদ ও জিসান নামে ওই দুই শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। 

তবে পুলিশ ও নিহতদের পরিবারে দাবি, পূর্বপরিকল্পিতভাবে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে পানি ফেলে দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। জমি সংক্রন্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের লোকজন এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে বলে অভিযোগ করা হচ্ছে। 

এ ঘটনায় জিসানের বাবা ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত আরো সাতজনকে আসামি করে বন্দর থানায় মামলা দায়ের করেছেন। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ছয়জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। 

 পুলিশ ও নিহদের পরিবারের দাবি, স্থানীয় সাংবাদিক কাজিম উদ্দিনের সঙ্গে একই এলাকার মোক্তার হোসেন, আলী আহমেদ ও  কাসেমের জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এই বিরোধের জের ধরেই গতকাল সোমবার বিকালে বন্দরের বিএম ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী জিসানকে তার খালাত ভাই ও বন্ধু বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। রাতে তারা বাড়িতে ফেরায় স্বজনরা খোঁজাখুঁজি শুরু করে। রাত ১১টায় নদীতে জাল ফেলে জিসান ও মিহাদের মরদেহ পাওয়া যায়। খবর পেয়ে বন্দর থানা পুলিশ গিয়ে মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য সদর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়। আজ দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। 

জিসানের বাবা কাজিম উদ্দিনের অভিযোগ, পূর্বপরিকল্পিতভাবে তার ছেলে জিসানসহ মিহাদকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে প্রতিপক্ষের লোকেরা মারধর করে পানিতে ফেলে হত্যা করেছে। মোক্তার হোসেন, আলী আহমেদ, কাসেমসহ অন্য আসামিরা তাদের হত্যা করেছে। 

এদিকে বন্দরের  কমদরসুল কজেলে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র  মিহাদকে হারিয়ে শোকে মাতাম করেছেন  পরিবারের সদস্যরা। মিহাদের বাবা নাজিম উদ্দিন খানের অভিযোগ, জিসান ও মিহাদ বন্ধু ছিল। জিসানকে বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যাওয়ার সময় তার সঙ্গে ছিল মিহাদ।  

এদিকে নিহত জিসানের বাবা বন্দর প্রেস ক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজিমউদ্দিন বাদী হয়ে ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো সাতজনসহ মোট ২০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেছেন।  পুলিশ মামলার এজাহারভুক্ত ছয় আসামিকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- মোক্তার হোসেন, আলী আহমেদ, কাসেম, আলবি, আনোয়ার হোসেন ও শিপলু।

আজ সকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার খোরশেদ আলম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন