বৃহস্পতিবার | সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২০ | ৯ আশ্বিন ১৪২৭

খবর

হ্যাকাথনে বিজয়ী স্টার্টআপদের মেন্টরিং প্রোগ্রামের উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ-ভারত যৌথভাবে আয়োজিত জাতীয় হ্যাকাথনের বিজয়ী ১০ স্টার্টআপ নিয়ে মেন্টরিং প্রোগ্রাম শুরু হয়েছে। গতকাল এই মেন্টরিং প্রোগ্রামের উদ্বোধন করেন তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম। দেশের ১০টি জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যার তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক উদ্ভাবনী সমাধানের লক্ষ্যে সমাপ্ত ন্যাশনাল হ্যাকাথন অন ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজিস-এর বিজয়ী দলগুলোর প্রায় ৩০ জন উদ্ভাবক মাসব্যাপী এই মেন্টরিং প্রোগ্রামে অংশ নিচ্ছে।

করোনার কারণে অনলাইনের মাধ্যমে মেন্টরিং প্রোগ্রামটি অনুষ্ঠিত হবে। তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের আওতায় বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের অধীনে উদ্ভাবন উদ্যোক্তা উন্নয়ন একাডেমি প্রতিষ্ঠাকরণ প্রকল্প (আইডিয়া) এবং ভারতীয় তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান টেক মাহিন্দ্রা লিমিটেড এর আয়োজন করছে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন টেক মাহিন্দ্রা লিমিটেডের করপোরেট অ্যাফেয়ার্সের সভাপতি সুজিত বক্সী, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেব গ্লোবাল ইনোভেশন প্রধান নিখিল মালহোত্রা। অনলাইন অনুষ্ঠানটি সভাপতিত্ব করেন আইডিয়ার প্রকল্প পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সৈয়দ মজিবুল হক। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন আইডিয়া প্রকল্পের উপপরিচালক কাজী হোসনে আরা, টেক মাহিন্দ্রা লিমিটেডের ফাংশন হেড অব ইনোভেশন ম্যানেজমেন্ট এভিপি শ্রীনি চেটলাপল্লি, হেড অব স্টার্টনেট অ্যান্ড ক্যাম্পাস কানেক্ট উমেশ কাদ, কাস্টমার রিলেশন বিভাগীয় প্রধান মেকারস ল্যাবের প্রতিনিধি আকাশ দলাস, বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার দেবাশীষ মিত্র প্রমুখ।

অনলাইনে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের শুরুতে মুজিব বর্ষ উপলক্ষে একটি বিশেষ অডিও-ভিজুয়াল প্লে করার মাধ্যমে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করা হয়।

উল্লেখ্য, সারা দেশ থেকে নির্বাচিত প্রায় ১৫০ জন উদ্ভাবকের সমন্বয়ে ৫১টি টিম নিয়ে বাংলাদেশের ১০টি জনগুরুত্বপূর্ণ সমস্যার তথ্যপ্রযুক্তিভিত্তিক উদ্ভাবনী সমাধানের লক্ষ্যে শুরু হয় ন্যাশনাল হ্যাকাথন অন ফ্রন্টিয়ার টেকনোলজিস। প্রাথমিক বাছাইকৃত ৩৪৯টি টিম থেকে নির্বাচিত ৫১টি দল মূল হ্যাকাথনে অংশ নিয়েছে, যাদের মেন্টরিং করেছে ৪০ জন মেন্টরের সমন্বয়ে গঠিত একটি দক্ষ টিম। হ্যাকাথনে ১০টি চ্যালেঞ্জের জন্য ১০টি জাজিং বোর্ড গঠন করা হয়, যেখানে ৩০ জন অভিজ্ঞ বিচারক চূড়ান্ত বিজয়ীদের বাছাই করেন। গত ২৯ ফেব্রুয়ারি হ্যাকাথনের সমাপনী অনুষ্ঠানে এই হ্যাকাথন থেকে প্রাপ্ত সেরা ১০টি ইনোভেশনকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন