বুধবার | সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২০ | ৮ আশ্বিন ১৪২৭

পণ্যবাজার

১১ মাসে ১৩ হাজার টন তুলা রফতানি পাকিস্তানের

বণিক বার্তা ডেস্ক

পাকিস্তানের তুলা রফতানি খাতে চাঙ্গা ভাব দেখা মিলেছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে (২০১৯ সালের জুলাই থেকে চলতি বছরের মে পর্যন্ত) দেশটি থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে পণ্যটির রফতানি আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ৯৮৬ টন বেড়ে প্রায় ১৩ লাখ টনে উন্নীত হয়েছে। তবে রফতানির পরিমাণ বাড়লেও সময় তুলা রফতানি করে দেশটির আয় আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ১০ শতাংশ কমেছে। পাকিস্তান ব্যুরো স্ট্যাটিস্টিকসের (পিবিএস) প্রতিবেদনে তথ্য জানানো হয়েছে। খবর বিজনেস রেকর্ডার ডন।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে ১২ হাজার ৭৭৬ টন তুলা রফতানি হয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের একই সময়ে পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে মোট ১১ হাজার ৭৯০ টন তুলা রফতানি হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে দেশটি থেকে পণ্যটির রফতানি বেড়েছে ৯৮৬ টন।

২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-মে সময়ে তুলা রফতানি করে পাকিস্তানের রফতানিকারকরা মোট কোটি ৭০ লাখ হাজার ডলার আয় করেছেন বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় দশমিক ৯৩ শতাংশ কম। আগের অর্থবছরের একই সময়ে তুলা রফতানি করে পাকিস্তানের রফতানিকারকরা মোট কোটি ৮৮ লাখ ৭৯ হাজার ডলার আয় করেছিলেন। অর্থাৎ বছরের ব্যবধানে তুলা রফতানি বাবদ পাকিস্তানের আয় কমেছে ১৮ লাখ ৭৪ হাজার ডলার।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাসে পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে সব মিলিয়ে লাখ ৭৬ হাজার ২৮৬ টন সুতি সুতা রফতানি হয়েছে। ২০১৮-১৯ অর্থবছরের একই সময়ে পাকিস্তান থেকে আন্তর্জাতিক বাজারে মোট লাখ হাজার ৫৮০ টন সুতি সুতা রফতানি হয়েছিল। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে দেশটি থেকে পণ্যটির রফতানি কমেছে ২৭ হাজার ২৯৪ টন।

২০১৯-২০ অর্থবছরের জুলাই-মে সময়ে সুতি সুতা রফতানি করে পাকিস্তানের রফতানিকারকরা মোট ৯১ কোটি লাখ ৮২ হাজার ডলার আয় করেছেন বলে প্রতিবেদনে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি, যা আগের অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ১৩ দশমিক ১২ শতাংশ কম। আগের অর্থবছরের একই সময়ে সুতি সুতা রফতানি করে পাকিস্তানের রফতানিকারকরা মোট ১০৪ কোটি ৮০ লাখ ডলার আয় করেছিলেন। অর্থাৎ বছরের ব্যবধানে তুলা রফতানি বাবদ পাকিস্তানের আয় কমেছে ১৩ কোটি ডলারের বেশি।

উল্লেখ্য, পাকিস্তানে ২০১৯-২০ অর্থবছর শেষ হয়েছে। তবে সময় দেশটি থেকে তুলা রফতানির পূর্ণাঙ্গ হিসাব এখনো প্রকাশ করেনি পিবিএস। আগামী মাসে হিসাবের তথ্য প্রকাশিত হতে পারে।

 

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন