সোমবার | সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০ | ৫ আশ্বিন ১৪২৭

খবর

কভিড-১৯

দেশে আরো ৩২ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত শনাক্ত ২৬১১

বণিক বার্তা অনলাইন

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আরো ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটির সংক্রমণে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়াল ৩ হাজার ৩৬৫ জনে। এছাড়া একই সময়ে নতুন করে ২ হাজার ৬১১ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছেন। এ নিয়ে সর্বমোট ২ লাখ ৫৫ হাজার ১১৩ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত শনাক্ত হল।

আজ শনিবার (৮ আগস্ট) দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন হেলথ বুলেটিনে অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) নাসিমা সুলতানা এসব তথ্য জানান।

দেশের মোট ৮৪টি ল্যাবের তথ্য তুলে ধরে নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১১ হাজার ৫২৯টি। আগের কিছু নমুনাসহ পরীক্ষা করা হয়েছে ১১ হাজার ৭৩৭টি। এ নিয়ে দেশে মোট ১২ লাখ ৪৯ হাজার ৫০৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হলো। 

এছাড়া একদিনে সুস্থ হয়েছেন আরো এক হাজার ২০ জন। এ নিয়ে মোট এক লাখ ৪৬ হাজার ৬০৪ জন রোগী সুস্থ হলেন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৫৭ দশমিক ৪৭ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ২২ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং এ পর্যন্ত শনাক্তের হার ২০ দশমিক ৪২ শতাংশ। তবে দেশে শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৩২ শতাংশ।

নাসিমা সুলতানা জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত ৩২ জনের মধ্যে পুরুষ ২৫ জন ও নারী সাতজন। এ পর্যন্ত পুরুষ মারা গেছেন দুই হাজার ৬৫৫ জন, যা শতাংশের হিসাবে ৭৮ দশমিক ৯০ শতাংশ এবং নারী মারা গেছেন ৭১০ জন, শতাংশের হিসাবে ২১ দশমিক ১০ শতাংশ।

২৪ ঘণ্টায় মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে তিনি জানান, মৃতদের ২১ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের মধ্যে একজন রয়েছেন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের চারজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের ১২ জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের ১০ জন, ৭১ থেকে ৮০ বছরের চারজন এবং ৮১ থেকে ৯০ বছর বয়সসীমার রয়েছেন একজন।

বিভাগভিত্তিক বিশ্লেষণে তিনি জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে ঢাকা বিভাগের রয়েছেন ১৬ জন, খুলনা বিভাগে পাঁচজন, চট্টগ্রাম ও রাজশাহী বিভাগের চারজন করে, সিলেট বিভাগে দুজন এবং বরিশাল বিভাগে একজন মারা গেছেন।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশে নভেল করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। সেদিন তিনজন আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ার কথা জানায় সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)। ওই মাসের ১৮ তারিখে কভিড-১৯-এ প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয়। এরপর প্রায় পাঁচ মাস অতিবাহিত হতে চললেও সংক্রমণ ও মৃত্যু এখনো সেভাবে কমছে না।

এই বিভাগের আরও খবর

আরও পড়ুন